ঢাকা, শুক্রবার,১৯ জানুয়ারি ২০১৮

এশিয়া

শত বছরের নিষেধাজ্ঞাও উ. কোরিয়ার কোনো ক্ষতি হবে না!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৩ জানুয়ারি ২০১৮,শনিবার, ১৫:৫৩ | আপডেট: ১৩ জানুয়ারি ২০১৮,শনিবার, ১৬:০২


প্রিন্ট
উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন বলেছেন, পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা এক শ' বছর ধরে বলবৎ থাকলেও তার দেশের কোনো ক্ষতি হবে না।

শুক্রবার পিয়ংইয়ংয়ে তিনি বলেছেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে গুরুত্ব দেয়ার কারণে তার দেশে সব ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নতি অর্জন করেছে। কাজেই তার ভাষায় শত্রুরা যদি ১০ বছর থেকে শুরু করে ১০০ বছর পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রাখে তারপরও উত্তর কোরিয়ার কোনো ক্ষতি হবে না।

কিম বলেন, বিদেশের ওপর নির্ভরশীলতা না থাকা, অভ্যন্তরীণ শক্তিশালী অর্থনৈতিক ভিত্তি এবং প্রযুক্তি ও গবেষণা খাতে দেশীয় গবেষকদের সক্রিয় উপস্থিতির কারণে বিদেশি চাপের বিরুদ্ধে তার দেশ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি দেশটির বিরুদ্ধে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদ নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। আর এর পরিপ্রেক্ষিতে এ বক্তব্য দিলেন কিম।

 

উত্তর কোরিয়ার সাথে আলোচনায় আগ্রহী ট্রাম্প

উত্তর কোরিয়ার সাথে ‘অনুকূল পরিস্থিতিতে’ যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনা হতে পারে বলে ইতিবাচক মনোভাব প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার হোয়াইট হাউজ এ কথা জানিয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জা-ইন উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং-উনের সাথে বৈঠকে বসার ইচ্ছা প্রকাশ করার পর ট্রাম্প এ ইঙ্গিত দিলেন। কয়েক মাসের চরম উত্তেজনার পর দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠেয় শীতকালীন অলিম্পিকে উত্তর কোরিয়ার ক্রীড়াবিদ পাঠানোর ব্যাপারে দুই দেশের মধ্যে যুগান্তকারী সিদ্ধান্তের কয়েকদিন পর পরিস্থিতি শান্ত হয়ে আসার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা। দুই পক্ষের মধ্যে এই সমঝোতাকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ব্যাপকভাবে স্বাগত জানিয়েছে। হোয়াইট হাউজ জানায়, মুনের সাথে ফোনালাপকালে ট্রাম্প ‘অনুকূল পরিবেশে’ পিয়ংইয়ংয়ের সাথে বৈঠকের ইচ্ছা ব্যক্ত করেছেন। হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্স এক বিবৃতিতে জানান, ‘দুই নেতা উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ চাপ অব্যাহত রাখার প্রয়োজনীয়তার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।’

দুই কোরিয়ার মধ্যে অপোকৃত ফলপ্রসূ আলোচনার পর প্রশ্ন উঠেছে যুক্তরাষ্ট্রও উত্তর কোরিয়ার সাথে আলোচনায় বসতে পারে কি না। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও বলেছেন, ‘সঠিক পরিস্থিতিতে’ তিনি উত্তর কোরিয়ার সাথে কথা বলতে প্রস্তুত।

মার্কিন সংবাদমাধ্যমে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত এক খবরে বলা হয়েছিল উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক পদপে নিতে যাচ্ছেন ট্রাম্প। সেই ঘটনাও সত্য নয় বলে জানান দণি কোরীয় প্রেসিডেন্ট মুন জা ইন। - এএফপি ও রয়টার্স

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫