‘দলের সাফল্যই আমার কাছে মুখ্য’

রফিকুল হায়দার ফরহাদ

‘বেশি প্রশ্ন করা যাবে না, অল্পতেই শেষ করতে হবে।’ এমন শর্তেই কি বো বেকে মিডিয়ার সাথে কথা বলতে দিলেন দক্ষিণ কোরিয়ার অ্যারচারি দলের ম্যানেজার। প্রশ্ন-উত্তর পর্ব শুরু হতে না হতেই আবার ম্যানেজারের হস্তক্ষেপ। ‘আর মাত্র একটি প্রশ্ন করা যাবে। এরপর আর নয়।’ যেমন কথা কাজও তেমন। জানার ইচ্ছে সত্ত্বেও আর এগোনো গেল না। ওই ম্যানেজারই যে ইংরেজি জানেন। স্বল্প সময়ের কথা বার্তায় তিনিই যে দোভাষীর ভূমিকায়। আজ থেকে এশিয়ান অ্যারচারির চ্যাম্পিয়নশিপের আসল লড়াই শুরু হতে যাচ্ছে। আসরের সবচেয়ে হাই প্রোফাইলের অ্যারচার এই কি বো বে। তিনটি অলিম্পিক গেমসের স্বর্ণ পদক জয়ী তিনি। ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে মহিলাদের রিকার্ভ বোর ব্যক্তিগত ও দলগততে স্বর্ণ জয়ের পর ২০১৬ রিও অলিম্পিকেও দক্ষিণ কোরিয়ার দলগততে স্বর্ণজয়ী দলের সদস্য তিনি। ব্যক্তিগততে জিতেছেন ব্রোঞ্জ। বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে পাঁচটি স্বর্ণ পদক আছে তার। তা একক, মিশ্র দলগত ও মহিলা দলগত মিলে। ২০১২-এর বিশ্বকাপেও সেরা তিনি। সাবেক এক নম্বর র‌্যাংকিংধারী কি বো বের বর্তমান অবস্থান ৪। সুতরাং তার ব্যাপারে একটু বাড়তি সতর্কতাতো থাকবেই টিম ম্যানেজমেন্টের। তারপরও যা বললের এই কোরিয়ার তারকা অ্যারচার, এর মূল কথা হলো বাংলাদেশে চলমান এশিয়ান অ্যারচারিতে তার কাছে মুখ্য পুরো দলের সাফল্য। ব্যক্তিগত অর্জন পরের হিসাব।
২৯ বছর বয়সী কি বো বে জানান, ‘আমার অ্যারচার হওয়ার তেমন ইচ্ছে ছিল না। প্রথমে জানার চেষ্টা করেছি খেলাটি আসলে কেমন। এরপর দেখলাম আমি তো ভলোই করছি অ্যারচারিতে। ব্যাস এর পরেই সিদ্ধান্ত অ্যারচার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ার।’ ২০তম এশিয়ান অ্যারচারিতে তার নিজ দলে প্রতিদ্বন্দ্বী তো আছেই। পাশাপাশি জাপান ও চাইনিজ তাইপের অ্যারচারদের সমীহ করছেন তিনি। বললেন, ‘আসরে আমাদের লড়াই হবে জাপান ও চাইনিজ তাইপের অ্যারচারদের সাথে। ওরা বেশ ভালো।’ নিজের লক্ষ্য সম্পর্কে বললেন, ‘আমার কাছে প্রাধান্য পাচ্ছে দলের সাফল্য। আমি টিম ওয়ার্কে বিশ্বাস করি। নিজে কী করলাম তা এখানে অগ্রগণ্য নয়।’ বাংলাদেশ সম্পর্কে মন্তব্য ‘এখন পর্যন্ত হোটেল আর প্র্যাকটিস গ্রাউন্ড যাওয়া-আসা নিয়েই ব্যস্ত। ঘুরে দেখার সুযোগ পাইনি।’
দক্ষিণ কোরিয়ার গেয়নংজি প্রদেশের আইয়ানে জন্ম নেয়া কি বো বে বিয়ে করেছেন কিছুদিন আগে। স্কুলেই অ্যারচারিতে হাতে খড়ি তার। স্বদেশী চ্যাং হাই জিনের কাছে রিও অলিম্পিকের সেমিতে হারেন। এরপর কি বো বের ব্রোঞ্জ নিশ্চিত হয় মেক্সিকোর অলেজান্দ্রা ভ্যালেন্সিয়াকে হারিয়ে।
আজ র‌্যাংকিং রাউন্ডে নিজের স্কোরের ওপর ইলিমিনেশন রাউন্ডের প্রতিপক্ষ পাবেন তিনি। সাথে অন্যরাও।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.