ঢাকা, বুধবার,১৭ জানুয়ারি ২০১৮

আরো খবর

সোনারগাঁওয়ে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে ঘরে তালাবদ্ধ করে হত্যার চেষ্টা

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা

০৪ জানুয়ারি ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০০:২৭


প্রিন্ট
নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে যৌতুকের দাবিতে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে আহত করে ঘরে তালাবদ্ধ করে রেখে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের বাইশটেকী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত গৃহবধূ হাফসা আক্তারকে উদ্ধার করে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর পিতা বাদি হয়ে সোনারগাঁও থানায় একটি অভিযোগ করেন।
লিখিত অভিযোগে উল্লেখ্য করা হয়েছে, উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের আন্দার মানিক গ্রামের আবু সাইদের মেয়ে হাফসা আক্তারের সঙ্গে তিন বছর আগে একই ইউনিয়নের বাইশটেকী গ্রামের হজরত আলীর ছেলে সুমন মিয়ার বিয়ে হয়। সোহানা নামে এক বছরের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে তাদের। বিয়ের পর থেকে স্বামী সুমন মিয়া ও তার মা আকলিমা বেগম, ভাই সবুজ মিয়া যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময়ে গৃহবধূর ওপর শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছেন। ইতোমধ্যে যৌতুক বাবদ দুই লাখ ২০ হাজার টাকা আদায় করেছেন তারা। সম্প্রতি ওই গৃহবধূর পরিবারের কাছে এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে সুমন ও তার পরিবার। যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় গতকাল সুমন মিয়া, তার মা আকলিমা বেগম ও ভাই সবুজ মিয়া গৃহবধূ হাফসা বেগমকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে ঘরের ভেতর তালাবদ্ধ করে রাখেন। খবর পেয়ে হাফসার বাবা আবু সাইদ ও তার পরিবারের লোকজন ঘরের তালা ভেঙে তার মেয়ে হাফসা বেগমকে উদ্ধার করে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক লায়লা ইয়াসমিন জানান, আহত গৃহবধূর বাম চোখ, গাল ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করায় তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। তাকে সুস্থ করার জন্য চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
আহত গৃহবধূর বাবা আবু সাইদ জানান, আমার মেয়ের জামাই সুমন মিয়া, তার মা আকলিমা বেগম ও তার ভাই সবুজ মিয়া বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য আমার মেয়েকে মারধরসহ বিভিন্নভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে। গতকাল বুধবার যৌতুকের টাকা না পেয়ে আমার মেয়েকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন তারা। আমি এর ন্যায়বিচার চাই।
সোনারগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) ওবায়েদুল হক জানান, এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫