ঢাকা, শনিবার,১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

ঢাকা

সন্ত্রাসী হামলায় সৌদি প্রবাসী নিহত

শরীয়তপুর সংবাদদাতা

০৬ ডিসেম্বর ২০১৭,বুধবার, ১০:৪০


প্রিন্ট

সৌদি আরবের রিয়াদ শহরে আজিজুল মাদবর মাদবর (৪৫) নামে এক জনকে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। ঘটনার পর সৌদি আরবের পুলিশ সিসি টিভির ফুটেজ দেখে একজনকে গ্রেফতার করেছে। নিহত আজিজুল মাদবর শরীয়তপুর সদর উপজেলার ডোমসার ইউনিয়নের সুজনদল গ্রামের মৃত হাজী নুর মোহাম্মদ মাদবরের ছেলে। সোমবার সৌদি আরবের রিয়াদ শহরে সন্ত্রাসীরা নির্মমভাবে কুপিয়ে তাকে হত্যা করে বলে জানিয়েছে তার পরিবার। নিহত আজিজুলের মৃত্যুর খবর গ্রামের বাড়িতে পৌছলে মা ভাইবোনসহ স্বজনদের কান্নায় বাতাশ ভারী হয়ে উঠে। নিহতের স্বজনরা সরকারের কাছে দ্রুত সময়ে লাশ ফেরত পাওয়ার জোর দাবী জানিয়েছেন। 

নিহত আজিজুল মাদবরের ভাই বাবুল মাদবর ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, প্রায় ২২ বছর আগে ভাগ্যের চাকা ফিরাতে শরীয়তপুর সদর উপজেলার ডোমসার ইউনিয়নের সুজনদল গ্রামের মৃত হাজী নুর মোহাম্মদ মাদবরের ছেলে সৌদি আরবে পাড়ি জমায় আজিজুল মাদবর। পরে সে সেখানে একটি ওয়ার্কসপের ব্যবসা শরু করে। প্রায় ১২ বছর ধরে তিনি স্ত্রী ২ ছেলে ও ২ মেয়ে এবং ১ ছোট ভাইকে নিয়ে সৌদি আরবের রিয়াদ শহরে ব্যবসা ও বসবাস করে আসছিলেন।
গতকাল দুপুরে খবর আসে ওয়ার্কসপ থেকে বাইরে আসলেই সন্ত্রাসীরা আজিজুল মাদবরকে নির্মম ভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। এ সংবাদ পেয়ে দেশের বাড়ীতে থাকা নিহত আজিজুলের বৃদ্ধা মা বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন। নেমে আসে পুড়ো এলাকায় শোকের ছায়া। স্বজনদের কান্নায় সুজনদল গ্রামের বাতাশ ভাড়ী হয়ে উঠছে। এ ঘটনার পর সৌদি আরবের পুলিশ সিসি টিভির ফুটেজ দেখে একজনকে গ্রেফতার করেছে বলে জানিয়েছেন নিহত আজিজুলের ভাই বাবুল মাদবর।
আজিজুল শুধু নিজের পরিবার নয় ভাগ্য ফিরিয়েছেন আত্মিয় স্বজনদেরও। তিনি সৌদি যাওয়ার পর নিজের ২ ভাই ও একাধিক চাচাতো ভাইকে সৌদি আবর নেয়। এদের মধ্যে ৪ বছর আগে ছোট ভাই সিরাজকে গাড়ি চাপায়মারা যায়। একই ভাবে আরেক চাচাতো ভাইও ২ বছর আগে মারাযায়। তবে পরিবারের দাবী তাদেরকেও পরিকল্পিত গাড়ী চাপা দিয়ে ভাবে হত্যা করেছে সৌদি আরবের সন্ত্রাসীরা।
আজিজুল মাদবরের ভাই বাবুল মাদবর বলেন, সোমবার সকালে বাসা থেকে বের হয়ে একটি ওয়ার্কসপে একজন বাংশাদেশীর সাথে দেখা বলতে গিয়ে ছিলেন আজিজুল। দেখা করে ফেরার পথে সন্ত্রাসীরা তার মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। আজিজুল পিছন ফিরে তাকাতেই তাকে ধারালো অস্ত্রদিয়ে কুপিয়ে আহত করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পাশ্ববর্তী একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন।
এব্যাপারে শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল হোসাইন খান বলেন, এ বিষয়ে কোন তথ্য এখনো আমরা পাইনি বা কেউ আমাকে এ বিষয়ে কিছুই জানায়নি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫