ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২৬ এপ্রিল ২০১৮

ক্রিকেট

অস্ট্রেলিয়া দলে পরিবর্তন

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০৩ জানুয়ারি ২০১৮,বুধবার, ১৫:০৮


প্রিন্ট
অস্ট্রেলিয়া দলে পরিবর্তন

অস্ট্রেলিয়া দলে পরিবর্তন

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চলতি মাসে শুরু হওয়া ওয়ানডে সিরিজের জন্য অস্ট্রেলিয়া দল থেকে বাদ পড়েছেন নিয়মিত দুই খেলোয়াড় গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও ম্যাথু ওয়েড।

প্রধান নির্বাচক ট্রেভর হনস বলেছেন, ধারাবাহিকতার অভাবে ওয়ানডে বিশেষজ্ঞ ম্যাক্সওয়েলকে ওয়ানডে দল থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে এ্যাশেজ টেস্ট সিরিজে অসধারণ পারফরমেন্সের কারনেই ওয়েডের কাছ থেকে উইকেটকিপিং গ্লাভসটি টিম পেইনের হাতে তুলে দেবার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
আগামী ১৪ জানুয়ারি থেকে মেলবোর্নে শুরু হওয়া পাঁচ ম্যাচের সিরিজের জন্য নির্বাচকরা তিন টেস্ট পেসার মিশেল স্টার্ক, জোস হ্যাজেলউড ও প্যাট কামিন্সকেও দলে ডেকেছেন। এছাড়া আরো ডাকা হয়েছে টি২০ ব্যাটসম্যান ক্রিস লিনকে।

হনস অবশ্য জানিয়েছেন, নির্বাচক প্যানেল আরেকবার লিনের ওপর নজড় রাখছে, এছাড়া ম্যাক্সওয়েলের কাছ থেকে আরো বেশি ধারাবাহিকতা আশা করছে। এ সম্পর্কে হনস বলেন, ‘গ্লেনের দক্ষতা নিয়ে কেউই কোনো সন্দেহ করেনি। ব্যাট হাতে সে সবসময়ই ম্যাচ জয়ী ইনিংস খেলে থাকে। আমরা শুধুমাত্র তার কাছ থেকে ধারাবাহিক পারফরমেন্স চাচ্ছি। কিন্তু এই ধরনের ফর্মেটে গত ২০টি ম্যাচে তার গড় মাত্র ২২। ব্যাটিং বিভাগে একজন খেলোয়াড়ের কাছ থেকে আমরা আরো বেশি আশা করতেই পারি।’

তিনি আরো জানিয়েছেন ম্যাক্সওয়েল এখনো পুরোপুরি ভাবেই নির্বাচকদের বিবেচনায় আছেন। তবে এক বছর আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে কাঁধের ইনজুরিতে পড়া লিনের ফিরে আসা নিয়ে দারুন আশাবাদী হনস। ঘরোয়া ক্রিকেটে গত দুই বছর ধরে লিনের পারফরমেন্স নিয়ে দারুন সন্তুষ্ট নির্বাচকরা। আর সে কারণেই ঘরোয়া ফর্মকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে লিন কিভাবে প্রমাণ করতে পারে সেটার অপেক্ষায় রয়েছেন হনস ও তার প্যানেল।

স্টার্ক, হ্যাজেলউড ও কামিন্সকে ওয়ানডে সিরিজে ফিরিয়ে আনার উদ্দেশ্যই হলো টেস্টের ফর্ম ওয়ানডেতে প্রমান করার। তবে তাদের উপর চাপ কমানোর জন্য জাই রিচার্ডসন ও এ্যান্ড্রু টাইকেও ওয়ানডে দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপকে সামনে রেখে খেলোয়াড়দের মান ও দক্ষতা যাচাইয়ের লক্ষ্যেই নতুন খেলোয়াড়দের সুযোগ দেয়া হচ্ছে বলে হনস স্বীকার করেছেন। এছাড়াও ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে আবারো শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করার লক্ষ্যেও মাঠে নামবে অস্ট্রেলিয়া। গত এক বছর যাবত শীর্ষস্থান থেকে সড়ে এসেছে অসিরা।

অস্ট্রেলিয়া স্কোয়াড : স্টিভ স্মিথ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, প্যাট্রিক কামিন্স, এ্যারন ফিঞ্চ, জোস হ্যাজেলউড, ট্রেভিস হেড, ক্রিস লিন, মিশেল মার্শ, টিম পেইন, জাই রিচার্ডসন, মিশেল স্টার্ক, মার্কোস স্টোয়িনিস, এন্ড্রু টাই, এ্যাডাম জাম্পা।


জয়ের ধারায় ফিরলো সিটি, লোরেনটের গোলে জয়ী টটেনহ্যাম
প্রিমিয়ার লীগে রাহিম স্টার্লিংয়ের দ্রুততম গোলের রেকর্ডের দিনে ওয়াটফোর্ডকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে আবারো জয়ের ধারায় ফিরেছে টেবিলের শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি। অপর ম্যাচে ফার্নন্দো লোরেনটের গোলে সোয়ানসি সিটিকে ২-০ গোলে হারিয়েছে টটেনহ্যাম হটস্পার।

ইস্টল্যান্ডে স্টার্লিং ম্যাচ শুরুর মাত্র ৩৮ সেকেন্ডের মধ্যেই সিটিজেনদের এগিয়ে দেন। এরপর ক্রিস্টিয়ান কাবাসেলের প্রথমার্ধের আত্মঘাতি গোলে পেপ গার্দিওলার দল ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নিজেদের করে নেয়। রোববার ক্রিস্টাল প্যালেসের সাথে গোলশুণ্য ড্র করে লীগে টানা ১৮ ম্যাচে জয়ের রেকর্ড থেকে সড়ে এসেছিল সিটিজেনরা। কিন্তু সার্জিও আগুয়েরোর ৬৩ মিনিটের গোলে আবারো জয়ের ধারায় ফিরেছে গার্দিওলার দল। এখন পর্যন্ত অপরাজিত সিটি এই জয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের থেকে ১৫ পয়েন্টের সুস্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে গেল।

প্যালেসের বিপক্ষে স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসাস হাঁটুর লিগামেন্ট ইনজুরিতে আক্রান্ত হলে গার্দিওলা অভিযোগ করে বলেছিলেন বড়দিন ও নতুন বছরের উৎসবের আমেজকে ছাপিয়ে প্রিমিয়ার লীগের ব্যস্ত সূচীতে খেলোয়াড়রা পরিশ্রান্ত হয়ে উঠেছে। তবে ব্রাজিলিয়ান জেসাসেস স্থানে কাল প্রথম থেকেই দলে ছিলেন আজেন্টাইন তারকা আগুয়েরো। এছাড়া দুই ম্যাচের অনুপস্থিতির পরে দলে ফিরেছিলেন ডেভিড সিলভা। গত ১১ দিনে এটি ছিল সিটির চতুর্থ ম্যাচ। তবে লিওরি সানের ক্রস থেকে প্রথম মিনিটেই ঘরের মাঠে স্বাগতিকদের এগিয়ে দিতে ভুল করেননি স্টার্লিং। চলতি মৌসুমে ইংলিশ এই তারকার এটি ১৮তম গোল। ১৩ মিনিটে কেভিন ডি ব্রুয়েনের ক্রস কাবাসেলে ক্লিায়ার করতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়ালে সেপ্টেম্বরে ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে ৬-০ গোলের বড় ব্যবধানে জয়ের স্মৃতি আবারো ফিরে এসেছিল।

যদিও পরের গোলটি পেতে সিটিজেনদের ৫০ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে। ৬৩ মিনিটে গোলপোস্টের খুব কাছে থেকে মৌসুমের ১৬তম গোল করেন আগুয়েরো। ৮২ মিনিটে আন্দ্রে গ্রে’র সান্তনাসূচক গোল ওয়াটফোর্ডের পরাজয়ের ব্যবধানই শুধু কমিয়েছে। গত সাতটি লীগ ম্যাচে এটি ওয়াটফোর্ডের ষষ্ঠ পরাজয়।

সোয়ানসির ঘরের মাঠ লিবার্টি স্টেডিয়ামে কাল অসুস্থতার কারনে মূল একাদশে ছিলেন না স্পারস তারকা হ্যারি কেন। সেই সুযোগে সোয়ানসির সাবেক স্ট্রাইকার লোরেনটে এই প্রথম লীগে মূল একাদশের হয়ে মাঠে নামেন। আর প্রথম ম্যাচেই তিনি কোচ মরিসিও পোচেত্তিনোকে হতাশ করেননি। ১২ মিনিটে ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের ফ্রি-কিক থেকে শক্তিশালী হেডে এই স্প্যানিয়ার্ড স্পারসদের এগিয়ে দেন। যদিও সোয়ানসি গোলটির বিরুদ্ধে অফ-সাইডের আবেদন করেছিল। ৬৮ মিনিটে লোরেনটের পরিবর্তে মাঠে নামেন ২০১৭ সালে টানা দুই হ্যাটট্রিক করে বছর শেষ করা হ্যারি কেন। ৮৯ মিনিটে কেনের সুনির্দিষ্ট পাসে ডেলে আলি ব্যবধান দ্বিগুন করার পাশাপাশি টটেনহ্যামের জয় নিশ্চিত করেন। এই জয়ে আর্সেনালকে দুই পয়েন্ট পিছনে ফেলে টটেনহ্যাম পঞ্চম স্থানে উঠে এসেছে। চতুর্থ স্থানে থাকা লিভারপুলের থেকে তাদের পয়েন্টের ব্যবধান মাত্র চার।

এদিকে এই পরাজয়ে সোয়ানসি টেবিলের তলানির স্থানটি অক্ষুন্ন রেখেছে। পল ক্লেমেন্টের স্থানে নতুন কোচ হিসেবে নিয়োগ পাওয়া কার্লোস কারভালহালের অধীনে দুই ম্যাচে এই প্রথম পরাজিত হলো সোয়ানসি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫