জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের

নোয়াখালীর হাতিয়ায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২০

নোয়াখালী সংবাদদাতা

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার তমরদ্দি ইউনিয়নের পূর্ব জোড়খালী গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় পল্লী চিকিৎসকসহ ২০ জন আহত হয়েছে। এরমধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় ১২জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার সকালে ইউনিয়নের পূর্ব জোড়খালী গ্রামে পল্লী চিকিৎক রিয়াজ উদ্দিনের বাড়িতে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানাায়, উপজেলার তমরদ্দি ইউনিয়নের পূর্ব জোড়খালী গ্রামের মো. নাছির উদ্দিনের সাথে একই বাড়ির মো: আবুল কাশেমদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে কয়েকবার গ্রাম পর্যায়ে ও হাতিয়া থানায় সালিশি বৈঠক হয়। বৈঠকে সালিশদাররা সিদ্ধান্ত দেন জায়গার মালিক মো: নাছির উদ্দিন। এ মর্মে হাতিয়া থানা থেকে সালিশী রোয়েদার্দও দেওয়া হয়েছে।

সোমবার সকালে মো: নাছির উদ্দিনের বড় ছেলে মো: রিয়াজ উদ্দিন পুকুরে মাছ ধরতে গেলে একই বাড়ির মো: আবুল কাশেম মাছ ধরতে বাধা দেয়। মাছ ধরা নিয়ে প্রথমে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আবুল কাশেম প্রতিপক্ষ রিয়াজ উদ্দিনকে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে। তার চিৎকারে বাড়ির অন্য লোকজন ছুটে আসে। এতে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে পল্লী চিকিৎসক মো: রিয়াজ উদ্দিন (৩৬), নুর উদ্দিন (৫০), মো: মহি উদ্দিন (৪৬), মো: অলি উদ্দিন (৪০), রহিম উদ্দিন (৩২), রোকসানা বেগম (৩৫), রিয়া বেগম (১২), মো: আবুল কাশেম (৬৫), মো: আব্দুর রহমান (৩৫), রুমি বেগম (২৯), মো: নিজাম উদ্দিন (৩০), মো: আবু তাহের (৪৫)সহ উভয়পক্ষের ২০ জন আহত হয়।

আহত অবস্থায় ১২জনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত রিয়াজ উদ্দিন ও নুর উদ্দিনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের ঢাকা প্রেরণ করা হয়েছে।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: কামরুজ্জামান শিকদার পিপিএম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আহতদের উদ্ধার করে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মামলা হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.