ads

ঢাকা, শনিবার,২১ এপ্রিল ২০১৮

ক্রিকেট

অস্ট্রেলিয়ার রানের পাহাড়ের চাপে ইংল্যান্ড

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৭ ডিসেম্বর ২০১৭,রবিবার, ১১:০০ | আপডেট: ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭,রবিবার, ১১:৫৮


প্রিন্ট
স্টিভেন স্মিথ

স্টিভেন স্মিথ

ক্লান্ত-পরিশ্রান্ত ইংলিশ ক্রিকেটাররা! তৃতীয় দিনের মতো আজ মাঠে বোলিং করছে তারা। আর ক্রিজে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকা অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা রান তুলে যাচ্ছে। তাতে চাপে পড়েছে ইংল্যান্ড।

অ্যাশেজের তৃতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনের খেলা চলছে। মধ্যাহ্ন বিরতি পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৬৪৩ রান। হাতে আছে এখনো তিনটি উইকেট।

ক্রিজে আছেন প্যাট কামিন্স ও টিম পাইন।

আজ দিনের শুরুতে দুর্ধর্ষ স্টিভেন স্মিথকে সাজঘরে পাঠিয়েছেন অ্যান্ডারসন। ৩৯৯ রানে ৩০ বাউন্ডারিতে ও এক ছক্কায় ২৩৯ রানের দুর্লভ এক ইনিংস খেলেছেন এই অসি অধিনায়ক।

স্টিভ স্মিথের ডাবল সেঞ্চুরি

নতুন উচ্চতায় স্টিভ স্মিথের টেস্ট ক্যারিয়ার। ব্যাট হাতে ২২ গজের উইকেটে ধারাবাহিকভাবে পারফরম করার অনিন্দ্য সুন্দর কৃতিত্বের জন্ম দিলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক। টপকে গেলে সমসাময়িককালের সবাইকে। ব্যক্তিগত ক্যারিয়ারকে অনন্য উচ্চতায় প্রতিস্থাপনের পাশাপাশি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েই পার্থ টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার একক আধিপত্য নিশ্চিত করেছেন স্মিথ। টপঅর্ডারে বিপর্যয়ের পর ব্যাটিংয়ে নেমে রূপকথার রাজকুমারের মতোই পুরো ম্যাচের চিত্রনাট্য পাল্টে দিলেন স্বাগতিক অধিনায়ক। স্মিথ যোগ্য সাপোর্টও পেলেন অ্যাশেজের তৃতীয় টেস্টের একাদশে সুযোগ পাওয়া মিচেল মার্শের কাছ থেকে। গতকাল পার্থের উইকেটে অস্ট্রেলিয়ার দুই ব্যাটসম্যানের আধিপত্যে দুঃস্বপ্ন হজমে বাধ্য সফরকারী ইংল্যান্ড। ম্যাচের দারুণ সূচনার পরও দলটি খাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে ড্রেসিং রুমে ফিরেছে তৃতীয় দিন শেষে।

গতকাল পার্থের উইকেটে অবিস্মরণীয় ব্যাটিং স্মিথ-মিচেল মার্শের। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরির দিনে টেস্ট ফরম্যাটের ইতিহাসের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে স্মিথ টানা চার বছর ১ হাজার করার নজিরও গড়েন। শেষ পর্যন্ত ২২৯ রানে অপরাজিত থেকে তৃতীয় দিন সমাপ্ত করেন অসি দলনায়ক। কম যাননি স্মিথের পার্টনার মিচেল মার্শও। টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির পর ডাবলের উত্তাপে ফিরেছেন ড্রেসিং রুমে। স্মিথ-মার্শের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেটে ৫৪৯ রানে বিশাল সংগ্রহে পৌঁছে গেছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ইনিংসে ২০০ রানে পিছিয়ে থেকে তৃতীয় দিনের সূচনায় ব্যাটিংয়ে নেমে তারা ১৪৬ রানের লিডে ব্যাকফুটে ঠেলে দিয়েছে ইংলিশদের। দলটির বোলারদের সারা দিনের সাফল্য ১ উইকেট শিকারের।

ইংল্যান্ডের বোলিং ইউনিটের প্রত্যেককেই দুঃস্বপ্নের মধ্যে রেখে স্মিথ ও মার্শ অস্ট্রেলিয়াকে রানের পাহাড়ে পৌঁছে দেন। তাদের দুইজনের দাপুটে ব্যাটে রান খরচে সেঞ্চুরির কোঠা পেরিয়ে গেছেন সফরকারী বোলার ওভারটন, ওকস, ব্রড ও মঈন আলি। জেমস এন্ডারসন খরচের খাতা ইতোমধ্যে উন্নীত হয়েছে ৮৫ রানে। ৩৯০ বলে ২২৯ রানে নটআউট আছেন স্মিথ। তার সঙ্গী মার্শ ওয়ানডে স্টাইলে খেলে ২৩৪ বলে খেলেন অপরাজিত ১৮১ রানের ইনিংস।

টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবলে অস্ট্রেলিয়াকে পার্থ টেস্টের লড়াইয়ে ফেরানোর প্রক্রিয়ায় ইতিহাসও গড়েছেন স্মিথ। ইতিহাসের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে টানা চার বছর টেস্ট ফরম্যাটে ধারাবাহিকভাবে রান করার বিরল কৃতিত্ব। ২০১৪ থেকে ২০১৭ সালের প্রত্যেক ১২ মাসে ১ হাজারের বেশি রান অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে আদায় করেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। তার সামনে এখন শুধুই ম্যাথু হেইডেন। একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে সাবেক অসি ওপেনার ম্যাথু হেইডেন টানা ৫ বছর এক হাজার রান সংগ্রহের বিরল কৃতিত্বের জন্ম দেন। ২০০১ থেকে ২০০৫ সালে ক্যারিয়ারের অসাধারণ সাফল্য অর্জন করেন বাঁহাতি ওপেনার।

 

ads

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫