ঢাকা, বুধবার,১৭ জানুয়ারি ২০১৮

শেষের পাতা

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় আসামি পক্ষে যুক্তিতর্ক অব্যাহত

আদালত প্রতিবেদক

০৪ জানুয়ারি ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলায় আসামি পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন অব্যাহত রয়েছে। গতকাল মামলার পলাতক আসামি হানিফ পরিবহনের মালিক হানিফের পক্ষে রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী চৈতন্যচন্দ্র হালদার তার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ করেন। ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশে স্থাপিত ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নুর উদ্দিনের কোর্টে এ মামলার শুনানি হচ্ছে। আসামি হানিফের পর পলাতক আসামি কায়কোবাদ, হারিছ উদ্দিন চৌধুরী, আনিসুর রহমান আনিছ ও খলিলুর রহমানের পক্ষে রাষ্ট্র নিয়োজিত আইনজীবীরা যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করেন।
গতকাল আসামি হানিফের পক্ষে তার আইনজীবী চৈতন্যচন্দ্র হালদার আদালতে বলেন, এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোনো প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষীর জবানবন্দী রেকর্ড করতে পারেননি। কোনো সাক্ষী হানিফের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলেননি। উচ্চ আদালতের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এক আসামির দেয়া জবানবন্দী অন্য আসামির ক্ষেত্রে যাবে না। এ মামলায় প্রথম যে চার্জশিট দেয়া হয়েছিল সে চার্জশিটে হানিফ পরিবহনের মালিক হানিফের নাম আসেনি। তবে মুফতি হান্নানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীর আলোকে কোনো আসামিকে সাজা দেয়া যায় না। আসামি সম্পূর্ণ নির্দোষ। তিনি খালাস পাওয়ার হকদার।
হানিফের পক্ষে যুক্তিতর্ক শেষ হওয়ার পর পলাতক আসামি কায়কোবাদের পক্ষে আইনজীবী আশরাফ উল আলম আদালতে বলেন, রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করার জন্য মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কায়কোবাদকে এ মামলায় জড়িত করেছেন। আসামি একজন সংসদ সদস্য হিসেবে স্পিকারের অনুমতি নিয়ে বিদেশ গেছেন। সে ক্ষেত্রে তদন্তকারী কর্মকর্তা তাকে পলাতক দেখিয়ে আসামি করেছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা এ ক্ষেত্রে সঠিক কাজ করেননি। কোনো সাক্ষী তাদের জবানবন্দীতে আসামির নাম উল্লেখ করেননি। মুফতি হান্নানসহ আসামি আব্দুস সালাম, জাহাঙ্গীর আলম বদর যে জবানবন্দি দিয়েছেন তাতে কায়কোবাদের বিষয়ে কিছু বলেননি।
বলা হয়, কায়োকাবাদ তারেক রহমানের সাথে তাদেরকে পরিচয় করিয়ে দেন। পরিচয় করিয়ে দেয়ার কথাটির সম্পর্কে কোনো প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দেননি। যে ষড়যন্ত্রের কথা বলা হয়েছে তা প্রমাণ করতে রাষ্ট্রপক্ষ ব্যর্থ হয়েছে। এরপর আসামি হারিছ চৌধুরীর পক্ষে অ্যাডভোকেট তৈয়ব যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, হারিছ চৌধুরীকে রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করার জন্য এ মামলায় সম্পৃক্ত করেছে। আসামি আনিসুর রহমানের পক্ষে অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন ও আসামি খলিলের পক্ষে আইনজীবী খলিলুরর রহমান যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। এরপর আদালত বাকি আসামিদের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য আগামী ৮, ৯ ও ১০ জানুয়ারি পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন।
২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জনসভায় গ্রেনেড হামলায় আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ও মরহুম রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের স্ত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জন নিহত হন। গ্রেনেডের স্পিøন্টারের আঘাতে আহত হন কয়েক শ’ মানুষ। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেদিন অল্পের জন্য বেঁচে যান।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫