ঢাকা, শুক্রবার,১৫ ডিসেম্বর ২০১৭

ফুটবল

মেসিকে ছোঁয়ার দিনেও রোনালদোকে ঘিরে বিতর্ক

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০৮ ডিসেম্বর ২০১৭,শুক্রবার, ০৬:৫১


প্রিন্ট
মেসিকে ছোঁয়ার দিনেও রোনালদোকে ঘিরে বিতর্ক

মেসিকে ছোঁয়ার দিনেও রোনালদোকে ঘিরে বিতর্ক

বিশ্বের সেরা ফুটবলার হিসেবে আরো একবার তার হাতেই কি উঠবে ব্যালন ডি’অর? এই প্রশ্নের উত্তরের অপেক্ষা যখন করছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ভক্তরা৷ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তখন ঝড় উঠে যায় খেলোয়াড়দের সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী একটি সংস্থার ছবি ঘিরে৷

ওই সংস্থার তরফে ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করা হয়৷ সেখানে বুটের ছবি দিয়ে লেখা ‘কুইন্তো ত্রিয়ামফো’৷ যার মানে হল পাঁচবারের বিজেতা৷ আর বুটের নিচে লেখা ‘সিআর সেভেন ২০০৮, ২০১৩, ২০১৪, ২০১৬, ২০১৭’৷ ফলে তখনই প্রশ্ন ওঠে ওই ক্রীড়া সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী সংস্থা কী করে এতটা নিশ্চিত হলেন, যে রোনালদোই ফের ফরাসি ক্রীড়া পত্রিকা ফ্রান্স ফুটবলের দেয়া ওই পুরস্কার পাচ্ছেন৷

সন্ধ্যা থেকে শুরু হওয়া সেই বিতর্ক নতুন মাত্রা পায় এবারের ব্যালন ডি’অর পুরস্কারের বিজেতার নাম ঘোষণা হওয়ার পর৷ দেখা যায় সিআর৭-ই পেয়েছেন ওই পুরস্কার৷ ফলে নতুন করে প্রশ্ন ওঠে, তাহলে কি সব আগে থেকেই ঠিক করা ছিল৷ ভোটিংটা কি লোক দেখানো? সোশ্যাল মিডিয়ায় স্বাভাবিকভাবেই মেসি ও রোনালদো সমর্থকদের মধ্যে লড়াই শুরু হয়ে যায়৷

এই বিতর্কে আরো ইন্ধন জুগিয়েছে রোনাল্ডোর ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্টের বক্তব্য৷ তার কথায়, ‘‘রোনালদো যে সবচেয়ে সেরা তাতে কোনো সন্দেহ নেই৷’’ এখানে না থেমে তিনি আরো বলেছেন, ‘‘ইতিহাস অনুযায়ী রোনালদোই সবচেয়ে বেশি গোল করেছে আর কিছু দিন আগেই ও ‘‘দ্য বেস্ট’’ হয়েছে৷’’ তার মন্তব্য অনুযায়ী নাইকি এমন ছবি প্রকাশ্যে এনে কোনো ভুলই করেনি৷

অন্যদিকে রোনালদো চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মেসি মনে করেন রোনালদো ব্যালন ডি’অর পাওয়ার কোনো যোগ্যতা নেই৷এ কথা তিনি ‘দিয়ারিও গোল’ নামে স্প্যানিশ প্রকাশনকে জানিয়েছেন৷ মেসি মনে করছেন রোনাল্ডো অতিরিক্ত অনেক সুবিধা পাচ্ছেন৷

কেন ব্যালন ডি’অর রোনালদোর

ফের ব্যালন ডি’অর পেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো৷ এ নিয়ে পাঁচবার ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলার হলেন সিআর৭৷ আগের বছর লিওনেল মেসিকে হারিয়ে তিনিই সেরা হয়েছিলেন৷ এবারও আর্জেন্টিনার ওই জনপ্রিয় তারকা ধরাশায়ী হলেন রোনালদোর কাছে৷ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের নিচে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ফিফার পক্ষ থেকে ওই ট্রফি তুলে দেয়া হয়৷

বিশ্ব ফুটবলে সর্বোচ্চ সম্মান হিসেবেই বিবেচিত হয় এই পুরস্কার৷ ১৯৫৬ সালে ফরাসি পত্রিকা ‘ফ্রান্স ফুটবল’-এর হাত ধরে এই পুরস্কারের সূচনা হয়েছিল৷ ইতিহাসের সেই ধারা আজও প্রবহমান ফুটবল জগতে৷ তারপর থেকে কেটে গেছে প্রায় পাঁচ যুগেরও বেশি সময়৷ এখনও এই পুরস্কার জিততে তৎপর থাকেন বিশ্বের সমস্ত ফুটবলাররা৷ গত কয়েক বছরে যদিও সেরার লড়াই চলছে মূলত মেসি ও রোনালদোর মধ্যে৷ এবারও তাই হয়েছে৷ তবে বার্সেলোনার তারকা ফুটবলার মেসিকে হারিয়ে দিয়েছেন সিআর৭৷ ১৭৩ জন সাংবাদিকের ভোটে তিনিই হয়েছেন সেরা৷ মেসি এবার দ্বিতীয় স্থানে৷ তিন নম্বরে রয়েছেন নেইমার৷

গত অক্টোবরে মেসিকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের জন্য ‘দ্য বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার হয়েছিলেন রোনাল্ডো৷ ব্যাক্তিগত দুরন্ত পারফরম্যান্স ছাড়াও রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে চারটি খেতাব জেতায় ব্যালন ডি’’অরের পঞ্চম খেতাব জেতা প্রায় নিশ্চিত করে ফেলছিলেন পর্তুগিজ অধিনায়ক৷

২০০৮ সালে প্রথমবার ব্যালন ডি’’অর পেয়েছিলেন রোনালদো৷ ২০১৩ ও ২০১৪ সালেও ফিফা ব্যালন ডি’’অর জেতেন রিয়াল মাদ্রিদের এই তারকা ফুটবলার৷ তারপর ফিফার ব্যালন ডি’’অর প্রদানে এসেছে বিবর্তন৷ ২০১৬ সালেও ব্যালন ডি’’অর জেতেন রোনালদো৷ চলতি বছরে এই পুরস্কার পেয়ে রোনাল্ডো ছুঁয়ে ফেললেন চির প্রতিদ্বন্দ্বী মেসিকে৷ দুই তারকাই পাঁচবার করে জিতলেন ব্যালন ডি’’অর৷

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও লা লিগার জয়ে গত মরশুমে রোনালদোর গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল৷ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে রোনাল্ডোই প্রথম ফুটবলার হিসেবে নক আউট পর্বে ৫০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন৷ তাছাড়াও দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে নজির গড়েন তিনি৷ গত মে মাসে রিয়াল মাদ্রিদের সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৪০০ ব্যাক্তিগত গোল করে ক্লাব ইতিহাসে সেরা ফুটবলার হিসেবেও নির্বাচিত হন সিআর৭৷

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫