ঢাকা, বুধবার,২৪ জানুয়ারি ২০১৮

থেরাপি

বাণিজ্যমেলায় আগত ক্রেতা সাধারণের জন্য সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি

মোহাম্মদ মাঈন উদ্দিন

১১ জানুয়ারি ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

মেলায় ঘুরছেন? ঘোরেন। ঘোরাঘুরিতে বাধা দেয়ার মতো মনোবাসনা আমাদের নেই। কারণ আমরা বিশ্বাস করি ঘোরাঘুরির পূর্ণ স্বাধীনতা আপনার আছে। তবে ঘোরাঘুরির সময় যেন আপনার স্যান্ডেলের ধুলায় পেছনের ক্রেতাদের চোখের বারোটা না বাজে সে দিকে বিশেষ নজর দেবেন।
গার্লফ্রেন্ডকে মনের মতো পোশাক কিনে দেবেন। সেটা দামি না সস্তা হবে তা আপনার নিজস্ব ব্যাপার। আমরা এখানে নাক গলাতে চাই না। নাক না গলালেও একটি কথা বলে দেয়া দরকার, আপনার গার্লফ্রেন্ডকে গিফট দিয়ে পকেট খালি করবেন আর বাসায় গিয়ে বলবেন, বাণিজ্যমেলায় আপনার পকেট মার হয়েছে। বাণিজ্যমেলার এমন অপবাদ দেয়া থেকে বিরত থাকুন। কারণ বাণিজ্যমেলার অপবাদ সহ্য করা হবে না।
কথা ছিল আপনার বউ একা বাণিজ্যমেলায় আসবে। এখন দেখছেন বউয়ের সাথে দুই শ্যালিকাও ঘুরঘুর করছে। বউ-শ্যালিকাদের মন ভরাতে আপনার পকেটে টাকা উঠল, না পকেট থেকে টাকা নামলÑ এটা আমাদের দেখার বিষয় নয়। আমাদের কথা হলো, বাণিজ্যমেলার কারণে আপনার পকেটের রক্তশূন্যতা দেখা দিয়েছেÑ এমন কথা বন্ধুবান্ধবদের সাথে শেয়ার করে বাণিজ্যমেলার দুর্নাম করবেন না।
আপনার বউকে কিছু কিনে খুশি করাবেন কি না কিনে খুশি করাবেনÑ এটা একান্তই আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমরা আপনার প্রাইভেসিতে আঘাত করতে চাই না। বাণিজ্যমেলায় এসে পকেট থেকে টাকা খোয়ানোর কারণে মাথা গরম করে আপনার বউয়ের সাথে ঝগড়া বিবাদ সৃষ্টি করবেন না। কারণ এরূপ ঝগড়া মিটানোর মতো পর্যাপ্ত জনবল আমাদের নেই।
বাণিজ্যমেলায় কেনাকাটা করার জন্য আপনাকে স্বাগতম। জি হ্যাঁ, কেনাকাটা বলতে পকেট কাটার কথা; কিন্তু বলা হয়নি। পকেট কাটার মতো বাণিজ্য করতে চাইলে তা আপনার নিজ দায়িত্বে করতে হবে। পকেট কেটে ধরা খেলে মার খাবেন ফ্রিÑ কথাটা আপনাকে বলে রাখলুম কিন্তু।
সন্ধ্যার পর ওভার স্মার্টনেস দেখানোর জন্য চোখে সানগ্লাস পরে বাণিজ্যমেলায় না আসাই ভালো। তারপরও যদি আসেন, আমাদের কিছু বলার নেই। আমাদের কথা হলো, কোনো মেয়ের সাথে ধাক্কা খাওয়ার অপরাধে গণধোলাই খেয়ে আপনার প্যান্ট-শার্ট ছিঁড়ে গেলে সেই ছেঁড়া প্যান্ট-শার্ট নিয়েই বাসায় ফিরতে হবে। কর্তৃপক্ষ আপনাকে নতুন প্যান্ট-শার্ট সরবরাহ করবে না। কথাটা মনে রাইখেন কইলাম।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫