ঢাকা, সোমবার,১১ ডিসেম্বর ২০১৭

আইন ও বিচার

মৃত্যুদণ্ড ও যাবজ্জীবন প্রাপ্তরা আপিল করতে পারবেন : অ্যাটর্নি জেনারেল

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৭ নভেম্বর ২০১৭,সোমবার, ২০:১১


প্রিন্ট

বিডিআর হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ড ও যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্ত আসামিরা চাইলে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আপিল করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

আজ সোমবার অ্যাটর্নি জেনারেল নিজ কার্যালয়ে পিলখানায় বিডিআর (বর্তমানে বিজিবি) সদর দফতরে সংঘটিত হত্যাযজ্ঞের মামলায় হাইকোর্টের রায় ঘোষণার পর সাংবাদিকদের একথা বলেন।

মাহবুবে আলম বলেন, এই দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা চাইলে আপিল করতে পারবেন। আর তারা আপিল করলে আপিল বিভাগকে শুনানির আয়োজন করতে হবে।

রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ সন্তুষ্ট কি না এবং যেসব আসামি খালাস পেয়েছেন তাদের খালাস প্রাপ্তির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল করবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, খুব বেশি আসামি খালাস পায়নি। রায় পড়া শেষ হলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে রাষ্ট্রপক্ষ।

রায়ের বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এর আগে নিম্ন আদালত এই মামলায় ১৫২ জনকে ফাঁসি, ১৬০ জনকে যাবজ্জীবন ও ২৫৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছিলেন। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত ১৫২ জনের মধ্যে আপিল চলাকালে একজন মারা গেছেন। হাইকোর্ট বিভাগ ১৫২ জনের মধ্য থেকে আটজনের মৃত্যুদণ্ড থেকে কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে নামিয়ে এনেছেন এবং চারজন আসামিকে খালাস দিয়েছেন। ফলে ১৩৯ জন আসামির ফাঁসির দণ্ডাদেশ বহাল রয়েছে।
নিম্ন আদালতের দেয়া ১৬০ জন যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির মধ্যে আপিল চলাকালে দুইজন মারা গেছেন। হাইকোর্ট বিভাগ ১৪৬ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বহাল রেখেছেন এবং ১২ জনকে খালাস দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, নিম্ন আদালত ২৫৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদের কারাদণ্ড দেয়।

তাদের মধ্যে তিনজন মারা গেছেন। আর ২৮ জন আপিল করেননি। ১৮২ জনকে যে ১০ বছরের দণ্ড দেয়া হয়েছিল হাইকোর্ট তা বহাল রেখেছেন। দুইজনের কারাদাণ্ড ১০ বছর ও তিন বছর ছিল সেটিকে একসাথে চলবে বলা হয়েছে। আটজনকে সাত বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে এবং চারজনকে তিন বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। ২৯ জনকে খালাস দেয়া হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আপিল সম্পর্কে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, নিম্ন আদালতে খালাস দেয়া ৬৯ জন আসামির বিরুদ্ধে আপিল করেছিলাম। তাদের মধ্যে ৩১ জনকে যাবজ্জীবন, চারজনকে সাত বছর কারদণ্ড এবং ৩৪ জনকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫