স্বজনের আহাজারি
স্বজনের আহাজারি

সরিষাবাড়ীতে পুলিশের ধাওয়ায় নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ ব্যক্তির লাশ উদ্ধার

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) সংবাদদাতা

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে জোয়ার আসর থেকে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে প্রাণ বাঁচাতে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ হওয়া ইসমাইল (৩৮) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিখোঁজের প্রায় ৩৬ ঘন্টার পর আজ মঙ্গলবার দুপুরে ফায়ার সার্ভিসের একদল ডুবুরি প্রায় সাড়ে তিন ঘন্টা চেষ্টার পর অবশেষে নদী থেকে ইসমাইলের লাশ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

জানা যায়, গত ৩১ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১১টার দিকে সরিষাবাড়ী পৌর এলাকার ঝালুপাড়া সংলগ্ন ঝিনাই নদীর পাশে এক পরিত্যাক্ত স্থানে জোয়ার আসর বসায় সামর্থবাড়ীর মৃত হোসেন শেকের পুত্র ইসমাইল হোসেন, চান মিয়ার পুত্র খলিলুর রহমান, বাবু মিয়া ও শুরুজের পুত্র জহুরুল ইসলাম। গোপন সংবাদে পুলিশের একটি দল রাত্র সাড়ে ১১টার দিকে জোয়ার আসরে হামলা চালালে জোয়ারীরা টের পেয়ে এলোপাতাড়ি দৌড়াতে থাকে। এক পর্যায়ে ইসমাইল হোসেন পুলিশের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ঝিনাই নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিরুদ্দেশ হয়।

অবশেষে আজ মঙ্গলবার দুপুরে ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের ৩ সদস্যের একটি ডুবুরি দল সকাল ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ঝিনাই নদীতে উদ্ধার অভিযান চালিয়ে ইসমাইলের লাশ উদ্ধার করেছে বলে সরিষাবাড়ী দমকল বাহিনীর অফিসার ইনচার্জ আজহারুল ইসলাম জানান।

অপরদিকে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ইসমাইল নদীতে ঝাঁপ দেওয়ার বিষয়টি থানা পুলিশ অস্বীকার করেছে।

নিহতের স্ত্রী চামেলী বেগম জানান, পুলিশের ধাওয়া খেয়ে তার স্বামী ইসমাইল নদীতে ঝাঁপ দেয়। তিনি এ ঘটনার বিচার দাবি জানান।

সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম খান জানান, ‘ওইদিন ছিল বছরের শেষ দিন। সে দিন আমার পুলিশ আইন-শৃংখলা কাজে ব্যস্ত ছিল। ঝালুপাড়া নামক স্থানে ঘটনার দিন আমার পুলিশ যায়নি।’

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.