ঢাকা, বুধবার,২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

ক্রিকেট

আইপিএলে নতুন দলে মোস্তাফিজ

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৬ জানুয়ারি ২০১৮,মঙ্গলবার, ১৫:১৩ | আপডেট: ১৬ জানুয়ারি ২০১৮,মঙ্গলবার, ১৫:৪৭


প্রিন্ট
মোস্তাফিজুর রহমান

মোস্তাফিজুর রহমান

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১১তম আসর শুরু হতে যাচ্ছে কয়েক মাস পরে। নিলামে হবে চলতি মাসের শেষের দিকে। নতুন নিয়মের কারণে দলগুলোকে ছাড়তে হচ্ছে তারকা খেলোয়াড়দের। সেই হিসেবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ছেড়ে দিয়েছে বাংলাদেশের হাসি মুখের ঘাতক মোস্তাফিজুর রহমানকে। এই সুযোগ লুফে নিতে চাচ্ছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

ব্যাঙ্গালুরুতে ২৭ জানুয়ারি আইপিএলের নিলাম শুরু হবে। এর আগেই পছন্দের খেলোয়াড়দের নির্ধারণ করে রাখছে। ফলে বোলিং বিভাগ আরো মজবুত করতে মোস্তাফিজকে চাচ্ছে মুম্বাই।

আইপিএলের নবম আসরে অভিষেক হয় মোস্তাফিজের। হায়দরাবাদের হয়ে মাঠ মাতান এই বিস্ময় বালক। দলকে শিরোপা জেতাতে তার অবদান ছিল অনেক। সে বার সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় নির্বাচিত হন তিনি।

কিন্তু আইপিএল থেকে ফিরেই ইনজুরিতে পড়েন মোস্তাফিজ। বিশ্রাম নিয়ে সাসেক্সে খেলতে গিয়েই ইনজুরি আরো গুরুতর হয়। অপারেশন টেবিলে যেতে হয় তাকে। পরে দীর্ঘ সময় বিশ্রামে থাকেন তিনি।

পুরনো ছন্দে ফিরতে সময় লাগে মোস্তাফিজের। তাই আইপিএলের গত আসরে হায়দরাবাদের হয়ে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। এক ম্যাচের বেশি খেলা হয় না তার।

এবারের আসরে তাকে দলে রাখেনি হায়দরাবাদ। নিলামে উঠবে মোস্তাফিজ। তার ভিত্তি মূল্য ধরা হয়েছে এক কোটি রূপি। তাকে পেতে এখন মরিয়া মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

 

মোস্তাফিজের প্রশংসায় জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক

ঘরের মাঠে স্পিনাররা ভালো করবেন এটা আর বলার কী! তবে স্পিনারদের পাশাপাশি পেসাররা যেটুকু সাপোর্ট দেবেন সেটা সাফল্য আনার পেছনে অনেক কাজ দেয়। বাংলাদেশ কাল তিন পেসারই খেলিয়েছে। অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফি তো অটোমেটিক চয়েস। এর সাথে খেলেছেন মোস্তাফিজুর রহমান ও রুবেল হোসেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই পেসারই ভালো বোলিং করেছেন। বিশেষ করে বছরের সূচনা তো বটেই এর সাথে এ বছর রয়েছে বেশ কিছু ম্যাচ। সেখানে পেস অ্যাটাক থেকে ভালো কিছুর যে আশা ছিল, সেটার প্রমাণ দিয়েছে বাংলাদেশ দল।

কোর্টনি ওয়ালশের তত্ত্বাবধায়নে বেশ কিছুদিন থেকেই কাজ করে যাচ্ছেন মোস্তাফিজ রুবেলরা। তার প্রমাণটা মিলল কালকের ম্যাচে। মোস্তাফিজ তার ১০ ওভারে দিয়েছেন মাত্র ২৯ রান। তার বোলিং বিশ্লেষণ ১০-১-২৯-২। আউট করেছেন জিম্বাবুয়ের সেরা ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেইলর ও মুজারাবানিকে।

ম্যাচ শেষে মোস্তাফিজের প্রশংসা করেছেন সাকিব আল হাসান। বিশেষ করে মোস্তাফিজ যে পরিশ্রম করছেন তার ফল তিনি দেখতে পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

শুধু সাকিব কেন। মোস্তাফিজের প্রশংসা করেছেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক ক্রেমারও। তিনি বলেন, ‘সত্যিই তার স্লো ডেলিভারিগুলো খেলতে বেশ কষ্ট হচ্ছিল। খেলতে বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়। এ ধরনের বল খেলতে আসলেই সমস্যা। সে একটা এরিয়াতে বোলিংটা করেন। সেখানেও থাকে ভেরিয়েশন। ইনজুরি থেকে ফিরে সে খুবই ভালো বোলিং করছেন।’

আসলে মোস্তাফিজ তার ক্যারিয়ারের সূচনায় যে পারফরম্যান্স করেছিলেন সেখান থেকে কিছুটা হলেও দূরে সরে এসেছিলেন। তার অন্যতম কারণ ছিল ইনজুরি। বাঁহাতি এ কাটার মাস্টার সবকিছু পেছনে ফেলে এখন এগিয়ে যাচ্ছেন। বিশেষ করে প্রতিপক্ষের ব্যাটিং লাইনে যদি ভীতি ছড়িয়ে দিতে পারেন এ বাঁহাতি সেটাও অনেক কার্যকরি ভূমিকা রাখে। জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক সূচনায় উইকেট হারানোটা বড় স্কোর গড়ার অন্তরায় ছিল বলে দাবি করেন। এরপরের ম্যাচ তাদের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। তিনি বলেন, ‘লঙ্কান বোলারদের আমরা খুব ভালো জানি। উইকেট সম্পর্কে একটা ধারণা এসেছে। আশা করি আমরা পরের ম্যাচে এসব থেকে উত্তরণ ঘটাতে পারবো।’

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫