ads

ঢাকা, শনিবার,২১ এপ্রিল ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা

বিক্ষোভে উত্তাল তিউনিসিয়া : সংঘর্ষে আহত অনেকে, গ্রেফতার ২০০

এএফপি

১১ জানুয়ারি ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ১২:৫৪ | আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ১৩:২৬


প্রিন্ট
বিক্ষোভে উত্তাল তিউনিসিয়া

বিক্ষোভে উত্তাল তিউনিসিয়া

তিউনিসিয়ায় পুলিশের সাথে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ বেধেছে। এতে অনেক পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ সময় দুই শতাধিক লোককে গ্রেফতার করা হয়েছে। সরকারের ব্যয় সঙ্কোচন নীতির কারণে ক্ষুদ্ধ জনগণ রাস্তায় নেমে এলে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় একথা জানিয়েছে।

আরব বসন্ত আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ায় ২০১১ সালে উত্তর আফ্রিকার এ দেশে তুলনামূলকভাবে স্বাভাবিক গণতান্ত্রিক পরিবর্তন হলেও সাত বছর পর দেশটির ব্যাপক অর্থনৈতিক মন্দাকে কেন্দ্র করে এ আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে।

এ বছরের শুরুতে সীমিত নতুন বাজেট কার্যকর করার পর মূল্য-সংযোজন ও সামাজিক কর বাড়ানোকে কেন্দ্র করে তিউনিসিয়ায় অস্থিরতা ছড়িয়ে পড়ে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র খলিফা চিবানি স্থানীয় রেডিওকে বলেন, মঙ্গলবার ও বুধবার দেশব্যাপী সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশ বাহিনীর ৪৯ জন সদস্য আহত হয়েছেন এবং এ সময় ২০৬ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, এসময় বিভিন্ন স্থাপনায় হামলার কারণে অনেক সম্পদের ক্ষতি হয়েছে।

তিউনিসিয়ায় বিক্ষোভে নিহত ১

সরকারের ব্যয় কমানোর কঠোর নীতির প্রতিবাদে তিউনিসিয়ায় বিক্ষোভ চলাকালে ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা তিউনিস আফ্রিকা প্রেস (টপ) খবরটি নিশ্চিত করেছে। টপের খবরে বলা হয়েছে, রাজধানী তিউনিস থেকে ৪০ কিলোমিটার পশ্চিমের তিব্বতে এই বিক্ষোভ হয়। এতে আরো পাঁচ ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

সোমবার সন্ধ্যায় তিউনিসিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে বলা হয়েছে, স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর ওই ব্যক্তি মারা যান। বিবৃতিতে ফরেনসিক চিকিৎসকের উদ্ধৃৃতি দিয়ে মৃত্যুর কারণ প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, ‘শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যাজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়েছে, সহিংসতার কোনো চিহ্ন তার শরীরে ছিল না।’

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে চাউর হয়েছিল যে, সোমবার সন্ধ্যায় নিরাপত্তা বাহিনীর গাড়ির আঘাতে এই মৃত্যু ঘটেছে। তবে মন্ত্রণালয় এই দাবি প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, সম্ভবত টিয়ার গ্যাসে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে লোকটি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। ২০১৮ সালের অর্থবছরের বাজেটে সরকারের কর বাড়ানোর নতুন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সোমবার তিউনিসিয়ার বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ হয়েছে।

১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর বাজেটে জ্বালানির দাম বাড়ানো হয়েছে এবং গৃহায়ন সংক্রান্ত কর আরোপ করা হয়েছে। তিউনিসিয়ার কেন্দ্রীয় অঞ্চল সিদি বাউজিদে সরকারের এ পদক্ষেপের প্রতিবাদে সোমবার দ্বিতীয় দিনের মতো রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তিউনিসিয়াবাসী। এই বাজেটের বিরুদ্ধে আগামী দিনগুলোতে আরো প্রতিবাদ-বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ছয় বছর আগে ২০১১ সালে এক গণ-অভ্যুত্থানে দেশটির দীর্ঘদিনের স্বৈরশাসক জয়নাল আবেদীন বেন আলী ক্ষমতাচ্যুত হন। অন্যান্য আরব দেশে সহিংসতামুক্ত বিক্ষোভের মডেলে পরিণত হয় তিউনিসিয়া সে সময়ে। এ ঘটনার পর মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে আরব বসন্তের সূচনা হয়।

রাজনৈতিক অন্তর্দ্বন্দ্ব ও সামাজিক উত্তেজনা সৃষ্টির ব্যাপারে সরকারের উদ্বেগের কারণে একের পর এক সরকার অর্থনৈতিক সংস্কার কার্যক্রম গ্রহণ বিলম্বিত হয়। এমনই পরিস্থিতিতে ২০১১ সালের গণ-অভ্যুত্থানের সৃষ্টি হয়। (১০ জানুয়ারি প্রকাশিত সংবাদ)

 

ads

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫