ঢাকা, মঙ্গলবার,১২ ডিসেম্বর ২০১৭

অন্যদিগন্ত

রাজস্থানে মুসলিম যুবককে পুড়িয়ে হত্যা

ইন্ডিয়া টুডে

০৮ ডিসেম্বর ২০১৭,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ভারতে বিজেপি-শাসিত রাজস্থানে এক মুসলিম যুবককে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। কথিত লাভ জিহাদের অভিযোগে ওই যুবককে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
পশ্চিমবঙ্গের মালদহ জেলার বাসিন্দা মুহাম্মদ আফরাজুলকে পিটিয়ে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর পরে তার গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। নির্মমভাবে হত্যার ওই ঘটনার ভিডিওচিত্র বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে ওঠায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।
মুহাম্মদ আফরাজুল নামে ওই শ্রমিক প্রাণ রা করার জন্য বারবার আকুতি জানালেও হত্যাকারী ঘাতকের হৃদয় তাতে সাড়া দেয়নি। পুলিশ এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শম্ভুলাল রেগারকে সকালে গ্রেফতার করেছে।
তার কাছ থেকে একটি কুঠার ও মোটরবাইক উদ্ধার হয়েছে।
ওই ঘটনার পরে রাজস্থানের রাজসামন্দ এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় ইন্টারনেটে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।
মুহাম্মদ আফরাজুল রাজস্থানে শ্রমিকের কাজ করতে গিয়ে সেখানে রুমা রানী নামে ভিনধর্মী এক মেয়ের প্রেমে পড়ে তাকে বিয়ে করেন। এরপর থেকে ওই পরিবারের রোষানলে পড়েন আফরাজুল। অবশেষে নৃশংস হত্যার শিকার হলেন তিনি।
এ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের প্রদেশ কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট অধীর চৌধুরী তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, ওই ঘটনা অত্যন্ত নিন্দার ও উদ্বেগের। ভারতের কিছু ব্যক্তি ও গোষ্ঠী যাদের হাতে মতা আছে তারা ঠিক করে দিচ্ছে লাভ জিহাদ কাকে বলে, ভারতের সংস্কৃতি কাকে বলে। ভারতে কে কী খাবে না খাবে তারা ঠিক করে দিচ্ছে। তাদের মনমতো না হলে পিটিয়ে হত্যা করার ঘটনা ঘটছে। স্বাধীন ভারতে এ ধরনের বর্বরতা পুরো দেশবাসীর কাছে চিন্তা ও উদ্বেগের।
অধীর চৌধুরী বলেন, আমি ওই ঘটনার নিন্দা করাসহ ঘৃণা ব্যক্ত করছি। এর পাশাপাশি ওই ঘটনাকে নিয়ে আমরা ভারত সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে রূপান্তরিত করব। সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে ভারতের মানুষের কণ্ঠস্বর এ ধরনের বর্বরোচিত আক্রমণকে প্রতিহত করতে পারে বলে আমরা মনে করি। পুরো ভারতজুড়ে যেভাবে কোথাও গোশত খাওয়ার নামে, কোথাও লাভ জিহাদের নামে একের পর এক হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হচ্ছে তাতে মনে হচ্ছে ভারতের গণতন্ত্র ক্রমেই বিপন্নতার দিকে এগিয়ে চলছে।

 

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫