ঢাকা, শুক্রবার,২৭ এপ্রিল ২০১৮

আরো খবর

বিচারকদের চাকরি শৃঙ্খলা বিধিমালা সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক : মওদুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ ডিসেম্বর ২০১৭,বুধবার, ০০:৪১


প্রিন্ট

অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির প্রণীত শৃঙ্খলা বিধিমালা অসাংবিধানিক আখ্যা দিয়ে এর মাধ্যমে প্রশাসন থেকে বিচার বিভাগকে পৃথকীকরণের মৃত্যু ঘটেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। গতকাল বিকেলে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।
মওদুদ আহমদ বলেন, সরকার নি¤œ আদালতের বিচারকদের চাকরির যে শৃঙ্খলা বিধি তৈরি করেছে তা সম্পূর্ণ আত্মঘাতী, অর্থহীন এবং অসাংবিধানিক। এর মাধ্যমে নি¤œ আদালতের বিচারকেরা পুরোপুরি সরকারের নিয়ন্ত্রণে চলে গেল। এখন আর বলা যাবে না যে, বিচার বিভাগ নির্বাহী বিভাগ থেকে পৃথক একটি প্রতিষ্ঠান। এই শৃঙ্খলা বিধি সংবিধানের ২২ অনুচ্ছেদ লঙ্ঘন করেছে। ২২ অনুচ্ছেদে স্পষ্টভাবে লেখা আছে বিচার বিভাগ হবে একটি স্বাধীন অঙ্গ এবং বিচার বিভাগ ও নির্বাহী বিভাগ সম্পূর্ণভাবে পৃথকীকরণ করা হবে। সেজন্য আইনও পাস করা হয়েছে। আজকে এই শৃঙ্খলা বিধির মাধ্যমে প্রশাসন থেকে বিচার বিভাগকে পৃথকীকরণের মৃত্যু ঘটেছে। অর্থাৎ বাংলাদেশে বিচার বিভাগের আর কোনো স্বাধীনতা দূরে থাক, এটা সম্পূর্ণভাবে সরকারের নিয়ন্ত্রণের চলে গেছে।
মওদুদ আহমদ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, আমরা বলতে চাই, বাংলাদেশের জনগণ এই বিধিমালা গ্রহণ করে না এবং এই বিধিমালার বিরুদ্ধে বাংলাদেশে আন্দোলন হবে।
সাবেক এই আইনমন্ত্রী বলেন, ওই মামলায় বিচার বিভাগকে পৃথকীকরণ করা সম্পর্কে সুপ্রিম কোর্টের যে নির্দেশ ছিল এটি তার সম্পূর্ণ পরিপন্থী অর্থাৎ এই বিধি একটি অসাংবিধানিক বিধিমালা। আমরা মনে করি, এটি বিচার বিভাগের স্বাধীনতার ওপর একটি চরম রাজনৈতিক আঘাত। এই বিধিমালা আইনজীবী সম্প্রদায়সহ দেশের কোনো শ্রেণীর মানুষের কাছে কখনোই গ্রহণযোগ্য হবে না। আশা করি সুপ্রিম কোর্টের বিচারকেরা ও নি¤œ আদালতের বিচারকেরা এই শৃঙ্খলা বিধি প্রত্যাখ্যান করবেন।
জাতীয় প্রেস কাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে অপরাজেয় বাংলাদেশ নামক সংগঠনের উদ্যোগে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলে এই আলোচনা সভা হয়।
সংগঠনের সহসভাপতি ভিপি ইবরাহিমের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান রুহুল আলম চৌধুরী, সহ শিাবিষয়ক সম্পাদক ফরিদা মনি শহীদুল্লাহ, নির্বাহী কমিটির সদস্য ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, তাঁতী দলের আবুল কালাম আজাদ, মৎস্যজীবী দলের মিলন মেহেদি প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
পদত্যাগী প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা স্মরণীয় হয়ে থাকবেন মন্তব্য করে মওদুদ আহমদ বলেন, কারণ তিনি এর (প্রকাশিত শৃঙ্খলা বিধিমালা) বিরোধিতা করে বিচার বিভাগের স্বাধীনতাকে অুণœ রাখার চেষ্টা করেছিলেন। এস কে সিনহাকে বিতাড়িত করে সরকার নিজেদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫