ইঁদুর তাড়ানোর ঘরোয়া উপায়
ইঁদুর তাড়ানোর ঘরোয়া উপায়

ইঁদুর তাড়ানোর ঘরোয়া উপায়

নয়া দিগন্ত অনলাইন

 ইঁদুর গরিব-ধনী চেনে না। তাই এমন কোনো বাসা-বাড়ি নেই যেখানে ইঁদুরের যন্ত্রণা নেই। নতুন পুরনো, মূল্যবান কিংবা সস্তা যাইহোক সব জিনিস সহজেই অচল করে দেয় ইঁদুর। সবচেয়ে বড় কথা একটি ইঁদুর মানুষের জন্য কমপক্ষে ২০ ধরণের রোগের জীবাণু বয়ে বেড়ায়। খাবার আর শখের পোশাক কাটাকাটিতে ওস্তাদ এই প্রাণিটির হাত থেকে রক্ষা পেতে কে না চায়।

ইঁদুর তাড়ানোর ঘরোয়া উপায়

ইঁদুর পুদিনার পাতা, পুদিনার তেল ও মেন্থলের গন্ধ একদম সহ্য করতে পারে না। তাই ইঁদুরকে আপনার ঘর থেকে বাইরে রাখতে চান তাহলে ঘরের প্রতিটা কোনা ও ইঁদুর থাকার জায়গাগুলোতে পুদিনা পাতা রেখে দিন।

আপনার বাড়ির আশেপাশে যাতে ইঁদুর ঘোরাঘুরি করতে না পারে এর জন্য বাড়ির চারপাশে পুদিনা গাছ লাগান। ফ্রিজ ও অন্যান্য জিনিসপত্র ইঁদুর থেকে দূরে রাখতে পুদিনা পাতা বেঁটে লেপে দিতে পারেন অথবা পুদিনা তেল ব্যবহার করতে পারেন।

ইস্পাত বা স্টিলের উল ইঁদুর থেকে আপনার বাড়িকে বাঁচাতে সাহায্য করতে পারবে। আপনার ঘরের যে প্রান্ত বা ফাঁক ফোঁকর দিয়ে ইঁদুর ঘরে প্রবেশ করে সেখানকার প্রবেশ মুখে ইস্পাত উল লাগিয়ে দিন। ইঁদুর সারাদিন রাত চেষ্টা করেও আপনার ঘরে ঢুকতে পারবে না।

ইঁদুর থেকে মুক্তি পাওয়ার সব থেকে সহজ ও কার্যকর উপাদান হচ্ছে মানুষের চুল। চুল মুখে গেলে বা পায়ে জড়িয়ে গেলে ইঁদুরের মৃত্যু অবধারিত। তাই ইঁদুর তাড়াতে রাতের বেলা আপনার ঘরের মেঝেতে ও ইঁদুরের প্রিয় জায়গাগুলোতে চুল ফেলে রাখতে পারেন।

ইঁদুর সমূলে মারতে অ্যামোনিয়া কাজে লাগাতে পারেন। কোনো ইঁদুর যদি একবার অ্যামোনিয়ার ঘ্রাণ নেই তাহলে তার মৃত্যু নিশ্চিত। আপনার ঘরের ইঁদুরের আনাগোনা বেশি হওয়া জায়গাতে তরল অ্যামোনিয়া দিয়ে রাখুন।

শুনে হাসি আসলে ও আপনাকে বিশ্বাস করতেই হবে যে ইঁদুর মারতে শুকনো গোবর খুব কাজের। কোনো ইঁদুর যদি শুকনো গোবর খেয়ে ফেলে তবে তার মৃত্যু ঠেকানো যাবে না।

ইঁদুর মারতে গোল মরিচের জুড়ি নেই। আপনার বাড়ির ইঁদুরের বাসস্থানে গোল মরিচ রেখে দেখুন ইঁদুর মরবেই। গোল মরিচের কটু গন্ধে শ্বাস নেয়াতে ইঁদুরের ফুসফুসে আঘাত লাগায় এরা মারা যায়।

ইঁদুর মারতে আপনি আপনার সু-পরিচিত মসলার অন্যতম উপাদান পেঁয়াজ ব্যবহার করতে পারেন। ইঁদুরের গর্তের মুখে পেঁয়াজ কেটে রেখে দিন আর এতেই কাজ হয়ে যাবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.