বিশিষ্ট ২৫ নাগরিকের বিবৃতি

আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার দাবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্ট ২৫ নাগরিক ও বুদ্ধিজীবী। গতকাল এক বিবৃতিতে তারা আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে করা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বলেন, সংবিধানে প্রতিশ্রুত মৌলিক অধিকার খর্ব করে সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের খবরে আমরা উদ্বিগ্ন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ নম্বর ধারা একটি অতিশয় কঠোর বিধান হিসেবে ধারাবাহিকভাবে সমালোচিত হচ্ছে। এই ধারা ব্যবহারের মাধ্যমে গণতন্ত্রের মৌলিক ভিত্তি বাকস্বাধীনতা ও মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব করা হচ্ছে। এ ছাড়া এ ধরনের বিধানের অপব্যবহার হওয়ার সমূহ আশঙ্কা রয়েছে। ৫৭ ধারা এবং একই সাথে দণ্ডবিধির ৫০১ ও ৫০২ এর মানহানিসংক্রান্ত ধারার অধীনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হওয়ায় আমরা বিুব্ধ এবং কঠোরভাবে এর নিন্দা জ্ঞাপন করছি। মামলাগুলো বাংলাদেশ সরকারের একজন মন্ত্রীর আত্মীয় কর্তৃক দায়ের হয়েছে, সেই মন্ত্রী গত ২০ নভেম্বর একটি টেলিভিশন টকশোতে এ ধরনের পদপে গ্রহণের হুমকি দিয়েছিলেন।
বিবৃতিদাতারা হলেনÑ ড. শাহদীন মালিক, অধ্যাপক ড. শাহনাজ হুদা, ড. ইফতিখার জামান, অধ্যাপক ড. সি আর আবরার, ডা: জাফল্লাহ চৌধুরী, অধ্যাপক ড. আনু মুহাম্মদ, অধ্যাপক ড. আহমেদ কামাল, অধ্যাপক ড. পারভীন হাসান, অধ্যাপক রোবায়েত ফিরদৌস, অধ্যাপক ড. তাসনীম সিদ্দিকী, ব্যারিস্টার সারা হোসেন, ড. শহীদুল আলম, ড. সুমাইয়া খায়ের, ড. বদিউল আলম মজুমদার, লুবনা মরিয়ম, ড. স্বপন আদনান, মোহাম্মদ নূর খান, রেজাউর রহমান, জাকির হোসেন, আদিলুর রহমান খান, রেহনুমা আহমেদ, মাসুদ খান, ফরিদা আখতার, জিয়াউর রহমান ও শিরীন হক।
বিবৃতিতে বলা হয়Ñ গভীর উদ্বেগের সাথে আমরা লক্ষ করছি যে, আইসিটি আইনটি ভিন্নমত পোষণকারীদের অভিযোগ সম্পর্কে অবগত হওয়ার ও আত্মপক্ষ সমর্থন করার সুযোগ না দিয়েই হয়রানি ও শিকারে পরিণত করার উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে। নিন্দিত এই ৫৭ ধারা রদ করার জন্য বিভিন্ন উদ্বিগ্ন মহল থেকে অনবরত জোর দাবি তোলা হচ্ছে, যার পরিপ্রেেিত আইনমন্ত্রী প্রকাশ্যে এই ধারা রদ করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। দু’টি মামলায় বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের উচ্চ আদালত বিভাগ ৫৭ ধারা কেন অসাংবিধানিক ঘোষিত হবে না এই মর্মে বাংলাদেশ সরকারকে কারণ দর্শাতে নির্দেশ প্রদান করে। এসব বিবেচনায় আমরা অধ্যাপক আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাগুলো অগ্রহণযোগ্য ও অমঙ্গলসূচক মনে করি।
অতএব, আমরা আইসিটি আইনের অধীনে অধ্যাপক আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার জন্য পুলিশ সদর দফতর কর্তৃক জারি করা অনুমতি অবিলম্বে প্রত্যাহার করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। এ ছাড়াও আইসিটি আইনের যথাযথ সংস্কার করার জন্য আইন মন্ত্রণালয়কে দ্রুত পদপে গ্রহণ করতে; জাতীয় মানবাধিকার কমিশনসহ নাগরিকদের মানবাধিকার রায় দায়িত্বপ্রাপ্ত সংবিধিবদ্ধ সংগঠনগুলোকে প্রয়োজনীয় পদপে গ্রহণ করতে এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে ড. আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে জোর দাবি জানাচ্ছি। বিজ্ঞপ্তি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.