ঢাকা, রবিবার,১৭ ডিসেম্বর ২০১৭

রাজনীতি

টাকা কম দিয়ে দোকানি-কর্মচারীকে মারধর ছাত্রলীগ নেতার

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

০৫ ডিসেম্বর ২০১৭,মঙ্গলবার, ২০:২৬ | আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০১৭,মঙ্গলবার, ২০:৪৭


প্রিন্ট
প্রতিকী ছবি

প্রতিকী ছবি

দোকানে খেয়ে টাকা কম দেয়াকে কেন্দ্র করে বাগ্বিতণ্ডার এক পর্যায়ে দোকানি ও কর্মচারীকে দফায় দফায় মারধর করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি সোহানুর রহমান সোহানের অনুসারীরা। মারধরের পরে দোকান বন্ধ করে দিতে বলে সোহান। রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ফটকের সামনের দোকানে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার মূল অভিযুক্ত তারেক বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। টিএসসিতে নারী কেলেঙ্কারির ঘটনায় জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়ে দুই বছরের জন্য তাকে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানায়, সন্ধ্যায় ভাই ভাই হোটেলে খেতে যায় সোহানের অনুসারী ও অন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী তারেক। ৭৫ টাকা বিল হলে সে দোকানদারকে ৫ টাকা কম দেয়। কিন্তু খায়রুল নামের ওই দোকান কর্মচারী তার কাছে ৫ টাকা চায়। পরে বাগ্বিতণ্ডার এক পর্যায়ে খায়রুলের ওপর আক্রমণ করে তারেক। এ সময় দোকান কর্মচারীরা তার মাথায় আঘাত করে।

সূত্র আরো জানায়, এর পরে ক্ষিপ্ত হয়ে তারেকের অনুসারীরা খায়রুলকে দোকানে থাকা শিকল দিয়ে বেঁধে রাখে। এ সময় দোকানের এক কর্মচারীর ছোট সন্তানকেও মারধর করে তারা। পরে দোকানের মালিক কবির আসলে তাকেও মারধর করে তারেক ও তার সাথীরা। পরে ছাত্রলীগ নেতা সোহান ঘটনাস্থলে আসলে তার সাথে থাকা কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা আবার দোকানি-কর্মচারীকে মারধর করে। এ সময় এক সপ্তাহের জন্য দোকান বন্ধ রাখার কথা বলে সোহান। পরে দোকানদার দোকান বন্ধ করতে দেরি করায় আবারও তাদের মারধর করে তারা।

দোকানের মালিক কবির ঘটনাটি স্বীকার করে বলেন, সোহানের লোকজন এসে আমাদের ব্যাপক মারধর করে। এসময় ১ সপ্তাহ পর্যন্ত দোকান বন্ধ রাখার হুকুম দেয়।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে তারেক বলেন, ৭৫ টাকা বিল হয়েছিল। পকেটে টাকা না থাকায় ৫ টাকা দিতে পারিনি। কিন্তু কর্মচারী এ নিয়ে অপমানজনক কথা বলে। তাকে বুঝিয়ে বলার পরেও না বোঝায় হাতাহাতি হয়েছে।

জানতে চাইলে শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান বলেন, আমার সামনে মারধরের ঘটনা ঘটেনি। পরে তাদেরকে দোকান খোলা রাখতে বলা হয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫