ঢাকা, বুধবার,১৭ জানুয়ারি ২০১৮

ক্রীড়া দিগন্ত

গোল্ডকোস্টে যাচ্ছে ভারোত্তোলন দল

ক্রীড়া প্রতিবেদক

০৪ জানুয়ারি ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

অতি উৎসাহ নিয়ে ভারোত্তোলন ফেডারেশনের নির্বাচিত কমিটি ভেঙে দেয়া। এরপর গঠিত অ্যাডহক কমিটিও বিলুপ্ত করা। অবশ্য পরে নির্বাচন না দিয়ে ফের নতুন অ্যাডহক কমিটিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। ফলে আন্তর্জাতিক ভারোত্তোলন ফেডারেশন কর্তৃক নিষেধাজ্ঞা বহালই থাকল। এই নিষেধাজ্ঞার কারণে আন্তর্জাতিক ও এশিয়ান ভারোত্তোলন ফেডারেশন স্বীকৃত কোনো আসরেই খেলার সুযোগ হচ্ছে না বাংলাদেশী ভারোত্তোলন দলের। প্রথমে শোন গিয়েছিল এপ্রিলের গোল্ডকোস্ট কমনওয়েলথ গেমসেও সুযোগ হবে না ভারোত্তোলক দলের। শেষ পর্যন্ত অবশ্য অস্ট্রেলিয়ায় যাওয়া হচ্ছে মাবিয়াদের। কমনওয়েলথ গেমস ওই নিষেধাজ্ঞার আওতায় নয়। তাই এই সুযোগ, যা পাঁচ ভারোত্তোলকের সুযোগ করে দিয়েছে আগামী কমনওয়েলথ গেমসে অংশ নেয়ার। বিওএ সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে। গত দুই বছরে আন্তর্জাতিক আসরে ভালো করা খেলোয়াড়রাই বিবেচিত হয়েছেন গোল্ডকোস্ট যাওয়ার জন্য। ভারোত্তোলনসহ মোট ৬ ডিসিপ্লিনে দল পাঠাবে বাংলাদেশ। বাকি ডিসিপ্লিনগুলো হলো, শুটিং, অ্যাথলেটিকস, সাঁতার, বক্সিং ও কুস্তি।
অন্য ডিসিপ্লিনের ক্রীড়াবিদ চূড়ান্ত না হলেও ভারোত্তোলক দল ঠিক হয়ে গেছে। গত এসএ গেমসে স্বর্ণ জয়ী মাবিয়া আক্তার সীমান্ত আছেন দলে। অন্যরা হলেন শিমুল কান্তি সিংহ, ফুলপতি চাকমা, জহুরা খাতুন ও ফাহিমা আক্তার ময়না। বাকি ডিসিপ্লিনের খেলোয়াড়ের নাম আজকালের মধ্যে জানা যাবে। যদিও ঝুঁকি এড়াতে বিওএ প্রায় ৫০ ক্রীড়াবিদের নামে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড করিয়ে রেখেছে। এখান থেকেই ২১ অ্যাথলেট সঙ্গী হবেন বাংলাদেশ দলের বহরে।
সবচেয়ে বড় দল পাঠানো হবে শুটিংয়ে। ১২ খেলোয়াড় তাদের। এর মধ্যে ছয়জন পুরুষ ও সমানসংখ্যক মহিলা। অ্যাথলেটিকসে অংশ নেবেন একজন পুরুষ ও একজন মহিলা। সাঁতারে দুই পুরুষের বিপরীতে যাবেন এক মহিলা। বক্সিংয়ে দুইজনই পুরুষ। কুস্তিতে এক পুরুষ ও সমানসংখ্যক মহিলা। এই ৬ ডিসিপ্লিøনের জন্য কোচের সংখ্যা ১০ জন। তবে কয়জন কর্মকর্তা যাবেন তা ঠিক হয়নি। বহরের সেফ ডি মিশনের দায়িত্ব বর্তেছে শুটিং ফেডারেশন সভাপতি নাজিম উদ্দিন চৌধুরীর ওপর।
কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশী ক্রীড়াবিদদের পারফরম্যান্স ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে আগস্ট-সেপ্টেম্বরের জাকার্তা এশিয়ান গেমসের জন্য। যেখানে ১৩ ডিসিপ্লিনে দল পাঠানোর প্রাথমিক সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ)। এগুলো হলো মহিলা ফুটবল, মহিলা কাবাডি, পুরুষ হকি, অ্যাথলেটিকস, সাঁতার, কুস্তি, গলফ, শুটিং, আরচারি, ভারোত্তোলন, বিচ ভলিবল, বাস্কেটবল ও ব্রিজ। অবশ্য এশিয়ান গেমস শুরু হওয়ার আগ পর্যন্ত ভারোত্তোলন ফেডারেশনে নির্বাচন হলে তবেই সুযোগ মিলবে ভারোত্তোলন দলের যাওয়ার। অন্যথায় বাদ। বাংলাদেশ ২০১০ গুয়াংজু এশিয়ান গেমসে পুরুষ ক্রিকেটে স্বর্ণ ও ২০১৪ ইনচন এশিয়াডে ব্রোঞ্জ জিতেছিল। মহিলা দল দুই গেমসেই জয় করেছিল রৌপ্য; কিন্তু জাকার্তা এশিয়াডে ক্রিকেট না থাকায় বাংলাদেশ পদক বঞ্চিত হচ্ছে ক্রিকেট থেকে। বিওএর তালিকায় নেই পুরুষ ফুটবল ও পুরুষ কাবাডি দল।

 

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫