ঢাকা, শনিবার,১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

থেরাপি

আমরা অ্যাসাইনমেন্ট করার জন্য যেভাবে ইন্টারনেট ডেটা শেষ করি

০৭ ডিসেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

বিশ্ববিদ্যালয়-জীবনে অ্যাসাইনমেন্ট একটি ঝামেলার কাজ। আমরা এই ঝামেলাপূর্ণ অ্যাসাইনমেন্ট করার জন্য যেভাবে ইন্টারনেট ডেটা শেষ করি,
তা জানাচ্ছেন সুদিপ্ত কুমার নাগ

ষ প্রথমে শিক কোনো নির্দিষ্ট বিষয়ে অ্যাসাইনমেন্ট দেন।
ষ অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেয়ার সাত দিন আগে মনে পড়ে যে, আমাদের অ্যাসাইনমেন্ট করা হয়নি।
ষ এরপর ইন্টারনেটে গুগলে অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য সংগ্রহের জন্য সার্চ করা হয়।
ষ তারপর মনে পড়ে যে, ইন্টারনেট ডেটা তেমন নেই। এরপর সাত দিন মেয়াদি এক জিবি ডেটাপ্যাক কেনা হয়।
ষ এভাবে দুই দিন চলে যায় বাকি থাকে পাঁচ দিন।
ষ তারপর অ্যাসাইনমেন্ট করার জন্য ল্যাপটপ বা ফোনে নেট অন করা হয়।
ষ এরপর চিন্তা করা হয়, অ্যাসাইনমেন্ট পরেও করা যাবে, বরং কিছু নাটক বা মুভি দেখি। এ সময় অ্যাসাইনমেন্ট না করে ইন্টারনেটে কিছু ভিডিও দেখা হয়।
ষ এবার মনে মনে ভাবা হয়, অ্যাসাইনমেন্ট করতে এত ডেটা লাগবে না। এরপর কিছু নাটক আর মুভি ডাউনলোড করা হয়।
ষ এরপর কয়েক দিন শুধু সেই ডেটা প্যাকেজ দিয়ে ফেসবুক চালানো হয়।
ষ এভাবে চলার পর অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেয়ার আগের দিনরাতে খেয়াল হয় যে, অ্যাসাইনমেন্ট করা হয়নি।
ষ এরপর ল্যাপটপে বা ফোনে ইন্টারনেট অন করে অ্যাসাইনমেন্টের বিষয় সম্পর্কে সার্চ দেয়া হয়। এরপর ফোন অপারেটর থেকে মেসেজ আসে, ইন্টারনেট ডেটা শেষ।
ষ শেষমেশ যে অ্যাসাইনমেন্ট করার জন্য আবার ইন্টারনেট ডেটা কেনা হয়, সেই ডেটা মুভি দেখে আর ফেসবুক চালিয়ে শেষ করা হয়, কিন্তু অ্যাসাইনমেন্ট আর করা হয় না।
ষ পরবর্তীকালে সিনিয়র কোনো বড় ভাইয়ের আগের করা অ্যাসাইনমেন্ট কপি করে জমা দেয়া হয়।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫