ঢাকা, শুক্রবার,১৫ ডিসেম্বর ২০১৭

চট্টগ্রাম

রোহিঙ্গাপল্লীতে শীতের প্রভাব

কক্সবাজার (দক্ষিণ) সংবাদদাতা

০৭ ডিসেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৪:৩৯


প্রিন্ট
রোহিঙ্গাপল্লীতে শীতের প্রভাব

রোহিঙ্গাপল্লীতে শীতের প্রভাব

শীতের প্রভাব পড়েছে রোহিঙ্গাপল্লীগুলোতে। পাতলা কাগজ, কাপড় বা পলিথিনে মোড়ানো ঝুপরি ঘরগুলোতে থাকতে কষ্ট হচ্ছে মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত মানুষগুলোর। শীতবস্ত্রের অভাবে কষ্টে আছেন তারা। বিশেষ করে বৃদ্ধ ও শিশুদের করুণ অবস্থা। সন্ধ্যা নামলে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে ঘন কুয়াশা নেমে আসে।

মঙ্গলবার সরেজমিন কুতুপালং ক্যাম্পে গিয়ে দেখা যায়, আগন্তুক লোকজনের কাছে শীতবস্ত্রের জন্য ধরনা দিচ্ছেন রোহিঙ্গারা। তারা বলছেন, ভাত নয়, কাপড় দরকার। শীতে তারা রাতে ঘুমুতে পারেন না। কথা হয় পুরাতন টালের ৭৫ বয়সী রোহিঙ্গা নারী আয়েশার সাথে। তিনি বলেন, বয়স ও শীতের কারণে ঘর থেকে বের হতে পারি না। একসময় ভিক্ষা করতাম। এখন ভিক্ষাও করি না। কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। গত পাঁচ দিন ধরে গায়ে জ্বর, কোমরে ব্যথা। হাঁটাচলা করতে পারি না। এক টুকরো শীতের কাপড়ও নেই আমার। আয়েশার স্বামী মুহাম্মদ হোছন মারা গেছেন প্রায় ২০ বছর আগে। চার ছেলে ও দুই মেয়ে থাকে আলাদা সংসারে। তারা কোনো খোঁজ নেয় না।

এ সময় কথা হয় আরজ নামে আরেক বৃদ্ধার সাথে। স্বামীহারা এই নারীর এক ছেলে আছে। তিনি বলেন, শীতে খুব কষ্ট পাচ্ছি। সারা রাত বাতাস আর কুয়াশার কারণে ঘুম হয় না। একটি শীতের কাপড় কেউ দেয়নি। তিন দিন ধরে ঠাণ্ডা লেগেছে। ওষুধ খাওয়ার টাকা নেই। এমন ঠাণ্ডা লেগেছে যে, কথা বলতে পারছি না। এই চিত্র পুরো রোহিঙ্গাপল্লীর।

এ দিকে রোহিঙ্গাদের মঝে ঠাণ্ডাজনিত রোগসহ নানা চিকিৎসার জন্য প্রায় এক কোটি ৩২ লাখ ৬০ হাজার টাকার ওষুধ দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর। দেয়া হয়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় চাল, ডাল, চিঁড়া ইত্যাদির এক হাজার প্যাকেট খাবারসামগ্রী ও দেড় মেট্রিক টন চাল।

মঙ্গলবার দুপুরে উখিয়ার কুতুপালং ডি ব্লক আর্মি ক্যাম্পে ওষুধ ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমান। পরে তিনি সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, অধিকাংশ রোহিঙ্গা নানা রোগ ব্যাধিতে আক্রান্ত। সরকার পরিচালিত মেডিক্যাল ক্যাম্পগুলোতে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ইতোমধ্যে এক কোটি ৩২ লাখ ৬০ হাজার টাকার অত্যাবশ্যকীয় ও জীবন রক্ষাকারী সব ওষুধ সিভিল সার্জন অফিসে সরবরাহ করা হয়েছে। অন্য দিকে নিগৃহীত রোহিঙ্গাদের চিকিৎসাসেবা সম্প্রসারণ করার লক্ষ্যে মেডিক্যাল ক্যাম্প সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য ওষুধ শিল্প সমিতি সহায়তা দিচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় চাল, ডাল, চিঁড়া ইত্যাদির এক হাজার প্যাকেট খাবারসামগ্রী এবং দেড় মেট্রিক টন চাল রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিতরণ করতে সেনাবাহিনীর কাছে সরবরাহ করা হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির মহাসচিব এস এম শফিউজ্জামান খোকন, ফার্মিক ল্যাবরেটরিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা: আহমদ রবিন ইস্পাহানী। ওষুধ শিল্প সমিতির সার্বিক সহায়তায় ত্রাণ ও ওষুধগুলো দেয়া হয়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫