রজনীকান্ত
রজনীকান্ত

রাজনীতিতে আসার আগে ভক্তদের জন্য রজনীকান্তের পরামর্শ

নয়া দিগন্ত অনলাইন

রাজনীতিতে আসা-না আসার আলোচনার মাঝে আবারো ভক্তদের মুখোমুখি হলেন ভারতের তামিল চলচ্চিত্র জগতের সুপারস্টার রজনীকান্ত। ভক্তদেরকে দিলেন গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ।

ক্ষমতাবান, আর্থিকভাবে শক্তিশালী বা খ্যাতিমান ব্যক্তিদের পায়ে না পড়ে শুধু বাবা-মা ও সৃষ্টিকর্তার সামনেই মাথা ঝোঁকানোর পরমর্শ তার।

তিনি বলেন, ‘আমাদের শুধু ঈশ্বর ও বাবা-মার সামনে মাথানত করা উচিত। বয়স্ক ব্যক্তিদের সামনেও মাথানত করা উচিত। কারণ, তারা জীবনে অনেক ওঠা-নামা দেখেছেন। আপনাদেরও জীবনে অনেক ওঠা-নামার মোকাবিলা করতে হবে। যাদের অর্থ, খ্যাতি ও ক্ষমতা আছে, তাদের পায়ে পড়ার কোনো দরকার নেই।’

এ পরামর্শ দেওয়ার পর মজার ছলে ভক্তদের উদ্দেশে রজনীকান্ত বলেন, তিনি আমিষ খাবার দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু যেখানে এই অনুষ্ঠান চলছে, সেখানে আমিষ খাবার দেয়ার অনুমতি নেই। তাই অন্য কোনও জায়গায় তিনি আমিষ খাবার পরিবেশন করবেন।

এর আগে এ বছরের মে মাসেও ভক্তদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন রজনীকান্ত। ফের ভক্তদের মাঝে এলেন তিনি।

এবারের সাক্ষাৎ তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, রাজনীতিতে যোগ দেবেন কি না, সে বিষয়ে ঘোষণা করবেন ৩১ তারিখ। তার এই ঘোষণা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়েছে।

‘ব্যক্তিগত জীবনে অভিনয় করতে চাই না’
বিশাল বাজেটের ছবি ‘২.০’-র প্রচারে গত অক্টোবরে দুবাইয়ে গিয়েছিলেন তামিল ছবির অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা রজনীকান্ত। সে সময় তিনি ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কথা বলেন। তিনি মজার ছলে বলেন, ‘ক্যামেরার সামনে ছাড়া অভিনয় করার জন্য কেউ টাকা দেয় না। তাই ব্যক্তিগত জীবনে অভিনয় করতে চাই না।’

স্কাই-ফাই থ্রিলার ‘২.০’-র সাফল্যের বিষয়ে আশাবাদী রজনীকান্ত। তিনি বলেছেন, ‘পরিচালক শঙ্কর এই ছবির মাধ্যমে সবার জন্য এক বিশেষ বার্তা দিয়েছেন। ভারতীয় দর্শকদের মতোই বিদেশিদেরও এই ছবিটি ভাল লাগবে।’

এই ছবিতে রজনীকান্তের সঙ্গে অভিনয় করেছেন অক্ষয় কুমার ও অ্যামি জ্যাকসন। তারাও ছবিটি নিয়ে আশাবাদী।

অক্ষয় বলেছেন, ‘আমি এর আগে কোনোদিন এ ধরনের চরিত্রে অভিনয় করিনি। অন্য কাউকে এ ধরনের চরিত্রে অভিনয় করতেও দেখিনি। খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করার অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ আলাদা।’

শঙ্কর এর আগে ২০১০ সালে রজনীকান্তের সঙ্গে এন্থিরান ছবিটি করেছিলেন। সেই ছবিটি বক্স অফিসে সাফল্য পেয়েছিল। তবে সেই ছবিটির সঙ্গে ‘২.০’-র কোনো মিল নেই বলেই দাবি পরিচালকের।

তিনি আরও বলেছেন, হলিউডের ধাঁচে ছবি করলেও, বলিউডের কোনো ছবিকে নকল করেননি তিনি। এবিপি আনন্দ। 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.