পূর্ব মির্জাগঞ্জ এস এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৩৪ বছরেও পাকা ভবন হয়নি

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার পূর্ব মির্জাগঞ্জ এসএম মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার ৩৪ বছর পেরিয়ে গেলেও কোনো পাকা ভবন নির্মিত হয়নি। পায়রা নদী তীরবর্তী হওয়ার কারণে জোয়ার কিংবা বৃষ্টি হলে পানিতে প্লাবিত হয় বিদ্যালয়ের মাঠ। এতে যেমন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে ভোগান্তির শেষ থাকে না।
বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, মির্জাগঞ্জ ইউনিয়নের পূর্ব মির্জাগঞ্জ প্রত্যন্ত গ্রাম হওয়ায় ১৯৮৫ সালে ইউসুফ আলী হাওলাদারের সহযোগিতায় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মরুহুম মোয়াজ্জেম হোসেন খান পূর্ব মির্জাগঞ্জ এসএম মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। একই গ্রামে আরো দু’টি প্রতিষ্ঠান কালিকাপুর সালেহা খাতুন বালিকা বিদ্যালয় ও কলাগাছিয়া ইমতাজিয়া মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। বিদ্যালয়টি ১৯৮৭ সালে এমপিওভুক্ত হয়। এর পর থেকে বিদ্যালয়টি সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে হলেও এখনো পর্যন্ত কোনো পাকা ভবন নির্মিত হয়নি।
বিদ্যালয়টিতে বর্তমানে প্রধান শিক্ষকসহ ১০ জন শিক্ষক, দু’জন কর্মচারী ও দুই শতাধিক ছাত্রছাত্রী রয়েছেন।
বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রনজিৎ চন্দ্র ঢালী বলেন, বিদ্যালয়ের পেছনে তালতলী খালটি পূর্বে খরস্রোতা পায়রা নদীর সাথে মিলে গেছে। পায়রা নদীর জোয়ার কিংবা অমাবশ্যা বা পূর্ণিমার সময়ে তালতলী খালটি তার আসল রূপ ফিরে পায়। এমনকি ঘূর্ণিঝড় ও নি¤œচাপ হলে এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থাও ভেঙে পড়ে। এতে তালতলীর খাল উপচে বিদ্যালয়ের মাঠ পানিতে তলিয়ে যায়। একাধিকবার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালেও কোনো কাজ হয়নি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.