অপ্রতিহত বার্সার সহজ জয়
অপ্রতিহত বার্সার সহজ জয়

অপ্রতিহত বার্সার সহজ জয়

নয়া দিগন্ত অনলাইন

লা লিগায় জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে বার্সেলোনা। শনিবার গোলের খরা কাটিয়েছেন লুইস সুয়ারেস। তার জোড়া গোলে লেগানেসের মাঠে সহজ জয় পেয়েছে এরনেস্তো ভালভেরদের দল।

শনিবার কাতালান দলটির ৩-০ গোলের জয়ে অন্য গোলটি করেন পাওলিনিয়ো। শুরু থেকে বলের নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে থাকলেও গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না বার্সেলোনা।

শুরু থেকে বলের নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে থাকলেও গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না বার্সেলোনা। ২৮তম মিনিটে অবশেষে আসে গোল। ডান দিক থেকে পাকো আলকাসেরের ক্রস ঠিকমতো ঠেকাতে পারননি গোলরক্ষক ইভান কুয়েইয়ার। বল পেয়ে কাছ থেকে জালে জড়িয়ে দেন সুয়ারেস।

বার্সেলোনায় যোগ দেয়ার পর সবচেয়ে দীর্ঘ গোলখরা ফুরাল উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকারের। সব প্রতিযোগিতা মিলে ৪৭৯ মিনিট পর পেলেন আরাধ্য গোল।

৩৫তম মিনিটে আলেক্সান্দেরের শট ঠেকিয়ে বার্সেলোনার ত্রাতা গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

দ্বিতীয়ার্ধের সপ্তম মিনিটেও সমতা ফেরানোর একটি সুযোগ নষ্ট হয় স্বাগতিকদের। উইঙ্গার ক্লাওদিও শট মারেন জার্মান গোলরক্ষক টের স্টেগেন বরাবর।

৬০তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ান সুয়ারেস। এবারো স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড আলকাসেরের শট গোলরক্ষক ঠেকানোর পর বল পেয়ে শট নেন সুয়ারেস। বল রুবেন পেরেসের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়।

৭৫তম মিনিটে আলেইশ ভিদাল পরিষ্কার সুযোগ নষ্ট করেন। আর ৮৮ মিনিটে লিওনেল মেসির দূরপাল্লার শট গোলরক্ষক ফেরানোর পর আবার বল পেয়েছিলেন সুয়ারেস। এবার আর গোল পাননি ফিরতি শটে, দারুণভাবে ঠেকান ইভান।

তবে ৮৯তম মিনিটে ঠিকই ব্যবধান বাড়ান বদলি হিসেবে নামা পাওলিনিয়ো। ডি-বক্সে জটলার মধ্যে থেকে মেসির বাড়ানো বল টোকা দিয়ে জালে পাঠান ব্রাজিলের এই মিডফিল্ডার।

লিগে একাদশ জয়ে শীর্ষস্থান মজবুত করল বার্সেলোনা। এ মৌসুমে এখন পর্যন্ত লা লিগায় অপরাজিত দলটির পয়েন্ট ১২ ম্যাচে ৩৪।


রিয়ালের ড্র

শনিবার রাতে লা লিগায় নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছে জিনেদিন জিদানের দল। এবারের লিগে রিয়ালের এটা তৃতীয় ড্র।

রিয়ালের বাজে রক্ষণের কারণে ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো আতলেতিকো। মার্সেলো ও রাফোয়েল ভারানে তালগোল পাকিয়ে ফেললে গোলরক্ষককে একা পেয়ে যান আনহেল কোররেয়া। কিন্তু লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নিয়ে বসেন আর্জেন্টাইন এই ফরোয়ার্ড।

৩১তম মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় রিয়াল। তবে রোনালদোর সঙ্গে একবার বল দেওয়া-নেওয়া করে টনি ক্রুসের নেওয়া শট লাগে পাশের জালে। চার মিনিট পর পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের ফ্রি-কিক ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক ইয়ান ওবলাক।

৩৭তম মিনিটে হেড করতে গিয়ে প্রতিপক্ষের ফরাসি ডিফেন্ডার লুকাস এরনঁদেজের পায়ে লেগে নাকে ব্যথা পান সের্হিও রামোস। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে প্রথমার্ধের বাকি সময় তিনি খেলা চালিয়ে গেলেও বিরতির পর আর তাকে নামাননি কোচ।

দ্বিতীয়ার্ধেও অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখে আক্রমণে উঠতে থাকে অতিথিরা। কিন্তু আরাধ্য গোলের দেখা আর মেলেনি।

৭৮তম মিনিটে উল্টো গোল প্রায় খেয়েই বসেছিল তারা। কেভিন গামেইরোর চিপ শটে বল কিকো কাসিয়ার মাথার উপর দিয়ে ভিতরে ঢুকতে যাচ্ছিল। একেবারে শেষ মুহূর্তে হেড করে ফেরান ভারানে।

১২ ম্যাচ শেষে দুদলের পয়েন্টই সমান ২৪।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.