যুক্তরাষ্ট্রকে ইঙ্গিত করে নওয়াজ চক্রান্তের কথা ফাঁস করে দেবো

ডন

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ বলেছেন, নাইন ইলেভেনের পর বেসামরিক সরকার নিজেদেরকে বিকিয়ে দিতে রাজি হতো না বলেই সেই সরকারকে সরিয়ে দেয়া হয়। তিনি হুমকি দেন, অপপ্রচার বন্ধ না হলে গত চার বছর ধরে চলা চক্রান্তের কথা তিনি ফাঁস করে দেবেন। সৌদি আরব থেকে ফিরে গতকাল বুধবার ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ২০০১ সালে পাকিস্তানে একজন একনায়ক না হয়ে একটি গণতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতায় থাকলে তারা কখনোই যুক্তরাষ্ট্রের কাছে নিজেদের মূল্যবোধ কিংবা আত্মসম্মান বিকিয়ে দিত না। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্যের শুরুতে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ইসলামাবাদকে যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক সহায়তা বন্ধের হুমকির পরোয়া করেন না তিনি।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইংরেজি নববর্ষের শুরুতে পাকিস্তানের সমালোচনা করে টুইট করায় এবং পাকিস্তানকে সামরিক খাতে সাড়ে ২৫ কোটি ডলার সহায়তা বন্ধের ঘোষণা দেয়ায় এর পর থেকে দুই দেশের মধ্যে বাগযুদ্ধ চলছে। ট্রাম্পের টুইট পাকিস্তানিদের জন্য উদ্বেগের বিষয়। তারা এটিতে পাকিস্তানের জন্য অসম্মানজনক বলে বিবেচনা করছে। পাকিস্তানের সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী মার্কিন প্রেসিডেন্টের টুইটকে অসার ও দুঃখজনক আখ্যায়িত করে বলেন, একজন রাষ্ট্রপ্রধানের উচিত মিত্ররাষ্ট্রের সম্পর্কে কথা বলার সময় কূটনৈতিক নীতিমালার কথা স্মরণ রাখা। নওয়াজ বলেন, (মার্কিন সহায়তার ব্যাপারে ) আমাদের আতঙ্কিত হওয়া উচিত নয়। তিনি বলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রী শহীদ খাকান আব্বাসিকে এমন একটি পরিকল্পনা তৈরির পরামর্শ দেবেন যাতে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তার কোনো প্রয়োজন না পড়ে এবং আমাদের সম্মানের ওপর আঘাত হানা না হয়। তিনি আরো বলেন, জোটের তহবিলকে সহায়তা বলা উচিত নয়। আমাদের এমন তহবিলের দরকারও নেই এবং এর বিনিময়ে আমাদের সমর্থন চাওয়াও ঠিক নয়। নওয়াজ বলেন, আমরা ২০১৩ সালে ক্ষমতায় এসেই পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদ নির্মূলের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিয়েছিলাম। অপারেশন জর্ব-ই-আজম সন্ত্রাসীদের কোমর ভেঙে দিয়েছিল। তিনি জোর দিয়ে বলেন, এটা ২০০১ সাল নয়। একজন একনায়ক দেশ শাসন করছেন না যে একটি টেলিফোনে আমরা ভীত হয়ে যাবো।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.