ঢাকা, শনিবার,১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

ঢাকা

স্কুলে যাওয়া হলো না তুহিনের

শরীয়তপুর সংবাদদাতা

০৪ ডিসেম্বর ২০১৭,সোমবার, ১৫:৪১


প্রিন্ট

স্কুলে যাওয়া হলো না তুহিনের। প্রতিদিনের মতো আজ সোমবার সকালেও ব্রাক পরিচালিত স্কুলের উদ্দেশে বই-খাতা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়েছিল তুহিন (৬)। কিন্তু স্কুলে আর যাওয়া হলো না তার। এর আগেই ঘাতক ইজিবাইক কেড়ে নিলো শিশু তুহিনের প্রাণ।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে শরীয়তপুর-ডামুড্যা সড়কে ডামুড্যা উপজেলার তিলই গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। তুহিনকে হারিয়ে তার বাবা-মা এখন বাকরুদ্ধ। তুহিনের স্কুলেও নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

নিহত তুহিন তিলই গ্রামের উকিল বাড়িতে অবস্থিত ব্রাক পরিচালিত গণশিক্ষা বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ও তিলই গ্রামের তাজুল ইসলাম ছৈয়ালের ছেলে। তুহিন তিন ভাই বোনের মধ্যে সকলের ছোট।

স্থানীয় মমিন, সরদার ও ডামুড্যা থানা সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকাল ১০টার দিকে তুহিন স্কুলে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। পথিমধ্যে শরীয়তপুর-ডামুড্যা সড়কের তিলই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় বড়িরহাট থেকে ছেড়ে আসা একটি ইজিবাইক পিছন দিক থেকে তাকে ধাক্কা দিলে সে পাকা সড়কে পড়ে মারাত্মক আহত হয়। শিশুটির মাথায় আঘাত লেগে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। স্থানীয় লোকজন শিশুটিকে উদ্ধার করে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পর স্থানীয়রা ইজিবাইকটিকে আটক করে রাখে।

ডামুড্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা: মো: ইমরান হোসেন বলেন, শিশুটি মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসেন তার স্বজনরা। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণজনিত কারণে শিশুটির মৃত্যু হয়।

ডামুড্যা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মাহমুদুর রহমান চৌধুরী বলেন, শিশুটি ইজি বাইকের ধাক্কায় নিহত হয়েছে। তবে উভয় পক্ষ মীমাংসা হয়ে যাওয়ায় কোনো মামলা হয়নি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫