ঢাকা, বুধবার,২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

রাজনীতি

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত

নয়া দিগন্তকে তাবিথ আউয়াল

মঈন উদ্দিন খান

১৭ জানুয়ারি ২০১৮,বুধবার, ০৬:০৭ | আপডেট: ১৭ জানুয়ারি ২০১৮,বুধবার, ০৬:১২


প্রিন্ট
সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত বলে মন্তব্য করেছেন উত্তর সিটি করপোরেশনের উপনির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী তরুণ নেতা তাবিথ আউয়াল।

নয়া দিগন্তকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিলের নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। ওই নির্বাচনকে প্রকৃতপক্ষে নির্বাচন বলা যায় না। কারচুপি, প্রকাশ্যে নৌকার পক্ষে সিল মারা, এজেন্টদের কেন্দ্রে যেতে বাধাসহ নানা ঘটনা ঘটেছে। নতুন নির্বাচন কমিশন যদি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সক্ষম হয়, তা হলে এবার রাজধানীবাসী বিএনপির পক্ষেই থাকবে।

তাবিথ আউয়াল বলেন, তার দল বিএনপি ব্যাপক কারচুপির কারণে ২০১৫ সালের ওই নির্বাচন বয়কট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভোটগ্রহণের ৩ ঘণ্টা অতিবাহিত হওয়ার পর। কিন্তু তারপরও তিনি তিন লাখ ২৫ হাজার ৮০ ভোট পেয়েছিলেন। ভোটের এই পরিসংখ্যান তাকে আরো আশাবাদী করে তুলেছে। যদি সুষ্ঠু, অবাধ নির্বাচন হয়, সাধারণ ভোটাররা যদি নির্বিঘেœ ভোট দিতে পারে, তাহলে ফল পক্ষেই আসবে।

বর্তমান বাস্তবতায় সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে কতটা আশাবাদী এমন প্রশ্নে বিএনপির নির্বাহী কমিটির এই সদস্য বলেন, আশাবাদতো রাখতেই হয়। নতুন নির্বাচন কমিশন এসেছে। তারা কিভাবে দায়িত্ব পালন করে সেটি দেখতে হবে। নির্বাচনের পুরো প্রক্রিয়ায় থেকেই সার্বিক বিষয় পর্যবেক্ষণে রাখতে হবে।
বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ বলেন, নির্বাচনের প্রস্তুতি চলছে। আগামীকাল নির্বাচন কমিশনে মনোনয়ন দাখিল করব। এরপর নির্বাচনী বিধিবিধান মেনেই প্রচারণায় নামব।
তিনি বলেন, উত্তর সিটিতে ভোটারদের একটি বড় অংশ হচ্ছে তরুণ-যুবক। তরুণ ভোটারদের মনোযোগ আকর্ষণে নেয়া হবে নানা উদ্যোগ। তিনি বলেন, আমাকে মনোনয়ন দেয়ার মধ্য দিয়ে প্রকৃতপক্ষে তরুণদের বিজয় হয়েছে। তাদের সঙ্গী করেই সামনে এগিয়ে যেতে চাই।

চূড়ান্তভাবে মনোনয়ন পাওয়ার আগে থেকেই নির্বাচনের প্রস্তুতি চলছে তাবিথ আউয়ালের। তেজগাঁওয়ে নির্বাচনী অফিস খোলা হয়েছে। সেখানে তিনি নিয়মিত বসছেন। নেতাকর্মীদের সাথে শুভেচ্ছাবিনিময় চলছে। একই সাথে নির্বাচনের প্রস্তুতিমূলক নানা পরিকল্পনা হাতে নেয়া হচ্ছে।

তাবিথ আউয়াল বলেন, এবার প্রস্তুতিতে কোনো ঘাটতি রাখতে চাই না। প্রতিটি কেন্দ্রে বিশ্বস্ত ও ত্যাগী এজেন্ট দেয়া হবে। ভোট গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত তারা দায়িত্ব পালন করবেন।
নির্বাচনের ইশতেহার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ২০১৫ সালের মেয়র নির্বাচনে তিনি আধুনিক ও বাসযোগ্য ঢাকা গড়তে যুগোপযোগী নির্বাচনী ইশতেহার তুলে ধরেছিলেন। ওই ইশতেহারই তার মূল ভিত্তি। এর সাথে আরো নতুন কিছু বিষয় যুক্ত হবে।

জানা গেছে, তাবিথের ইশতেহারে নগরবাসীর খাদ্য, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতের ঘোষণা থাকবে। একই সাথে যানজট ও যানবাহন সঙ্কট নিরসন, নগর পরিবেশ ব্যবস্থাপনা ও টেকসই উন্নয়ন, সামাজিক উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা, চিত্তবিনোদন ও জনস্বাস্থ্য, ডিজিটাল সেবা, জননিরাপত্তা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা ও নগর প্রশাসনকে ঢেলে সাজানোর প্রতিশ্রæতি থাকবে।

তাবিথ আউয়াল বলেন, মরহুম মেয়র আনিসুল হকের অনেক উদ্যোগ ছিল ইতিবাচক। নির্বাচিত হলে তার সেই পদক্ষেপগুলো অথবা অসমাপ্ত কাজগুলো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাব।

এক প্রশ্নের উত্তরে তাবিথ বলেন, বিএনপি অনেক বড় দল। এ দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকের সংখ্যা বিশাল। বিএনপি আমাকে মেয়র পদে প্রার্থী হওয়ার জন্য মনোনীত করেছে। আমি ছাড়া আরো চারজন নেতা মনোনয়ন চেয়েছিলেন। তারাও অনেক অভিজ্ঞ এবং সুযোগ্য। দলের সিদ্ধান্তের ব্যপারে আমরা সবাই শ্রদ্ধাশীল ও ঐক্যবদ্ধ। কাজেই ওই চার নেতার সমর্থন ও সহযোগিতা আমার জন্য খুবই প্রয়োজন। তাদেরও বিশাল সমর্থক ও কর্র্মিবাহিনী রয়েছে। তারা সবাই আমাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। আশা করছি, বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচনী মাঠে নেমে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত করবে।

নির্বাচন স্থগিতের জন্য এরই মধ্যে আইনি প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার বিষয়ে তাবিথ আউয়াল বলেন, নির্বাচন নিয়ে শঙ্কার বিষয়টি নিয়ে আগে থেকেই আলোচনা হচ্ছিল। বিষয়টি পুরোপুরি আদালতের ব্যাপার। আদালত যে সিদ্ধান্ত নেবে সেভাবেই কাজ করতে হবে।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫