আশুলিয়ায় শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা

আশুলিয়া (ঢাকা) সংবাদদাতা

আশুলিয়ায় সাড়ে তিন বছরের শিশু আঁখি আক্তার ইমুকে ধর্ষণের পর হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনায় ধর্ষক অটোচালক সায়েমকে (৩৫) আটক করেছে পুলিশ। গত সোমবার সন্ধ্যায় আশুলিয়ার পূর্ব জামগড়া ফিরোজ মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া একটি কক্ষে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।
নিহত শিশু আঁখি আক্তার ইমু সাবেক বিজিএমইএ সভাপতি আব্দুস সালামের মালিকানাধীন জামগড়া দ্য রোজ ড্রেসেস নামে পোশাক কারখানার শ্রমিক ইমরান হোসেন ও সাথী আক্তারের মেয়ে। তারা পূর্ব জামগড়া রূপায়ন গেটের কাছে ফিরোজ মিয়ার বাড়িতে একটি কক্ষে ভাড়া থাকতেন। তারা মুন্সীগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ি এলাকার আমতলী গ্রামের বাসিন্দা।
ধর্ষক সায়েম ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল থানাধীন চর সিয়ামপুর এলাকার মৃত হাসেম আলীর ছেলে। সে নিহত শিশুটির পাশের কক্ষে ভাড়া থেকে অটোরিকশা চালায়।
এ ব্যাপারে নিহত আঁখির বাবা ইমরান হোসেন মল্লিক বলেন, সোমবার দুপুরে খাবার খেয়ে আঁখিকে তার দাদী তাসলিমা বেগমের কাছে রেখে তারা কারখানার কাজে চলে যান। এরপর আঁখি তাদের পাশের কক্ষের খেলার সাথী তানজিলার (৪) সাথে খেলা করতে যায়। কিন্তু তানজিলা কক্ষে ছিল না। সেখানে তানজিলার বাবা অটোরিকশাচালক সায়েম আঁখি আক্তার ইমুকে ধর্ষণ করে। কিছুক্ষণ পর তানজিলা এসে আঁখিকে রক্তাক্ত অবস্থায় পরে থাকতে দেখে তার দাদীকে বিষয়টি জানায়। দাদী তাসলিমা এ অবস্থায় কারখানায় আঁখির বাবা-মাকে বিষয়টি জানালে তারা এসে সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় আঁখিকে স্থানীয় নারী ও শিশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসক আঁখিকে মৃত ঘোষণা করেন। বিষয়টি থানা পুলিশকে জানালে হাসপাতাল থেকে আঁখির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
জানতে চাইলে থানার উপপরিদর্শক অহিদ মিয়া বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে আঁখির লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হয় শিশুটিকে ধর্ষণ করার পর হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় নিহতের বাবার লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের পাশের কক্ষের ভাড়াটিয়া অটোচালক সায়েমকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল আটককৃত ধর্ষক সায়েমকে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.