ঢাকা, বুধবার,২৫ এপ্রিল ২০১৮

প্রিয়জন

প্রি য় জ ন প ঙ্ ক্তি মা লা

১৩ জানুয়ারি ২০১৮,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

আবুল খায়ের
কল্পনাবিলাস

আমি জানি তুমি ইচ্ছে করলেও
আসতে পারবে না ফিরে,
ইচ্ছেগুলো ডানা মেলে যতই উড়ে বেড়ায়
ফিরে আসে বারে বারে।
আমি চেয়ে থাকি,
তোমার চলে যাওয়ার
সে শেষ দৃশ্য অবতারণার দিকে
আজো আমায় কাঁদায়।
মনের অলিগলি
চোরাবালি, মরীচিকা দর্শনÑ
মনের অজান্তে ভেসে ওঠে এখনো
অবুজ মনের প্যানোরমায়।
ভুলে থাকি কী করে বলো?
কল্পনা যদি সত্যি হয়ে
তুমি ফিরে এলে
কোনো এক হেমন্তের সন্ধ্যায়।

সবুজ আহমেদ
সরীসৃপ দুঃখ

দৃষ্টির আড়াল হলে জলছাপে ভেজে নয়ন
ছেঁড়া কথার পঙ্ক্তি জড়ো হয় পুনর্জন্মের জন্য!
হাজারো প্রশ্ন নিজেকে নিজে করে
কত রাঙা কথার তালিকা তৈরি করে স্বপন।
ওগো প্রিয়জন হৃদয় জমিনে দিয়ে দাগ
নদীর শীতল জলে শরীর ডুবিয়ে
লাল আগুনে পুড়িয়ে ক্ষত মন
সরীসৃপ দুঃখ কি মুছে ফেলা যায়?


খাদিজাতুল কোবরা উমামা
ঠুকরে খাওয়া স্মৃতি

বাইরে ঝিরঝির ভেজা হাওয়া আর
টিনের চালে ঝমঝম বৃষ্টি,
উদাসী মনের ভেতর চেপে থাকা
শত অভিমান আর কষ্টগুলো যদি
কচুরিপানার পানির মতো
ধুয়ে দিত!
মনে পড়ে দাদার কথা
‘জানিস খুকি এই গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি আর
প্রেমস্পর্শী শিহরিত বাতাস ঘেরা
চমৎকার দিনে,
এক ঝাঁপটা দুষ্ট বাতাস এসে জানিয়ে দিলো
এ বন্ধন ভালোবাসার বন্ধন
এ বন্ধন স্মৃতির অ্যালবামে থাকা বন্ধন’
আজো সেই ঝিরঝির বৃষ্টি...
সামনে রয়েছে ধূমায়িত চায়ের কাপ
স্মৃতির অ্যালবামে তোমাদের ভালোবাসার বন্ধন
নেই শুধু জোড়া সেই পাখিরা।

 


মো: রবিউল হক (সুমন)
বিদায়

শীতের শুরু,
চার দিকে কনকনে ঠাণ্ডা হাওয়া।
প্রকৃতি সেজেছে নীরবতায়
মানুষের কোলাহল নেই
আকাশের বুকে নেই চাঁদের আলো,
ঘনকালো অন্ধকারে ছেঁয়ে গেছে চার পাশ
মাঝে মাঝে একটা শব্দ
ভেসে আসছে
মনে হয় এটা কোনো
রাতের নিশাচর শেয়ালের শব্দ;
কিংবা নিঝুম রাতের প্রহরী
হুতোম পেঁচার।
মনের ভয়টা হঠাৎ জেগে ওঠে
কান পেতে শুনলাম
এটা আমার বেদনার্ত হৃদয়ের
হাহাকারের শব্দ।
একটা না পাওয়ার ব্যথা
ঠুকরে ঠুকরে হৃদয়টাকে
ক্ষতবিক্ষত করছে,
হৃদয়ের এই নির্মম আর্তনাদে
শোকার্ত বাতাস সান্ত¡না দেয়।
কিন্তু আপনজন ঘুমিয়ে আছে
অনাবিল প্রশান্তির ঘুমে,
স্বপ্নপুরীর এক মায়াবী স্বপ্নে
আচ্ছন্ন হয়ে আছে,
নেই কোনো অনুভূতি
এটা কি নিষ্ঠুর আচরণ, ছলনা
নাকি অভিমানÑ
জীবনের অন্তীম পর্যায়ে
অপেক্ষায় আছি সে যদি আসে।
শেষ বিদায়ের সময় এসে
যদি বলে ভালোবাসি তোমায়।
ফিরে এসো, ফিরে এসো তুমি
আমি ভালোবাসি তোমাকে।

 

নাফছি জাহান
অন্তঃসারশূন্য জীবন

অন্তঃসারশূন্য জীবন আমার,
এ জীবনে ঐশ্বর্যের কোনো ছোঁয়া নেই
ছোট্ট এক কুঁড়েঘর,
কুঁড়েঘরের এক কোণে ছোট্ট এক মাচা,
এ মাচায় রাত হলে জড়োসড়ো হয়ে লুটিয়ে পড়ি
আর একগুচ্ছ স্বপ্নচোখে
পাড়ি জমাই গভীর ঘুমে।
মাটির একটি উনুন আছে
কুঁড়েঘরের পাশে
একটি থালা, ছোট এক বাটি, ক্ষুদ্র এক চামচ
আর পানির এক ঘটির অবস্থান,
এ জীবনে বেঁচে থাকার জন্য
এর বেশি কিছু নেই আমার।
এ দরিদ্র জীবনে তোমায় আহ্বান করার
সাধ্য কোথায় খুঁজে পাই?
তোমার তরে হাজারো ভালোবাসার
সুবাস বিলিয়ে দিতে পারব বটে,
কিন্তু ভালোবাসা দিয়ে কি আর জীবন চলবে
তোমায় কষ্ট দেয়ার সামান্যতম
ক্ষমতা নেই আমার
তাই ভালোবাসার আহ্বানে
এ জীবনে ডাকব না তোমায়,
এ শূন্য জীবনে তোমার উপস্থিতি
নাই বা কামনা করলাম।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫