ঢাকা, রবিবার,২২ এপ্রিল ২০১৮

প্রথম পাতা

রংপুরে ত্রুটির পরও ঢাকা সিটিতে থাকছে ডিভিএম

শামছুল ইসলাম

১৪ জানুয়ারি ২০১৮,রবিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারে ব্যর্থ হয়ে রংপুর সিটি নির্বাচনের একটি কেন্দ্রে ডিজিটাল ভোটিং মেশিনের (ডিভিএম) পরীক্ষামূলক ব্যবহার চালায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। পরীক্ষামূলক ভোট গ্রহণের সময় এ প্রযুক্তি নিয়েও বিপাকে পড়েন নির্বাচন কর্মকর্তারা। এ সময় প্রায় আধা ঘণ্টা ভোটগ্রহণ বন্ধ থাকে। পরে কোনো প্রতিকার করতে না পেরে ভোটিং প্যাড পরিবর্তন করে ফের ভোটগ্রহণ করা হয়। এর পরও সদ্য ঘোষিত ঢাকা উত্তর এবং দক্ষিণ সিটিতে একটি করে ওয়ার্ডে ফের ডিভিএম ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মো: নুরুল হুদা। তবে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে তা কতটুকু সম্ভব তা নিয়ে সংশয়ে রয়েছে সংশ্লিষ্টরা।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, কোনো প্রযুক্তি গ্রহণের আগে তার ভালো-মন্দ খতিয়ে দেখা উচিত। আর নির্বাচনের অন্যতম স্টেকহোল্ডার হচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলো। যে প্রযুক্তিই গ্রহণ করা হোক না কেন তা রাজনৈতিক দলগুলোকে আস্থায় নিয়ে করা উচিত।
স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড. তোফায়েল আহমদ বলেন, ইভিএমের বিপক্ষে বেশির ভাগ মানুষ। সব কিছু বিবেচনা না করে এটা প্রয়োগ করতে গেলে কমিশন বিতর্কিত হয়ে পড়বে।
তবে ডিভিএমের ত্রুটি স্বীকার করতে নারাজ ইসি। ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব মো: হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, রংপুর সিটিতে ডিভিএমে কোনো ত্রুটি ধরা পড়েনি। নিরবচ্ছিন্নভাবেই ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। রংপুরের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় ঢাকায় দুই সিটির একটি করে ওয়ার্ডে ইভিএম ব্যবহার করার প্রস্তুতি নিচ্ছে কমিশন।
ইসি কর্মকর্তারা জানান, ২০১০ সালে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের একটি ওয়ার্ডে ভোটগ্রহণের মাধ্যমে বাংলাদেশে ইভিএমের যাত্রা শুরু হয়। ২০১৩ সালের ১৫ জুন অনুষ্ঠিত রাজশাহী সিটি করপোরেশনের টিচার্স ট্রেনিং কলেজ কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের সময় ইভিএম বন্ধ হয়ে যায়। তার পরে এটি সারানো আর সম্ভব হয়নি। ফলে ওই কেন্দ্রে আবার ভোট গ্রহণ করতে বাধ্য হয় নির্বাচন কমিশন। এসব সমস্যা চিহ্নিত করতে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বুয়েটকে একাধিকবার অনুরোধ করা হলেও তারা সমস্যা চিহ্নিত করেনি, বরং ইসি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ তোলে বুয়েট। পরে ইসি বুয়েটকে ইভিএম ফেরত দিতে বলে। এখন পর্যন্ত তারা ইভিএম ফেরত দেননি।
এরপর এনআইডির সাবেক ডিজি ব্রি. জে. সুলতানুজ্জামান মো: সালেহের নেতৃত্বে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরির (বিএমটিএফ) সহায়তায় ডিভিএম প্রবর্তন করে ইসি। ইতোমধ্যে এই কমিশনের আমলে কয়েক দফা ডেমো উপস্থাপন হয়েছে। রংপুর সিটিতে ইসির তৈরি যন্ত্রটির প্রথম পরীক্ষামূলক ব্যবহার হয়। নগরীর ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের ১৪১ নম্বর ভোটকেন্দ্রের ডিভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয় ইসি। এ জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতিও নেন ইসি কর্মকর্তারা।
এই কেন্দ্রে মোট ভোটার ছিলেন ২০৬৯ জন। যার মধ্যে ১২৫০ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে মেয়র পদে ১২২৭টি, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১২২৩ ও সংরক্ষিত পদে ১২২৮টি। ৬ নম্বর এর গোপন কক্ষে কাউন্সিলর পদের ব্যালট কিছু সময় নষ্ট ছিল। ফলে চারজন ভোটার ওই আসনের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারেননি। এ কারণে কাউন্সিলর পদে ১২২৩টি ভোট গণনা হয়। ভোটগ্রহণের আগেই ৬ নম্বর কক্ষের ভোটার শনাক্তকরণ মেশিন চালু না হওয়ার কারণে অতিরিক্ত ভোটার শনাক্তকরণ মেশিন ব্যবহার করে ভোটার শনাক্তকরণ শুরু হয়। আর ৫ নম্বর কক্ষে পাঁচজন ভোটার শনাক্ত করার পরই মেশিনটি বন্ধ হয়ে যায়; এখানেও অতিরিক্ত মেশিনের সহায়তায় ভোট নেয়া হয়। আর ১ থেকে ৬ নম্বর কক্ষের প্রতিটিতেই ভোট চলাকালে ভোটিং মেশিন অটো বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে প্রতিটি কক্ষেই ভোটগ্রহণ ১৫-২০ মিনিট বিলম্বে শুরু হয়। ভোটিং মেশিন অটো বন্ধ হওয়ার কারণে ভোট প্রক্রিয়াধীন এমন ৮টি ভোট কাউন্ট হয়নি। ফলে তাদেরকে পাশের কক্ষে পাঠিয়ে ভোট নেয়া হয়। এ ছাড়া প্রতিটি কক্ষের ভোটার শনাক্তকরণ মেশিনের ভোটিং মেশিনের কি বোর্ডের (সফট ও হার্ড) কিবোর্ডগুলো অতি সংবেদনশীল হওয়াতে পাসওয়ার্ড প্রদান করার সময় প্রায় সময় কি-গুলো আটকে যায়।
এর পরও ঢাকার দুই সিটির কথা উল্লেখ না করলেও নতুন ৫ সেট ইভিএম চেয়ে বাংলাদেশ মেশিন টুলস্ ফ্যাক্টরিকে (বিএমটিএফ) চিঠি পাঠিয়েছে ইসি। এতে স্বাক্ষর রয়েছে এনআইডির ডিজি ব্রি. জে. মোহাম্মদ সাইদুল ইসলামের।
ডিভিএম ব্যবহারের বিষয়ে সিইসি বলেন, রংপুর সিটি করপোরেশনের মতো ঢাকা উত্তর সিটিতে একটি এবং দক্ষিণ সিটিতে একটি ইভিএম ব্যবহার করার চিন্তা আছে। যদি সব কিছু ঠিকঠাক থাকে আর যদি কারো কোনো আপত্তি না থাকে তাহলে দু’টি ওয়ার্ডে ইভিএম ব্যবহার করা হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫