পুতিনের প্রতিদ্বন্দ্বী
পুতিনের প্রতিদ্বন্দ্বী

পুতিনের প্রতিদ্বন্দ্বী

আদিবা শাইয়ারা

বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে নির্বাচনে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছেন হিজাব পরা এক নারী। রাশিয়ার ২০১৮ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন আইনা গামজাতোভা নামে ৪৬ বছরের এক মুসলিম নারী। ফেসবুকে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর উত্তর ককেশাসের দাগেস্তান এলাকার বাসিন্দা এই নারীর কয়েক শ’ সমর্থক উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। 

গামজাতোভা রাশিয়ার সবচেয়ে বড় মুসলিম সংবাদমাধ্যম ইসলাম ডট আরইউয়ের প্রধান। এই সংবাদমাধ্যমের টেলিভিশন, রেডিও ও পত্রিকা রয়েছে। তিনি ইসলামের বিভিন্ন বিষয়ে বই লেখেন এবং একটি দাতব্য সংস্থা পরিচালনা করেন। তার স্বামী আখমাদ আবদুলায়েভ দাগেস্তান এলাকার একজন মুফতি।

রাশিয়ার মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে গামজাটোভার প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি আলোচনার বিষয়ে পরিণত হয়েছে। অনেকেই মনে করছেন, স্বামীর ছত্রছায়া থেকে তার বের হওয়া উচিত নয়। আবার অনেকেই তার সাহসী সিদ্ধান্ত ও দৃঢ়তার প্রশংসা করছেন। গামজোতোভার এই নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। যদি দেশটির ২০ মিলিয়ন মুসলমান একসাথে তাকে ভোট দেয়া তবু তিনি জিততে পারবেন না। কিন্তু নির্বাচনে অংশ নিয়ে রাশিয়ার মুসলিম সম্প্রদায়কে সম্ভবত এই বার্তা দিতে চান- তারাও রাশিয়ায় সরব হতে পারেন। রাজনীতিতে অংশ নেয়ার অধিকার তাদের আছে। রাশিয়ার অন্য এলাকায় তিনি যে ভোটই পান না কেন, দাগেস্তান ও উত্তর ককেশাসে যে তিনি বিপুল ভোট পাবেন তাতে কোনো সন্দেহ নেই। অবশ্য রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভ্লাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধে আরো একজন নারী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে জানিয়েছিলেন। তিনি হচ্ছেন দেশটিতে দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনকারী রাজনীতিক আলেক্সি নাভালনি। তবে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কি না তা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। কারণ, তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির একটি মামলার তদন্ত চলছে।

প্রেসিডেন্ট পুতিন নির্বাচনে জয়ী হয়ে ২০২৪ সাল পর্যন্ত চতুর্থ মেয়াদে ক্ষমতা ধরে রাখতে পারবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। পুতিন বিজয়ী হলে জোসেফ স্ট্যালিনের পর তিনি হবেন রাশিয়ার সবচেয়ে দীর্ঘতম শাসক। পুতিনবিরোধী আলেক্সি নাভালনিকে নির্বাচনে প্রার্থিতার অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে। এমনকি তিনি ভোটও দিতে পারবেন না। 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.