উৎপাদনে যাবে ডরিনের সহযোগী বিদ্যুৎ প্রকল্প

সপ্তাহের শেষ দিন ফের ঊর্ধ্বমুখী পুঁজিবাজার

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

আবারো ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে পুঁজিবাজার। গতকাল সপ্তাহের শেষ কর্মদিবসে দেশের দুই পুঁজিবাজার সূচকের উন্নতি ঘটে। নি¤œমুখী প্রবণতায় দিন শুরু করা পুঁজিবাজারগুলো আধঘণ্টার মাথায় ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করে। একপর্যায়ে সূচকের বড় উন্নতির দিকে ছুটছিল বাজারগুলো; কিন্তু মাঝপথে বিক্রয়চাপ তৈরি হলে বৃদ্ধি পাওয়া সূচকের একটি অংশ হারায়। দিনশেষে সূচকের কমবেশি উন্নতি ধরে রাখতে সক্ষম হয় দুই পুঁজিবাজার।
দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স গতকাল ২৩ দশমিক ৯০ পয়েন্ট উন্নতি ধরে রাখে। ৬ হাজার ৯৮ দশমিক ৩২ পয়েন্ট থেকে দিন শুরু করা সূচকটি বৃহস্পতিবার দিনশেষে পৌঁছে যায় ৬ হাজার ১২২ দশমিক ২৩ পয়েন্টে। একই সময় ডিএসই-৩০ ও ডিএসই শরিয়াহ সূচকের উন্নতি ঘটে যথাক্রমে ৪ দশমিক ৯৭ ও ১১ দশমিক ৪৭ পয়েন্ট।
দ্বিতীয় পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক ও সিএসসিএক্স সূচকের উন্নতি হয় যথাক্রমে ৩৭ দশমিক ৭০ ও ১৯ দশমিক ১৩ পয়েন্ট। এখানে সিএসই-৫০ ও সিএসই শরিয়াহ সূচকের উন্নতি ঘটে যথাক্রমে ৪ দশমিক ১৫ ও ৭ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট।
সূচকের উন্নতি ঘটলেও গতকাল লেনদেন কমেছে পুঁজিবাজারগুলোতে। ঢাকা বাজারে ৩৫৮ কোটি টাকার লেনদেন নিষ্পত্তি হয় গতকাল, যা আগের দিন অপেক্ষা ৩৩ কোটি টাকা কম। বুধবার ডিএসইর লেনদেন ছিল ৩৯১ কোটি টাকা। চট্টগ্রাম শেয়ারবাজারে ২৭ কোটি টাকা থেকে ২৪ কোটি টাকায় নেমে আসে লেনদেন।
পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ডরিন পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কোম্পানির সহযোগী নতুন বিদ্যুৎ প্রকল্প চাঁদপুর পাওয়ার জেনারেশন ২০১৯ সালের ১৬ জুলাই বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করবে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সূত্র জানায়, চাঁদপুর পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড গতকাল ১৭ জানুয়ারি জ্বালানি-বিদ্যুৎ ও খনিজসম্পদ মন্ত্রাণলয়ে জিওবির সাথে একটি বিদ্যুৎ ক্রয়চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। ১১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন মতাসম্পন্ন এই পাওয়ার প্লান্টের জালানি হিসেবে হেভি ফুয়েল অয়েল (এইচএফও) ব্যবহারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এর জন্য বিপিডিবির সাথে ডরিন পাওয়ার জেনারেশনস অ্যান্ড সিস্টেমস লিমিটেড এবং ডরিন পাওয়ার হাউজ অ্যান্ড টেকনোলজিস লিমিটেড চুক্তি করেছে।
জানা গেছে, এই প্রকল্পে ডরিন পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড সিস্টেমস লিমিটেডের ৬০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। বাকি ৪০ শতাংশ ডরিন পাওয়ার হাউজ অ্যান্ড টেকনোলজিস লিমিটেডের।
উল্লেখ্য, বিপিডিবির সাথে বিদ্যুৎ ক্রয়চুক্তির (পিপিএ) ১৮ মাসের মধ্যে কোম্পানিটি বাণিজ্যিক উৎপাদনে যেতে পারবে, যার মেয়াদ হবে ১৫ বছর। অর্থাৎ প্লøান্ট নির্মাণের পর ১৫ বছর পর্যন্ত এই কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনবে সরকার। প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম পড়বে ৭ টাকা ৯২ পয়সা।
গতকাল সূচকের নি¤œমুখী প্রবণতায় দিন শুরু করে দুই পুঁজিবাজার। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ডিএসইএক্স সূচকটি সকালে ৬ হাজার ৯৮ দশমিক ৩২ পয়েন্ট থেকে যাত্রা করে বেলা ১১টায় নেমে আসে ৬ হাজার ৮৮ পয়েন্টে। তবে প্রথম দিকের এ বিক্রয়চাপ দ্রুতই সামলে নেয় বাজারটি। দুপুর ১২টায় সূচকটি পৌঁছে যায় ৬ হাজার ১৩৮ পয়েন্টে। এ পর্যায়ে প্রায় ৪০ পয়েন্ট উন্নতি হয় ডিএসই সূচকের। সূচকের এ অবস্থানে ফের বিক্রয়চাপ তৈরি হয়, যা সূচককে নি¤œমুখী করে তোলে। এতে সূচকের ২৩ দশমিক ৯০ পয়েন্ট উন্নতিতে দিন শেষ করে ডিএসই।
দুই পুঁজিবাজারে বেশির ভাগ খাত আগের দিন হারানো দরের একটি অংশ ফিরে পায় গতকাল। বেশ কয়েকটি খাতে লেনদেন হওয়া কোম্পানির বেশির ভাগের মূল্যবৃদ্ধি ঘটে। তবে মিশ্র প্রবণতা ছিল প্রধান প্রধান খাতগুলোতে, যা দিনের সূচককে এগিয়ে নিতে ভূমিকা রাখে। এদের মধ্যে ছিল ব্যাংক, নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান, প্রকৌশল, খাদ্য, জ্বালানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। ঢাকা শেয়ারবাজারে লেনদেন হওয়া ৩৩৪টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ১৪২টির মূল্যবৃদ্ধির বিপরীতে দর হারায় ১৩৪টি। অপরিবর্তিত ছিল ৫৮টির দর। অপর দিকে চট্টগ্রামে লেনদেন হওয়া ২৩৯টি সিকিউরিটিজের মধ্যে ৮৯টির দাম বাড়ে, ১০৮টির কমে ও ৪২টির দাম অপরিবর্তিত থাকে।
গতকাল নিয়ে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো ডিএসইর লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস। ৪৪ কোটি ৯৮ লাখ টাকায় কোম্পানিটির ১৪ লাখ শেয়ার হাতবদল হয়। ১২ কোটি ৯৪ লাখ টাকায় ৫৮ লাখ ৬ হাজার শেয়ার বেচাকেনা করে ড্রাগন সোয়েটার দিনের দ্বিতীয় অবস্থানটি ধরে রাখে। ডিএসইর লেনদেনের শীর্ষ দশ কোম্পানির অন্যগুলো ছিল যথাক্রমে ইফাদ অটোস, গ্রামীণফোন, বিডি থাই অ্যালুমিনিয়াম, সিটি ব্যাংক, গোল্ডেন হারভেস্ট, আইপিডিসি, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ ও শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক।
আগের দিনের মতো গতকালও ডিএসইতে মূল্যবৃদ্ধির শীর্ষস্থানটি দখলে রাখে ‘জেড’ গ্রুপেরই দুই কোম্পানি বেক্সিমকো সিনথেটিকস ও সোনারগাঁও টেক্সটাইল। দু’টি কোম্পানিরই মূল্যবৃদ্ধির হার ছিল ৯ দশমিক ৪৭ শতাংশ। উল্লেখযোগ্য মূল্যবৃদ্ধি পাওয়া অন্যান্য কোম্পানির মধ্যে রেনউইক যজ্ঞেশ্বর ৭.৫০, ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট ৭.৪৯, ও শাইনপুকুর সিরামিকসের ৬.৮৩ শতাংশ মূল্যবৃদ্ধি হয়। অপর দিকে দিনের সর্বোচ্চ ৬ দশমিক ৪১ শতাংশ দর হারায় এসইএম আইবিবিএল ফান্ড। এ ছাড়া ওইমেক্স ৪.৪৫, নাহি অ্যালুমিনিয়াম ৪.০১ ও বিডি অটোকার ২ দশমিক ৬৭ শতাংশ দর হারায়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.