ফের জাতীয় দল নিয়ে তৎপরতা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ফুটবলের উন্নয়নে মহাপরিকল্পনা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে)। তিন বিদেশী কোচিংস্টাফ জাতীয় দলের জন্য। অথচ ১৪ মাস হলো আন্তর্জাতিক ম্যাচের বাইরে জাতীয় ফুটবল দল। আধুনিক ফুটবলের সাথে সম্পৃক্ত কোনো দেশের জাতীয় দল কি এভাবে লম্বা সময় আন্তর্জাতিক ফুটবলের বাইরে থাকে? তা শুধু এদেশেই সম্ভব। অবশ্য শেষ পর্যন্ত আবার জাতীয় দল নিয়ে তৎপরতা শুরু করেছে বাফুফে। না করেও যে উপায় নেই। আগামী বছর বেশ কিছু খেলা আছে বাংলাদেশ দলের। তাই আবার নড়েচড়ে বসা। গত পরশু জাতীয় দলের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে মিটিং হয়েছে বাফুফে সভাপতি, ন্যাশনাল টিম কমিটির চেয়ারম্যান, বাফুফের টেকনিক্যাল ও স্ট্র্যাটিজিক্যাল ডিরেক্টর এবং জাতীয় দলের হেড কোচের মধ্যে। সভায় জাতীয় দলের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানাতে ১৫ দিনের সময় দেয়া হয় টেকনিক্যাল ডিরেক্টর ও কোচকে।

গত বছর ১০ অক্টোবর সর্বশেষ ভুটানের সাথে ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ। ওই খেলায় হারের পর ক্ষোভে বাফুফে আর মাধা ঘামায়নি জাতীয় দল নিয়ে। এর মধ্যে এএফসি সলিডারিটি কাপে এন্ট্রি করেও না খেলে ২০ হাজার ডলার জরিমানা দিয়েছে বাফুফে। খেলেনি কোনো ফিফা প্রীতি ম্যাচেও। সব মিলিয়েই র‌্যাংকিংয়ে এখন অবস্থান ১৯২তে। অবশ্য ২০১৭ সালে সবগুলো বয়সভিত্তিক আসরে দল পাঠিয়েছে বাংলাদেশ। আগামী বছর সাফ ফুটবল। আছে এশিয়ান গেমস। মার্চ-এপ্রিলে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ করারও পরিকল্পনা ফুটবল ফেডারেশনের। তাই জাতীয় দল নিয়ে এখন সময় ব্যয় করা। ১৩ জানুয়ারি লিগ শেষে জাতীয় দলের ফুটবলারদের নিয়ে ক্যাম্প করার চিন্তভাবনা চলছে। কোচ অ্যান্ড্রু অর্ড প্রিমিয়ার লিগের খেলা দেখছেন নিয়মিত। খেলোয়াড় বাছাইয়ের পর্বটাও চলছে এতে।

জানুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকে এএফসি কাপের প্লে-অফ কোয়ালিফায়ার্স শুরু। এরপর প্লে-অফ ও গ্রুপ পর্যায়ের খেলা। বাফুফের পছন্দের দেশগুলোর ক্লাবরা ব্যস্ত থাকবে এই আসর নিয়ে। এ কারণে এই দেশগুলো তাদের জাতীয় দল পাঠাতে পারবে না বঙ্গবন্ধু কাপে। জুনে বিশ্বকাপ। ফেব্রুয়ারিতে চট্টগ্রামে হওয়ার কথা শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ফুটবল। তাই মার্চ বা এপ্রিল ছাড়া বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল আয়োজন সম্ভব নয় বাফুফের পক্ষে। বাফুফে সেক্রেটারী আবু নাইম সোহাগ জানান, জাতীয় দল নিয়েই হবে এই টুর্নামেন্ট। এরপর আগস্টে জাকার্তা এশিয়ান গেমসে দল দল পাঠাবে বাফুফে। সেপ্টেম্বরে ঢাকায় বসবে সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ। বাফুফের হাতে সিনিয়র জাতীয় দলের এই তিনটি আসর চূড়ান্ত। এ ছাড়া প্রীতি ম্যাচ খেলার প্রস্তাব দিয়ে বাফুফের সম্মতির অপেক্ষায় আফগানিস্তান, মিয়ানমার, কম্বোডিয়া ও মঙ্গোলিয়া। এদের কারো কারো আগ্রহ বঙ্গবন্ধু কাপেও। ফিফা প্রীতি ম্যাচ খেলারও পরিকল্পনা আছে ফেডারেশনের।

উল্লেখ্য, ঘোষণা দিয়েও ২০১৭ সালে বঙ্গবন্ধু কাপ করতে পারেনি বাফুফে। এ দিকে প্রতিবছর না করে এক বছর পরপর শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ফুটবল করার চিন্তাভাবনা করছে চট্টগ্রামের আয়োজকেরা।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.