রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবর্তনে বাংলাদেশের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি কানাডার

সংসদ প্রতিবেদক

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবর্তনে বাংলাদেশের পাশে থাকার প্রতিশ্রতি দিয়েছেন বাংলাদেশে সফররত কানাডার আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী ম্যারি ক্লদ বিবেয়্যু।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে সংসদ ভবনের কার্যালয়ে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সাথে বৈঠককালে তিনি এই প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

এসময় বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার বেনেয়ট প্রিফন্টেইন উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে তারা দ্বি-পাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় ছাড়াও সম্প্রতি ঢাকায় অনুষ্ঠিত ৬৩তম কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি কনফারেন্স (সিপিসি), রোহিঙ্গা ইস্যু, টেকসই উন্নয়ন ও নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।

এসময় ম্যারি ক্লদ বলেন, মিয়ানমার কর্তৃক বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ মানবতার এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে- যা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে। রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবর্তনের ক্ষেত্রে জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত পাঁচ দফা বাস্তবায়নে কানাডা বাংলাদেশের পাশে থাকবে।

তিনি বলেন, বঞ্চিত রোহিঙ্গা নারী ও শিশুদের সার্বিক উন্নয়নে ইতোমধ্যে কানাডা সরকার ২৫ মিলিয়ন ডলার অনুদান দিয়েছে। যা তাদের মানবিক অধিকার নিশ্চিত করতে সহায়ক হবে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, রোহিঙ্গারা দরিদ্র থেকে দরিদ্রতম জনগোষ্ঠী। তাদের মানবিক সাহায্যে এগিয়ে আসায় তিনি কানাডা সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্রুত মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার পথে এগিয়ে চলেছে। বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে শতকরা সাত দশমিক দুই ভাগ প্রবৃদ্ধি অর্জন করে চলেছে- যা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য বাস্তবায়নে সহায়ক ভূমিকা রাখছে।

স্পিকার কমনওয়েলথের অন্যতম শক্তিশালী সদস্য রাষ্ট্র কানাডার একটি সংসদীয় প্রতিনিধিদল ৬৩তম সিপিসিতে সক্রিয় অংশগ্রহণ করায় কানাডা সংসদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। কানাডিয়ান মন্ত্রীও ৬৩তম সিপিসি সফলভাবে আয়োজন করায় স্পিকারকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.