ঢাকা, শুক্রবার,১৫ ডিসেম্বর ২০১৭

আমার ঢাকা

ঢাকায় এক বছরে উবারের সফলতা ও ব্যর্থতা

আহমেদ ইফতেখার

০৫ ডিসেম্বর ২০১৭,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

অন-ডিমান্ড রাইড শেয়ারিং কোম্পানি উবার আজ ঢাকায় প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রমের এক বছর পূর্তি উদযাপন করেছে। ২০১৬ সালের ২২ নভেম্বর ঢাকায় কার্যক্রম শুরু করে উবার। বিশেষ প্রযুক্তির সহায়তায় যাত্রীদের সহজে যাতায়াতের সুযোগ দেয়ার মাধ্যমে শহরের পরিবহনব্যবস্থার উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। অবাক করার ব্যাপার হলো, গত রোববার বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনার এক বছর শেষে সাংবাদিকদের আমন্ত্রণ জানালেও কোনো প্রশ্নের উত্তর দিতে রাজি হয়নি উবার কর্তৃপক্ষ।
রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ক্যালিফোর্নিয়া-ভিত্তিক উবারের ভারত ও দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের সেন্ট্রাল অপারেশনের হেড প্রদীপ পরমেশ্বরণ বলেন, প্রতিনিয়ত গাড়ির সংখ্যা বেড়ে চলা ঢাকা শহরের যাতায়াতব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে গিয়ে আমরা চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হই। স্মার্টফোনের আধুনিক প্রযুক্তি ও বর্তমান অবকাঠামো ব্যবহার করেই জনসাধারণের জন্য উপযুক্ত যাতায়াতব্যবস্থা নিশ্চিত করা সম্ভব। গেল নভেম্বের মাসেই ১৬ লাখবার উবার ডাকা হয়েছে, শুধু ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসেই ২ লাখেরও বেশি মানুষ উবারে ভ্রমণ করেছেন। প্রতি মাসে ১০ হাজারের বেশি চালক এবং প্রতিদিন শত শত চালক উবারে যোগদান করছেন। গন্তব্য হিসেবে উত্তরা, বনানী ও গুলশান-১-এ সবচেয়ে বেশিসংখ্যক যাত্রী যাতায়াত করে থাকেন। বাংলাদেশে এক বছরের অভিজ্ঞতাকে ‘ইতিবাচক’ বললেও এ সময়ে তাদের আয়ের ব্যাপারে কোনো তথ্য দিতে অপারগতা জানান। তিনি বলেন, আমি এটা বলতে পারব না। আমরা এখনো বিনিয়োগের পর্যায়ে আছি। ঢাকার পর চট্টগ্রাম ও সিলেটেও সেবা চালুর পরিকল্পনা রয়েছে উবারের। পাশাপাশি ‘উবারপুল’ নামে একটি সেবাও চালুর চিন্তাভাবনা চলছে। এটি চালু হলে একজন গ্রাহক উবারের গাড়ি নিলে তার সাথে আরো কয়েকজনও ওই গাড়িতে ভ্রমণ করতে পারবেন। এতে রাইড এবং খরচও ভাগাভাগির সুবিধা পাওয়া যাবে।
ঢাকায় নামার দুই মাসের মাথায় ভাড়া বাড়ানোর ঘোষণা দেয় উবার। অন্যান্য দেশের চেয়ে বাংলাদেশে ভাড়া বেশি হওয়ার বিষয়টি স্বীকারও করে নিয়েছে। এ জন্য তিনি গাড়ির বেশি দামকে কারণ হিসেবে মনে করেন।
যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোভিত্তিক পরিবহন প্রযুক্তিবিষয়ক প্রতিষ্ঠান উবার টেকনোলজিস বর্তমানে বিশ্বের ৬৩৩টি শহরে সেবা দিচ্ছে। তবে তথ্য চুরির বড় ধরনের ঘটনায় সমালোচিত হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। গত বছর পাঁচ কোটি ৭০ লাখ চালক ও যাত্রীর তথ্য চুরির তথ্য গোপনের খবর প্রকাশের পর সম্প্রতি এর তিন শীর্ষ কর্মকর্তা পদত্যাগ করেন। এ প্রসঙ্গে প্রদীপ পরমেশ্বরণ বলেন, তাদের প্রধান নির্বাহী এরই মধ্যে বলেছেন, যা ঘটেছে তা ঠিক হয়নি এবং এটা একটা ভুল ছিল।
সংবাদ সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন উবারের ভারত ও দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের প্রেসিডেন্ট অমিত জৈন শুরুতে বক্তব্য রাখেন। পরে উবারের ঢাকা ও কলকাতার জেনারেল ম্যানেজার অর্পিত মুন্ডা বক্তব্য দেন। যদিও অনুষ্ঠানে উবারের বাংলাদেশে নিযুক্ত কোনো কর্মকর্তাকে দেখা যায়নি। বাংলাদেশে উবারের কোনো কর্মকর্তা আছেন কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে অর্পিত মুন্ডা বলেন, এ বিষয়ে তিনি অবহিত নন। সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকেরা বিভিন্ন প্রশ্ন করতে চাইলে উবার কর্তারা কেউ সরাসরি উত্তর দিতে রাজি হননি। এ সময় সংবাদ সম্মেলন শেষ করে দেয়া হয়। পরে অর্পিত মুন্ডা আলাদা আলাদাভাবে কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন। সেখানেও সব প্রশ্নের উত্তর দিতে চাননি তিনি। এমনকি বাংলাদেশ থেকে উবার কী প্রক্রিয়া বা কোনো ব্যাংকিং পদ্ধতিতে লাভের অংশ নেবেÑ তা জানতে চাইলে কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হননি অর্পিত মুন্ডা। তবে রাইডার, ড্রাইভার-পার্টনার সংখ্যা ও রাইডের সম্ভাব্য তথ্য জানায় উবার। তিনি জানান, এ পর্যন্ত ১.৩ মিলিয়ন রাইড হয়েছে উবারে। উবারের একজন চালক ঢাকায় সর্বোচ্চ মোট ৩৩৫০টি ট্রিপ দিয়েছেন। ট্রিপগুলোয় সর্বমোট যে দূরত্ব অতিক্রম করা হয়েছে তা ঢাকা থেকে সান ফ্রানসিসকোর দূরত্বের দ্বিগুণ! ঢাকার একজন যাত্রী উবারে সর্বোচ্চ ৬৯৫টি ট্রিপ নিয়েছেন। ট্রিপগুলোয় সর্বমোট যে দূরত্ব অতিক্রম করা হয়েছে তা ঢাকা থেকে টোকিওর দূরত্বের সমান।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫