ঢাকা, শনিবার,১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

কম্পিউটার ও আইটি

বিশ্বের দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড

আহমেদ ইফতেখার

২৪ নভেম্বর ২০১৭,শুক্রবার, ১৮:২৫


প্রিন্ট
বিশ্বের দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড

বিশ্বের দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড

প্রতিনিয়তই নিত্যনতুন ডিভাইস ও প্রযুক্তিগত সেবা ব্যবহার করছি আমরা। তবে এসব ডিভাইসের পেছনে কাজ করছে অসংখ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ব্র্যান্ড হিসেবে সবার কাছে পরিচিতি পেয়েছে কিছু প্রতিষ্ঠান। এমনকি বিশ্বের সবচেয়ে দামি ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে শীর্ষে রয়েছে প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা ও সেবাদাতাপ্রতিষ্ঠান। বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড কোনটি তা নিয়ে কৌতূহলের শেষ নেই। এজন্য সম্প্রতি সবচেয়ে মূল্যবান ব্র্যান্ডের তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস। সেই তালিকার খবর নিয়ে লিখেছেন আহমেদ ইফতেখার

অ্যাপল
বর্তমানে মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য ও সেবাদাতাপ্রতিষ্ঠান অ্যাপলের ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার কোটি ডলার। ব্র্যান্ডমূল্যে গুগলকে হটিয়ে শীর্ষ অবস্থানে উঠে এসেছে অ্যাপল। গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন এসেছে ১০ শতাংশ। বর্তমানে অ্যাপলের ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ৪২০ কোটি ডলারে। অ্যাপলের এই দুর্দান্ত ছুটে চলা আগামীতেও ঠিক থাকবে। কারণ কয়েকদিন আগেই নতুন তিন আইফোন বাজারে এনেছে অ্যাপল। ২০১৮ সালের প্রথমার্ধে অপেক্ষাকৃত কম দামের নতুন আইফোন আনার প্রস্তুতি নিচ্ছে অ্যাপল। নতুন আইফোন হিসেবে এসই ২ আনতে পারে অ্যাপল।

গুগল
ইন্টারনেট ব্যবহারকারী মাত্রই গুগলের সাথে পরিচিত। সার্চ, মেইল, বিজ্ঞাপন, ক্লাউডসহ নানা ধরনের সেবা দিচ্ছে গুগল। বর্তমানে ডিভাইস বাজারেও রাজত্ব করার পরিকল্পনা করছে। ব্র্যান্ডমূল্যে ১০ হাজার ১৮০ কোটি ডলার নিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ডের তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে গুগল। প্রতিষ্ঠানটির গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন হয়েছে ২৩ শতাংশ। গুগল পশ্চিমা বিশ্বে অনলাইন অনুসন্ধান সেবায় একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করছে। দামি ব্র্যান্ড হিসেবে তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে থাকলেও শীর্ষ নিয়োগকর্তার তালিকায় শীর্ষে রয়েছে গুগল। বর্তমানে এর ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে আট হাজার ৫০ কোটি ডলারে।

মাইক্রোসফট
মূল্যবান প্রযুক্তি ব্র্যান্ড তালিকার টানা তৃতীয়বারের মতো তৃতীয় অবস্থান দখলে রেখেছে সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফট। বর্তমানে এর ব্র্যান্ডমূল্য আট হাজার ৭০০ কোটি ডলার। প্রতিষ্ঠানটির রাজস্ব আয়ের সবচেয়ে বড় অনুষঙ্গ উইন্ডোজ সফটওয়্যার। বর্তমানে কোম্পানিটির ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে আট হাজার ৫৩০ কোটি ডলার। ডিভাইস ব্যবসায় এখনো অনেক পিছিয়ে মাইক্রোসফট। অনেকের মতে এ কারণেই হয়ত তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে। নকিয়া অধিগ্রহণ করেও নিজেদের ভাগ্য বদলাতে পারেনি।

ফেসবুক
এই তালিকার চতুর্থ স্থানে জায়গা করে নিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। বর্তমানে সোস্যাল মাধ্যমটির ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ৩৫০ কোটি ডলার। গত এক বছরে এর ব্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন এসেছে ৪০ শতাংশ। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৫৬০ কোটি ডলার। ফেসবুক আগামীতে এই তালিকায় আরো এগিয়ে যেতে পারে। কারণ ইতোমধ্যে গুগলের ইউটিউবের সাথে প্রতিযোগিতা শুরু করেছে ফেসবুক।

অ্যামাজন
বিশ্বের সবচেয়ে বড় ই-কমার্স সাইট অ্যামাজন। গত বছরের এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে এই সাইটটিতে প্রতি মিনিটে গড়ে ৮৬ হাজার মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য বিক্রি হয়। ব্র্যান্ডমূল্যে ই-কমার্স জায়ান্ট অ্যামাজন আছে তালিকার পঞ্চম স্থানে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ডমূল্য পাঁচ হাজার ৪১০ কোটি ডলার। গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন এসেছে ৫৪ শতাংশ। বর্তমানে এর ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৩০০ কোটি ডলার।

স্যামসাং
ফোর্বস প্রকাশিত বিশ্বের সবচেয়ে দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে স্যামসাং। দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ৮২০ কোটি ডলারে। গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন হয়েছে ৬ শতাংশ। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৬৭০ কোটি ডলার। গত বছরে স্যামসাং ফোনে বিভিন্ন ত্রুটি ধরা পড়ায় কিছুটা হলেও পিছিয়ে পড়েছে স্যামসাং।

এটিঅ্যান্ডটি
দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ডের তালিকায় সপ্তম স্থানে রয়েছে এটিঅ্যান্ডটি। বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ৬৭০ কোটি ডলার। গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন এসেছে ১২ শতাংশ। এটিঅ্যান্ডটির ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৩০০ কোটি ডলার।

আইবিএম
বিশ্বের সবচেয়ে দামী প্রযুক্তি ব্র্যান্ড তালিকায় অষ্টম স্থানে জায়গা করে নিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস মেশিনস (আইবিএম)। চলতি বছর প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ৩৩০ কোটি ডলার। গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন হয়েছে ২০ শতাংশ। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ৯৯০ কোটি ডলার।

ইন্টেল
দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড তালিকায় মার্কিন চিপ নির্মাতা ইন্টেল নবম স্থানে রয়েছে। চলতি বছর এর ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ১৪০ কোটি ডলার। গত এক বছরে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন এসেছে ১৩ শতাংশ। ইন্টেলের ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৯৪০ কোটি ডলার।

সিসকো
বিশ্বের সবচেয়ে দামি ব্র্যান্ড তালিকায় দশম স্থানে জায়গা করে নিয়েছে নেটওয়ার্কিং হার্ডওয়্যার নির্মাতা সিসকো সিস্টেম ইনকরপোরেশন। মার্কিন এ প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে তিন হাজার ৭০ কোটি ডলার। গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন এসেছে ৮ শতাংশ। বর্তমানে এর ব্র্যান্ড রাজস্ব দাঁড়িয়েছে চার হাজার ৮৬০ কোটি ডলার।

ওরাকল
দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড তালিকায় কম্পিউটার প্রযুক্তি কোম্পানি ওরাকলের স্থান হয়েছে একাদশ স্থানে। এর ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৯২০ কোটি ডলার। গত এক বছরে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন এসেছে ৪ শতাংশ। বর্তমানে ওরাকলের ব্র্যান্ড রাজস্ব তিন হাজার ৭৪০ কোটি ডলার।

ভেরাইজন
বিশ্বের সবচেয়ে দামি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড তালিকায় দ্বাদশ স্থানে রয়েছে মার্কিন টেলিকম প্রতিষ্ঠান ভেরাইজন। সবকিছু মিলিয়ে চলতি বছরে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ডমূল্য দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৮৯০ কোটি ডলার। গত এক বছরে এর ব্র্যান্ডমূল্যে পরিবর্তন হয়েছে ১২ শতাংশ। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড রাজস্ব ১২ হাজার ৬০০ কোটি ডলার।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫