ঢাকা, সোমবার,১৮ ডিসেম্বর ২০১৭

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা

'আমেরিকার জন্য উ. কোরিয়া সবচেয়ে বড় হুমকি'

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০৪ ডিসেম্বর ২০১৭,সোমবার, ১০:৫২ | আপডেট: ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭,সোমবার, ১১:০৭


প্রিন্ট
উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা

মার্কিন প্রেসিডেন্টের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এইচআর ম্যাকমাস্টার বলেছেন, এই মুহূর্তে আমেরিকার জন্য উত্তর কোরিয়া হচ্ছে ‘সবচেয়ে বড় হুমকি’। তিনি আরো বলেছেন, পিয়ংইয়ংয়ের এই হুমকি প্রতিহত করার ক্ষেত্রে ওয়াশিংটন ‘সময় ক্ষেপণ করতে পারে না।’

ম্যাকমাস্টার বলেন, উত্তর কোরিয়ার সাথে যুদ্ধের আশঙ্কা প্রতিদিন বাড়ছে কিন্তু সামরিক সঙ্ঘাত সমস্যার একমাত্র সমাধান নয়।

উত্তর কোরিয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যেকোনো স্থানে হামলা চালানোর মতো একটি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করার তিন দিন পর এ বক্তব্য দিলেন মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা।

এর আগে গত সেপ্টেম্বর মাসে উত্তর কোরিয়া তার ষষ্ঠ পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালায়। পিয়ংইয়ং দাবি করছে, আইসিবিএমের মাধ্যমে আমেরিকায় পরমাণু বোমা হামলা চালানোর সক্ষমতা অর্জন করেছে দেশটি। আমেরিকা থেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে, উত্তর কোরিয়ার সম্ভাব্য ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রতিহত করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম উপকূলে নতুন করে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে।

হোয়াইট হাউজের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রোববার ক্যালিফোর্নিয়ায় এক সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের কথা উল্লেখ করে বলেন, “সশস্ত্র সঙ্ঘাত ছাড়াও এই সমস্যা প্রতিহত করার উপায় রয়েছে। কিন্তু নষ্ট করার মতো সময় আমাদের হাতে নেই কারণ তিনি (তার লক্ষ্যের) অনেকটা কাছাকাছি পৌঁছে গেছেন।”

উত্তর কোরিয়া যাতে সহজে আর ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে না পারে সেজন্য তিনি দেশটিতে তেল সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দিতে চীনের প্রতি আহ্বান জানান। ম্যাকমাস্টার দাবি করেন, “জ্বালানী ছাড়া ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা সম্ভব নয়।”

পশ্চিম উপকূলে ক্ষেপণাস্ত্রবিধ্বংসী ব্যবস্থা মোতায়েন যুক্তরাষ্ট্রের

ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ঠেকাতে নতুন ক্ষেপণাস্ত্রবিধ্বংসী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বসাতে যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম উপকূলে জায়গা বাছাই করছেন পেন্টাগন। মার্কিন কংগ্রেসের দুই সদস্য এ তথ্য জানিয়েছেন। উত্তর কোরিয়ার ধারাবাহিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে উদ্বেগ বাড়ছে। ফলে আত্মরক্ষার প্রস্তুতি আরো দৃঢ় করার দিকে এগোচ্ছে দেশটি।

নতুন এ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দক্ষিণ কোরিয়ায় স্থাপিত ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রবিধ্বংসী টার্মিনাল হাই অলটিট্যুড এরিয়া ডিফেন্সের (থাড) মতো হবে বলে ধারণা করছেন পর্যবেক্ষকেরা; পিয়ংইয়ংয়ের সম্ভাব্য ক্ষেপণাস্ত্র হামলা এড়াতে ইতোমধ্যেই দক্ষিণ কোরিয়ায় ওই অত্যাধুনিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা মোতায়েন করা হয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির সাম্প্রতিক গতি এবং আগামী কয়েক বছরের মধ্যে দেশটি যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে পারমাণবিক বোমাযুক্ত ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর সক্ষমতা অর্জন করতে পারে আশঙ্কায় মার্কিন সরকারের ওপর অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বসানোর চাপ বাড়ছিল। শুক্রবার দক্ষিণ কোরিয়া জানিয়েছে, গত সপ্তাহে পিয়ংইয়ং নতুন ধরনের একটি আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের (আইসিবিএম) পরীক্ষা চালায়, যা ১৩ হাজার কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে পারবে। যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনও নতুন এই ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় পড়বে বলে জানিয়েছে তারা। এর পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা সংস্থা (এমডিএ) পশ্চিম উপকূলে অতিরিক্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা মোতায়েনের পরিকল্পনা নিয়েছে বলে জানান মার্কিন কংগ্রেসের হাউজ আর্মড সার্ভিস কমিটির সদস্য মাইক রজার্স।

২০১৮ সালের জন্য অনুমোদিত যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বাজেটে এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার ব্যয়ের উল্লেখ না থাকায় এখনই এর কাজ শুরু করা যাবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি।

‘এখন শুধু স্থান খোঁজা হচ্ছে। এমডিএ দেখছে কোথায় এটি বসানো যায়, পরিবেশের ওপর প্রভাবও খতিয়ে দেখা হচ্ছে’- দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ায় রেগান ন্যাশনাল ডিফেন্স ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনের ফাঁকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটিই বলেন যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্র্যাটেজিক ফোর্স সাব-কমিটির চেয়ারম্যান রজার্স। তবে এমডিএ কোন কোন এলাকাকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে তা বলতে রাজি হননি আলাবামার এ রিপাবলিকান কংগ্রেস সদস্য। তিনি বলেন, ‘বেশ কয়েকটি স্থানের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা আছে’।

ওয়াশিংটনের নাইন্থ ডিস্ট্রিক্টের ডেমোক্র্যাট কংগ্রেসম্যান অ্যাডাম স্মিথ জানান, মার্কিন সরকার পশ্চিম উপকূলে লকহিড মার্টিন করপোরেশনের বানানো থাড ব্যবস্থাপনা বসানোরই চিন্তা করছে; যদিও কতগুলো ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপন করা হবে, তা এখনো ঠিক হয়নি।- রয়টার্স

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫