ঢাকা, শুক্রবার,১৯ জানুয়ারি ২০১৮

ক্রিকেট

দিল্লি থেকে ডাক পেলেন সাকিব

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৩ জানুয়ারি ২০১৮,শনিবার, ১৯:০৫


প্রিন্ট
দিল্লি থেকে ডাক পেলেন সাকিব

দিল্লি থেকে ডাক পেলেন সাকিব

আসন্ন আসন্ন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) টুয়েন্টি টুয়েন্টি ক্রিকেটের নিলামে বাংলাদেশের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে দলে নিতে চায় দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। এমন খবর জানিয়েছে দলের এক মুখপাত্র।

বাংলাদেশের আটজনসহ সর্বমোট ১১২২ জন খেলোয়াড়কে নিয়ে বেঙ্গালুরুতে আগামী ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে আইপিএলের একাদশ আসরের নিলাম। ওই নিলামের মাধ্যমে কোন কোন খেলোয়াড়কে দলে নেবে ইতোমধ্যে সেই নকশা কষে রেখেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো।

দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের ইচ্ছার তালিকায় আছেন বাংলাদেশের সাকিব। আগের সাত আসরে কোলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলেছিলেন সাকিব। তবে আসন্ন আসরের জন্য সাকিবকে ছেড়ে দেয়ায় তাকে দলে নিতে অনেক বেশি আগ্রহী দিল্লি। এমন আভাস পাওয়া গেছে দিল্লির ফ্র্যাঞ্চাইজি থেকে। সাকিব ছাড়া কোলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক গৌতম গম্ভীরকে দলে নিতে আগ্রহী দিল্লি।

আসন্ন আসরের জন্য দলের বেশির ভাগ খেলোয়াড়দের নিলামের জন্য ছেড়ে দিয়ে আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলো।

বাংলাদেশ থেকে আসন্ন আইপিএলের নিলামে নাম রয়েছে ৮ জন খেলোয়াড়ের। এরা হলেন- সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, লিটন কুমার দাস, সাব্বির রহমান ও আবুল হাসান রাজু।

জয় দিয়ে শুরু হলো বাংলাদেশের যুব বিশ্বকাপ

দুর্দান্ত এক জয় দিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ১২তম আসরে যাত্রা শুরু করলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী দিন ‘সি’ গ্রুপে বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে বাংলাদেশ ৮৭ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে নামিবিয়াকে। বৃষ্টির কারণে ৫০ ওভারের ম্যাচটি নির্ধারিত হয় ২০ ওভারে। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৯০ রানের বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশের যুবারা। জবাবে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১০৩ রান করতে সমর্থ হয় নামিবিয়া। দিনের অন্য ম্যাচে আফগানিস্তান ৫ উইকেটে পাকিস্তানকে, জিম্বাবুয়ে ১০ উইকেটে পাপুয়া নিউ গিনিকে এবং স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড ৮ উইকেটে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে।

লিংকনে টস হেরে প্রথম ব্যাট হাতে মারমুখী মেজাজে শুরু করে বাংলাদেশের যুবারা। ৪ ওভারে ৩৩ রান যোগ করেন দুই ওপেনার পিনাক ঘোষ ও মোহাম্মদ নাইম। ৪টি চারে ১৭ বলে ২৬ রান করে ফিরেন পিনাক।

পিনাকের বিদায়টা আমলে নেননি নাইম ও তিন নম্বরে নামা অধিনায়ক সাইফ হোসেন। নামিবিয়ার বোলারদের বিপক্ষে নিজেদের মারমুখী মেজাজ অব্যাহত রাখেন নাইম ও সাইফ। এতে ১২ ওভারেই শতরানের কোটা স্পর্শ করে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত এই জুটি বিচ্ছিন্ন হন ১৬তম ওভারের তৃতীয় বলে। এসময় বাংলাদেশের রান ১৩০। ৮টি চার ও ১টি ছক্কায় ৪৩ বলে ৬০ রান তুলে আউট হন নাইম।

তবে অন্য প্রান্তে ব্যাট হাতে অবিচল ছিলেন সাইফ। চার নম্বরে নামা আফিফ হোসেন খুব বেশিক্ষণ সাইফকে সঙ্গ দিতে পারেননি। ১২ বলে ১১ রান করে ফিরেন তিনি। তবে সাইফের বিধ্বংসী ব্যাটিং ছিলো শেষ পর্যন্ত। ইনিংসের শেষ বলে আউট হবার আগে ৪৮ বলে ৮৪ রান করেন সাইফ। তার ইনিংসে ৩টি চার ও ৫টি ছক্কা ছিলো। সাইফের ব্যাটিং দৃঢ়তায় ৪ উইকেটে ১৯০ রানের বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের ছুড়ে দেয়া ১৯১ রানের জবাব দিতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে নামিবিয়া। স্কোর বোর্ডে ১২ রান উঠতেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। এরপর দলের হাল ধরেন নামিবিয়ার মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান এবিন ভ্যান উইক। ৫২ বলে ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। কিন্তু অন্য কোন ব্যাটসম্যান বড় ইনিংস খেলতে না পারলে ৬ উইকেটে ১০৩ রানের বেশি করতে পারেনি নামিবিয়া। বাংলাদেশের দুই পেসার কাজি অনিক ও হাসান মাহমুদ ২টি করে উইকেট নেন। এছাড়া তৌহিদ হৃদয় ১টি করে উইকেট নেন। ম্যাচের সেরা হন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাইফ হাসান।

আগামী ১৫ জানুয়ারি কানাডার বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশের যুবারা।
বাংলাদেশ-নামিবিয়ার ম্যাচটি ছিল উদ্বোধনী দিনের তৃতীয় ম্যাচ। ‘ডি’ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে আফগানিস্তান। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান। আফগান বোলারদের নৈপূণ্যে ১৪ বল হাতে রেখেই ১৮৮ রানেই গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। দলের পক্ষে ওপেনার ও উইকেটরক্ষক রোহাইল নাজির ৮১, আলি জারইয়াব আসিফ ৩০ ও মোহাম্মদ তাহা ১৭ রান করেন। আফগানিস্তানের আজমতুল্লাহ ওমারজাই ও কাইস আহমেদ ৩টি করে উইকেট নেন।

জবাবে ডান-হাতি ব্যাটসম্যান ডারউইশ রাসোলির ৭৮ বলে অপরাজিত ৭৬ রানের কল্যাণে ১৫ বল বাকি রেখেই ম্যাচ জিতে নেয় আফগানিস্তান। ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান ম্যাচের সেরা রাসোলি। এছাড়া উইকেটরক্ষক ইকরাম আলি খিল ৪৬ ও রহমনুল্লাহ গুরবাজ ৩১ রান করেন।
দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে ‘বি’ গ্রুপে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং-এ নেমে ৯৫ রানেই গুটিয়ে যায় পাপুয়া নিউগিনি। ১৪ ওভারে বিনা উইকেটে সেই রান টপকে যায় জিম্বাবুয়ে।

দিনের চতুর্থ ম্যাচটি ছিলো দু’টি বড় দলের। ‘এ’ গ্রুপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং-এ নামে নিউজিল্যান্ড। স্বাগতিক বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং-এ ৮ উইকেটে ২৩৩ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দুই ওপেনার নৈপুণ্যেই লড়াই করার পুঁজি পায় ক্যারিবীয়রা। কারণ উদ্বোধনী জুটিতে ১২৩ রান যোগ করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই ওপেনার কিগান সিমন্স ও কিমানি মিলিয়াস। তাদের পর পরের দিকে আর কোন বড় জুটিই গড়তে পারেনি দলের ব্যাটসম্যানরা। মিলিয়াস ৭৮ রানে ফিরলেও ১৩২ বলে ৯২ রানে অপরাজিত থাকেন সিমন্স।

জবাবে ফিন অ্যালেনের ১০০ বলে অপরাজিত ১১৫ ও জ্যাকব ভুলার ৮৩ রানে ৬৩ বল হাতে এবারের বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করে নিউজিল্যান্ড।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫