প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এমইএসে ১১০ জন নিয়োগ

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন মিলিটারি ইঞ্জিনিয়ার সার্ভিসেসে (এমইএস) নি¤œবর্ণিত শূন্য পদগুলোতে নিয়োগের জন্য বাংলাদেশের যোগ্য নাগরিকদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহ্বান করা হয়েছে। আবেদনপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ : ২১ ডিসেম্বর ২০১৭। লিখেছেন মাহমুদা সুলতানা
পদের নাম : উপ-সহকারী প্রকৌশলী বি/আর।
পদের সংখ্যা : ৭৭টি।
আবেদনের যোগ্যতা : স্বীকৃত পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট থেকে ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং (সিভিল) পাস।
বেতন স্কেল : ১৬,০০০-৩৮,৬৪০/-
পদের নাম : উপ-সহকারী প্রকৌশলী ই/এম।
পদের সংখ্যা : ৩৩টি।
আবেদনের যোগ্যতা : স্বীকৃত পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট থেকে ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং (ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল) পাস।
বেতন স্কেল : ১৬,০০০-৩৮,৬৪০/-
বয়সসীমা : আবেদনকারীর বয়স ১ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে; তবে মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের পুত্র-কন্যা ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীর ক্ষেত্রে বয়সসীমা ১৮ থেকে ৩২ বছরের মধ্যে হতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যার বয়সসীমা ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে।
অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ : আগ্রহী প্রার্থীদের অনলাইনে আবেদন করতে হবে। সে লক্ষ্যে যঃঃঢ়://সবং.ঃবষবঃধষশ.পড়স.নফ/ওয়েবসাইটে লগইন করলে একটি লিংক পাওয়া যাবে। ওই লিংকে প্রবেশ করে সংশ্লিষ্ট নির্দেশনা অনুসারে অনলাইনে আবেদনপত্র পূরণ করতে হবে।
অনলাইনে আবেদনপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ ও পরীক্ষার ফি জমা দেয়া : ২১ ডিসেম্বর ২০১৭। ওই সময়সীমার মধ্যে ইউজার আইডিপ্রাপ্ত প্রার্থীরা অনলাইনে আবেদনপত্র সাবমিটের সময় থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে এসএমএসের মাধ্যমে পরীক্ষার ফি জমা দিতে পারবেন।
জরুরি তথ্য : অনলাইনে আবেদনপত্রে প্রার্থী তার স্বাক্ষর (দৈর্ঘ্য ৩০০ ী প্রস্থ ৮০) ঢ়রীবষ, ঋরষব ংরুব সধীরসঁস ৬০ শন ও রঙিন ছবি (দৈর্ঘ্য ৩০০ ী প্রস্থ ৩০০) ঢ়রীবষ, ঋরষব ংরুব সধীরসঁস ১০০ শন-এ স্ক্যান করে নির্ধারিত স্থানে আপলোড করবেন; প্রার্থী অনলাইনে পূরণকৃত আবেদনপত্রের একটি প্রিন্ট কপি পরীক্ষাসংক্রান্ত প্রয়োজনে সংরক্ষণ করবেন।
এসএমএস করা ও পরীক্ষার ফি জমা দেয়া : অনলাইনে আবেদনপত্র যথাযথভাবে পূরণ করে নির্দেশ মতো ছবি এবং ঝরমহধঃঁৎব ঁঢ়ষড়ধফ করে আবেদনপত্র সাবমিট করা সম্পন্ন হলে কম্পিউটারে ছবিসহ অঢ়ঢ়ষরপধঃরড়হ চৎবারবি দেখা যাবে। নির্ভুলভাবে আবেদনপত্র সাবমিট করা প্রার্থী একটি ইউজার আইডি, ছবি এবং স্বাক্ষরযুক্ত একটি অঢ়ঢ়ষরপধহঃ’ং কপি পাবেন। ওই অঢ়ঢ়ষরপধহঃ’ং কপি প্রার্থী প্রিন্ট অথবা ডাউনলোড করে সংরক্ষণ করবেন। অঢ়ঢ়ষরপধহঃ’ং কপিতে একটি ইউজার আইডি নম্বর দেয়া থাকবে এবং ইউজার আইডি নম্বর ব্যবহার করে প্রার্থী নি¤েœাক্ত পদ্ধতিতে যেকোনো টেলিটক প্রি-পেইড মোবাইল নম্বরের মাধ্যমে ২টি এসএমএস করে পরীক্ষার ফি অনধিক ৭২ ঘণ্টার মধ্যে জমা দেবেন। পরীক্ষার ফি বাবদ সব পদের জন্য ৫০০ টাকা জমা দিতে হবে। তবে অনলাইনে আবেদনপত্রের সব অংশ পূরণ করে সাবমিট করা হলেও পরীক্ষার ফি জমা না দেয়া পর্যন্ত অনলাইনে আবেদনপত্র কোনো অবস্থাতেই গৃহীত হবে না।
প্রবেশপত্র প্রাপ্তি : প্রবেশপত্র প্রাপ্তির বিষয়টি যঃঃঢ়://সবং.ঃবষবঃধষশ.পড়স.নফ/-এ ওয়েবসাইটে এবং প্রার্থীর মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে যথাসময়ে জানানো হবে। অনলাইনে আবেদনপত্রে প্রার্থীর প্রদত্ত মোবাইল ফোনে পরীক্ষা সংক্রান্ত যোগাযোগ সম্পন্ন করা হবে বিধায় ওই নম্বরটি সার্বক্ষণিক সচল রাখতে হবে।
প্রবেশপত্র সংগ্রহ ও অন্যান্য তথ্য : এসএমএসে পাঠানো ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে পরে রোল নম্বর, পদের নাম, ছবি, পরীক্ষার তারিখ, সময়, ভেনুর নাম ইত্যাদি তথ্যসহ বর্ণিত প্রবেশপত্র প্রার্থী ডাউনলোড করে প্রিন্ট (সম্ভব হলে রঙিন) করার মাধ্যমে সংগ্রহ করতে পারবেন। প্রার্থীকে এই প্রবেশপত্রটি লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সময়ে এবং উত্তীর্ণ হলে মৌখিক পরীক্ষার সময় অবশ্যই দেখাতে হবে। প্রবেশপত্র ডাউনলোডের তারিখ পরবর্তীতে এসএমএসের মাধ্যমে জানানো হবে।
মৌখিক পরীক্ষার সময় যে সব কাগজপত্র জমা দিতে হবে : মৌখিক পরীক্ষার সময় নিচে বর্ণিত কাগজপত্রের মূল কপি প্রদর্শনপূর্বক প্রতিটির একটি করে সত্যায়িত ফটোকপি জমা দিতে হবে।
১. প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতার সব সনদপত্র;
২. প্রার্থী যে ইউনিয়ন/পৌরসভা/সিটি করপোরেশনের বাসিন্দা সেই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/ পৌরসভার মেয়র/ কাউন্সিলর/সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্বের সনদপত্র;
৩. প্রার্থীর পিতা/মাতা মুক্তিযোদ্ধা হলে-এর প্রমাণস্বরূপ বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রদত্ত সদনপত্র/সাময়িক সনদপত্র;
৪. মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যা হিসেবে চাকরি প্রার্থীকে তার পিতার পিতা/পিতার মাতা/মাতার পিতা/মাতার মাতা (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)-এর মুক্তিযোদ্ধা সনদপত্র (যা উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ কর্তৃক স্বাক্ষরিত ও প্রতিস্বাক্ষরিত হতে হবে)। প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যা হলে এই মর্মে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/পৌরসভার মেয়র/কাউন্সিলর/সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র;
৫. উপজাতি প্রার্থীর ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক/স্থানীয় সরকার কর্তৃক্ষ প্রদত্ত উপজাতি পরিচয়বিষয়ক সনদপত্র;
৬. প্রতিবন্ধী প্রার্থীর ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র;
৭. জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত কপি;
৮. অনলাইনে পূরণকৃত আবেদনপত্রের কপি।
জেনে রাখুন : একজন প্রার্থী একাধিক পদে আবেদন করতে পারবেন না।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.