ঢাকা, বুধবার,২৪ জানুয়ারি ২০১৮

সাতরঙ

সময়ের কনে সাজ : বিশেষ আয়োজন

০৯ জানুয়ারি ২০১৮,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

অন্য সাজের মতো কনের সাজেও প্রতি বছর আসে পরিবর্তন। হালকা সাজই এখন কনেরা বেশি পছন্দ করছেন। তবে হালকা সাজ মানে কিন্তু মেকআপের সাথে কম্প্রোমাইজ করা নয়Ñ জানাচ্ছেন পারসোনা হেয়ার অ্যান্ড বিউটি লিমিটিডের পরিচালক নুজহাত খান

সাজ উৎসবের অংশ, যা বিয়েতে দেয় বাড়তি উৎসবমুখর আমেজ। তাই কনের সাজ নিয়ে চর্চা চলে বিয়ে শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত। এখনকার কনেরা বেশ সচেতন বিয়ের সাজ নিয়ে। যার প্রস্তুতি শুরু হয়ে যায় বিয়ের মাসখানেক আগে থেকেই। ত্বকচর্চার মধ্য দিয়ে।
কনের মেকআপ কেমন হবে, সেটা এখন বেশির ভাগ কনে আগে থেকেই ঠিক করে রাখেন। কয়েক বছর ধরেই আমাদের ব্রাইডাল মেকআপ ট্রেন্ডে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। ফ্যাশন ম্যাগাজিন, বিউটি সাইট কিংবা কনেদের মানসিকতার পরিবর্তনÑ কারণ যা-ই হোক না কেন, আন্তর্জাতিক ব্রাইডাল ট্রেন্ডগুলো প্রবেশ করেছে দেশীয় বিউটি সেক্টরে। ফলে অতিরঞ্জিত মেকআপের প্রভাব কমে গেছে একেবারেই। খেয়াল রাখা হয়, যেন ভারী মেকআপের আড়ালে মূল মানুষটি হারিয়ে না যায়। কনেকে যেন তার মতোই দেখায়। আর তাই এ বছরও ট্রেন্ডের শীর্ষে থাকবে মিনিম্যালিস্টিক কিংবা ন্যাচারাল ব্রাইডাল লুক। এই নো মেকআপ লুকে কনের আসল চেহারাকেই আরো বেশি নজরকাড়া করে তোলার চেষ্টা করা হয়। উজ্জ্বল, শিশিরসিক্ত করে তোলা হয় ত্বককে। এই লুকের সাথে মিলিয়ে ন্যাচারাল শেডের ব্লাশঅন ব্যবহার করা হবে ত্বকে, যা চেহারায় দেবে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা। একদম হালকা রঙসহ ন্যুড লিপস্টিকে সম্পূর্ণ করা হবে নো মেকআপ লুক। গত বছরের মতো এবারেও ব্রাইডাল মেকআপে জনপ্রিয় থাকবে শিমারের ব্যবহার। বছরজুড়ে ব্যবহৃত হবে হাইলাইটার। চিকবোন, চোখের ভেতরের কোণে আর ব্রাওয়ের নিচে। বউয়ের চোখের মেকআপে বোল্ড ব্রাওয়ের ট্রেন্ড থাকবে এ বছর। বাড়বে ব্রাউন আইশ্যাডো আর লাইনারের ব্যবহার। সাথে থাকচ্ছে শিমারি আর মেটালিক শ্যাডোগুলোর আধিপত্য। এবার চোখের সাজে ম্যাচিংয়ের বদলে কমপ্লিমেন্টারি অর্থাৎ পুরো সাজের সাথে মানাচ্ছে এমন আইশ্যাডোগুলোর ব্যবহার হচ্ছে। কনের ঠোঁটে কখনো শোভা পাচ্ছে প্যাস্টেল শেডের হালকা রঙগুলো, তো কখনো ডিপ রুবি কিংবা রাশান রেডে তৈরি হবে স্টেটমেন্ট লুক। তবে ঠোঁটের সাজে পিঙ্কের আধিপত্য দেখা যাচ্ছে। সফট পিঙ্ক থেকে কোরালÑ সব কিছুতেই স্বচ্ছন্দ থাকবে এ বছরের কনেরা।
চুলের সাজে
নতুন কোনো স্টাইলে চুল কাটা কিংবা কালার করতে চাইলে অন্তত ১৫ দিন আগে তা সেরে নিতে হবে। এতে করে কনের সাথে তা কতটা মানানসই, তা বোঝার জন্য পর্যাপ্ত সময় পাওয়া যায়।
কনের হেয়ারস্টাইল কী হবে, সে ক্ষেত্রে তাকেই প্রাধান্য দেয়া উচিত। একদম সনাতন, না সময়ের ধারা অনুসরণ করা হবে, তা না হয় কনেই বেছে নিক। কিন্তু সেটা যেন তার চেহারা, পোশাক আর পুরো সাজের সাথে মানানসই হয়, সে দিকে খেয়াল রাখা উচিত।
একটা সময় ছিল যখন বউয়ের চুল বাঁধায় মাথার মাঝ বরাবর সটান সোজা সিঁথি করে সব চুল পেছনে টান টান করে বাঁধার চলই জনপ্রিয় ছিল। সাথে বিভিন্ন অনুষঙ্গ যোগ করে তাকে করে তোলা হতো আরো আকর্ষণীয়। নানাভাবে খোঁপা করার চল ছিল বিয়েতে। সেই বৈভবে এখনো ভাটা পড়েনি। তবে স্টাইলিংয়ে ভিন্নতা এসেছে। চুলে মেসি, টুইস্টেড, বিহাইভ, লো লুপড কিংবা বাবল স্টাইল বানের ট্রেন্ড জনপ্রিয়। সাথে পুরো খোঁপাটা ফুল দিয়ে মুড়ে দেয়া হয়। কনের চুলের সাজে বেণীটাও অনেকে বেছে নিচ্ছেন। সামনের দিকের চুল ফাঁপিয়ে নিয়ে তারপর করা হবে বেণী। এ ক্ষেত্রে বোহো ফিশটেইল, ফ্রেঞ্চ, ডাচ স্টাইল ব্রেইড থাকবে শীর্ষে। এতে জড়িয়ে দেয়া হয় কাঁচা ফুল আর লেসের লহর। বউ বলে যে তাকে চুল বাঁধতে হবে, সেই রেওয়াজ প্রায় নেই বললেই চলে। কারণ, আন্তর্জাতিকতায় অনুপ্রাণিত হয়ে অনেক কনেই এখন চুলের স্বাভাবিকতা বজায় রেখেই চুলের সাজ সেরে নিচ্ছেন। খুব বেশি ফুলিয়ে কিংবা অনেক বেশি স্প্রের ব্যবহার অনেক কনেই এখন এড়িয়ে যান। বরং বেশির ভাগ ব্রাইড এখন চুলের খোলা স্টাইলগুলো পছন্দ করেন। সামনে ক্রিম্পড স্টাইলে সেট করে ব্লো, স্ট্রেইট কিংবা সাইড কার্ল করে এক পাশে ফেলে রাখা ব্রাইড হেয়ারস্টাইলিং এখন অনেক জনপ্রিয়। অনেকে তো পুরো চুলটাই ক্রিম্পড করে নেন এখন। হেয়ার অ্যাকসেসরিজের ব্যবহারও বেড়েছে আগের থেকে অনেক বেশি।সাইড সিঁথি কিংবা ব্যাক কম্বÑ সব ধরনের হেয়ারস্টাইলের সাথে সুন্দর সেট করে নেয়া হচ্ছে টিকলি। বিভিন্ন ধরনের পাথর আর মুক্তা দিয়ে তৈরি হেডপিসও আগ্রহের সাথে মাথায় তুলে নিচ্ছেন কনেরা। এগুলো কনেকে পরিপাটি লুক দেয়, দেখায় গর্জিয়াস।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫