ঢাকা, শনিবার,২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

আমেরিকা

ট্রাম্পের যেসব ভুলে চ্যালেঞ্জের মুখে যুক্তরাষ্ট্র

পার্সটুডে

১২ জানুয়ারি ২০১৮,শুক্রবার, ২২:০৫


প্রিন্ট
ট্রাম্পের যেসব ভুলে চ্যালেঞ্জের মুখে যুক্তরাষ্ট্র

ট্রাম্পের যেসব ভুলে চ্যালেঞ্জের মুখে যুক্তরাষ্ট্র

হোয়াইট হাউজ গত ক'দিন ধরে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু পরমাণু সমঝোতাকে চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে এসেছে। বর্তমানে তারা মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন ঘটনাবলী এবং দেশটির মানবাধিকার ইস্যুকে কেন্দ্র করে ইরানকে চাপের মুখে রাখার চেষ্টা করছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বৃহস্পতিবার ফরাসি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাতে আবারো ইরানকে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিকারী দেশ হিসেবে অভিহিত করেছেন। হোয়াইট হাউজও এক বিবৃতিতে ইরান সরকারের বিরুদ্ধে নাগরিক অধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে বলেছে, মার্কিন সরকার এ বিষয়ে চুপচাপ বসে থাকবে না।

হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্স বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মনে করেন, পরমাণু সমঝোতায় অনেক ত্রুটি রয়েছে। এ কারণে সরকার কংগ্রেস ও তার মিত্র দেশগুলোর সহযোগিতায় ওই ত্রুটিগুলো দূর করার চেষ্টা চালাচ্ছে। মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মানুচেনও বলেছেন, ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে বলে আশা করা যায়।

হোয়াইট হাউজ গত তিন মাস আগ থেকে ইরান বিরোধী জোর তৎপরতা শুরু করেছে। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে দেশটি শান্তিপূর্ণ পরমাণু কর্মসূচিকে তারা হুমকি হিসেবে তুলে ধরার কৌশল নিয়েছে। এ ছাড়া, পরমাণু সমঝোতাকে অকার্যকর করা, ইরানে মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে মিথ্যাচার এবং দেশটির ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে হুমকি হিসেবে তুলে ধরা আমেরিকার লক্ষ্য।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প এরই মধ্যে এমন কিছু ভুল করেছেন, যা ওয়াশিংটনকে বিরাট চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিয়েছে। আর তা হচ্ছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পরমাণু সমঝোতাকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছেন। অথচ ওই সমঝোতা বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় বিরাট ভূমিকা রাখতে পারে।

এ ছাড়া, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পরমাণু সমঝোতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করার চেষ্টা করা ছাড়াও জলবায়ু চুক্তি থেকেও বেরিয়ে যাওয়ায় আন্তর্জাতিক প্রতিশ্রুতি লঙ্ঘনকারী হিসেবে কুখ্যাতি অর্জন করেছে মার্কিন প্রশাসন। এমনকি চীন, রাশিয়া ও ইউরোপীয় মিত্রদের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্ক চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ ব্রাসেলসে ফ্রান্স, জার্মানি ও ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নে পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধানের সঙ্গে বৈঠক শেষে টুইট বার্তায় বলেছেন, ওই দেশগুলোর কর্মকর্তারা এটা অবহিত আছেন যে, পরমাণু সমঝোতা সবাই পুরোপুরি মেনে চললে ইরানও এর প্রতি অটল থাকবে।

যাইহোক, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বর্তমানে ইসরাইল ও সৌদি আরবের সহযোগিতায় ইরানের ইসলামি শাসন ব্যবস্থাকে উৎখাত করার ষড়যন্ত্র করছেন। তার এ আচরণ আন্তর্জাতিক সমাজের দৃষ্টিতে গ্রহণযোগ্য নয় এবং আমেরিকা নিজের ইচ্ছা সবসময়ের জন্য অন্যদের ওপর চাপিয়ে দিতে পারবে না।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫