ঢাকা, শনিবার,২০ জানুয়ারি ২০১৮

ক্রীড়া দিগন্ত

বাংলাদেশকেই ফেবারিট দেখছেন হ্যালসল

ক্রীড়া প্রতিবেদক

০৪ জানুয়ারি ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

মাশরাফি-সাকিবদের নিয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছেন রিচার্ড হ্যালসল। হেড কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহে যে কাজটা করতেন, হ্যালসল সেটাই পালন করবেন আপতকালীন সময়ে। এতে মোটেও আপত্তি নেই। বরং ক্রিকেটারদের কাছ থেকে এ সময় আরো ভালো কিছু প্রত্যাশা করছেন হাতুরাসিংহের সাবেক এ সহকারী। হেড কোচ নেই এটা কোনো দলের জন্য দুর্বল একটা দিক। কিন্তু হ্যালসল এটা কাটিয়ে উঠতে চান। খেলোয়াড়দের মানসিকভাবে চাঙ্গা করতে চান। আসন্ন তিন জাতি টুর্নামেন্টে প্রতিপক্ষ দুই দলের মধ্যে শ্রীলঙ্কাকেই তিনি এগিয়ে রাখছেন প্রধান প্রতিপক্ষ হিসেবে। কিন্তু ফেবারিট কে? তিন জাতি ক্রিকেটে বাংলাদেশকেই তিনি এগিয়ে রাখছেন। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই বাংলাদেশ ফেবারিট থাকবে’। তিনি বলেন, ‘আমরা এমন এক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলছি। সম্প্রতি ভারতে যাদের কঠিন একটা সময় গিয়েছে। আমরা জানি ওরা ভালো দল। বেশ কিছু ভালো ক্রিকেটারও আছে। কিন্তু আমরা খেলব হোমে। তথা মিরপুরে। ইংল্যান্ড ছাড়া গত তিন বছরে এখানে কেউ হারাতে পারেনি আমাদের।’ ফলে ফেবারিট প্রসঙ্গে আর কোনো দ্বিধাদ্বন্দ্ব দেখছেন না তিনি। ঘুরে ফিরে শ্রীলঙ্কার প্রসঙ্গ উঠলেই চলে আসে হাতুরাসিংহের কথা। কয়েক দিন আগেও যিনি ছিলেন বাংলাদেশের কোচ। হঠাৎ সে এখন প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কার দায়িত্বে। তবে জাতীয় দলের এ সহকারী এটা তেমন কোনো সমস্যা হিসেবে মনে করেন না। তিনি বলেন, ‘বড় ক্রিকেটারররা চলে যাওয়ার তুলনায় কোচ চলে যাওয়া কম গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের কোনো বড় ক্রিকেটার চলে যায়নি। তরুণরাও ছেড়ে যায়নি। কোচ চলে গেছেন মাত্র।’ বাংলাদেশ দল এখন অনেক গোছানো। দক্ষিণ আফ্রিকায় বাজে পারফরমেন্স করলেও হোমে বেশ কিছু দিন থেকেই বাংলাদেশ অনেক ভালো পারফরমেন্স করে চলছে। বিশেষ করে হোম কন্ডিশনে অনেক গোছানো ও পরীক্ষিত এক দল টিম বাংলাদেশ। হ্যালসল সেটাই বলতে চান। তিনি বলেন, ‘শ্রীলঙ্কার ব্যাপারটি ভিন্ন। ওরা বেশ ক’জন ক্রিকেটারকের পাচ্ছে না। মালিঙ্গার মতো ক্রিকেটারও নির্বাচিত হয়নি। আমাদের তো তেমন কোনো সমস্যা নেই। আমাদের প্রতিটা ডিপার্টমেন্টেই সবই পরীক্ষিত ও ওই স্থানের জন্য যথার্থ দায়িত্ব পালন করছেন।’
আসন্ন সিরিজে জাতীয় দলের মূল কোচের দায়িত্ব পালন করতে যাওয়া এ কোচ মনে করেন, হাতুরাসিংহে দলে থাকলে অনেকেই গতানুগতিকই থাকতেন। কিন্তু তিনি চলে যাওয়ায় এখন একটা চ্যালেঞ্জ দেখছেন ভেতরে ভেতরে অনেকেই। সিনিয়র ক্রিকেটাররাও তো বটেই। তিনি বলেন, ‘দলের মূল হলো সিনিয়র ক্রিকেটাররাই। তারা যথার্থ দায়িত্ব পালন করবেন এবং তরুণদের উৎসাহিত করবেন।’
তিনি দলের ক্রিকেটারদের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘বাংলাদেশ দল অনেক গোছানো ও দারুণ একটা দল। বিশেষ করে দলে বেশ কিছু অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রয়েছেন। এবং যারা পারফরম করছেন। দুই অধিনায়ক মাশরাফি ও সাকিবের সাথে রয়েছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহীম, তামিম। ওরা এখন আরো বেশি দায়িত্বশীল হবে দলের সাফল্য নিয়ে আসার ব্যাপারে। এটা তো সত্যি যে, বয়স বাড়লে বেশি দায়িত্বশীল হয়। এটা রোমাঞ্চকর একটা ব্যাপারও।’
বিসিবি যে দায়িত্ব তাকে দিয়েছেন এটাকে তিনি বাড়তি তেমন বেশি কিছু দেখছেন না। হ্যালসল বলেন, ‘এটা খুব আলাদা কিছু তা নয়। কোচিংয়ে আমি যা করে আসছি সেগুলোই করে যাব। সাপোর্ট স্টাফদের কাজ হলো ক্রিকেটাররা যাতে ভালো পারফরমেন্স করতে পারে সেভাবে গড়ে তোলা। ফলে নামের পাশে যা-ই থাকুক না কেন মূল কাজ কিন্তু একই রকম থাকছে।’ হাতুরাসিংহে চলে যাওয়াটা অনেক দর্শকদেরও মনঃুন্ন করেছে। সেটাও মাথায় রয়েছে এ কোচের। তিনি বলেন, ‘আমার কাজই হবে ক্রিকেটাররা যাতে ভালো পারফরমেন্স করে জয় পেতে পারে। ওই কাজটা করতে যা যা প্রয়োজন সে সাপোর্র্ট দানে আমি আপ্রাণ চেষ্টা করে যাব।’

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫