অপূর্বর গল্পেই ফিরলেন ঐন্দ্র্রিলা

অভি মঈনুদ্দীন

পড়ালেখা, সংসারজীবন, বই লেখালেখি, তথ্যচিত্র নির্মাণসহ আনুষঙ্গিক অনেক কিছু নিয়ে প্রয়াত নায়ক বুলবুল আহমেদের যোগ্য উত্তরসূরি ঐন্দ্রিলা আহমেদ এতটাই ব্যস্ত ছিলেন যে বিগত ১০ বছর তাকে অভিনয়ে পাওয়া যায়নি। কিন্তু দেশজুড়ে তার ভক্ত, নির্মাতা ও সহকর্মীরা সব সময়ই চাইতেন ঐন্দ্রিলা যেন আবার অভিনয়ে ফেরেন। তাদের সেই আহ্বান এবং বর্তমান প্রেক্ষাপট বিবেচনা করেই ১০ বছর পর অভিনয়ে ফিরেছেন ঐন্দ্রিলা।

এই সময়ের জনপ্রিয় নন্দিত অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্বর গল্পে অপূর্বরই বিপরীতে একটি সম্পূর্ণ রোমান্টিক গল্পের নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে ঐন্দ্রিলা অভিনয়ে ফিরেছেন। নাটকের নাম ‘Beloved’. নাটকটির গল্পভাবনা অপূর্বরই। নাটকটি নির্মাণ করেছেন রুবেল হাসান। রুবেল হাসান অর্ধযুগেরও বেশি সময় ধরে নির্মাতা শিহাব শাহীনের সহকারী এবং পরবর্তীকালে প্রধান সহকারী হিসেবে কাজ করছেন। দু’জন অতি ভালো মানুষের আবেগী সিদ্ধান্ত যে ভুল হতে পারে এবং কোনো একটি কাজ করার আগে যাচাই-বাছাই করেই যে করা উচিত, তাই এই নাটকের মূল প্রতিপাদ্য- জানালেন অপূর্ব।

গেল ২৪ ও ২৫ নভেম্বর রাজধানীর উত্তরায় নাটকটির শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। নাটকে ঐন্দ্রিলা ও অপূর্ব ছাড়াও আরো অভিনয় করেছেন খালেকুজ্জামান, কায়েস চৌধুরী, সাবিহা জামান, মম আলী, মুহাম্মদ তারেক নিয়াজীসহ আরো অনেকে। দীর্ঘ দিন পর অভিনয়ে ফেরা প্রসঙ্গে ঐন্দ্রিলা বলেন, ‘অভিনয়ের আঙিনা আমার অনেক পছন্দের জায়গা। জ্ঞান হওয়ার পর থেকেই আমি এই আঙিনাতেই ছিলাম। দীর্ঘ দিন পর অভিনয়ে ফিরে এসে আমার মনেই হয়নি যে আমি এতটা বছর বিরতির পর অভিনয় করছি। আমার ফিরে আসাতে সবার মধ্যে যে উচ্ছ্বাস, ভালো লাগা আমি দেখেছি তা সত্যিই আমাকে মুগ্ধ করেছে, নতুন করে আবারো কাজে নিয়মিত হওয়ার অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। আর অপূর্বর সঙ্গে এটা আমার প্রথম কাজ। তার আন্তরিক সহযোগিতা তো ছিলই, তার সঙ্গে অভিনয়ও দারুণ উপভোগ করেছি। ধন্যবাদ নাটকের নির্মাতা রুবেল হাসানকে।’

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব বলেন, ‘ঐন্দ্রিলার সঙ্গে প্রথম কাজ করলেও মনেই হয়নি যে প্রথম একসঙ্গে কাজ করছি। কাজ করতে গিয়ে মনে হয়েছে যে, আমাদের অনেক দিনের বন্ধুত্ব। দারুণ মিষ্টি প্রেমের একটি গল্পে আমরা কাজ করেছি। ঐন্দ্রিলা ফিরে এসেই তার অভিনয়, তার আন্তরিকতা দিয়ে ইউনিটের প্রত্যেককেই মুগ্ধ করেছেন। আশা করি আমাদের অভিনীত প্রথম নাটক দর্শককেও মুগ্ধ করবে।’

আসছে ভালোবাসা দিবসে নাটকটি একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে।

ছবি : মোহসীন আহমেদ কাওছার

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.