ঢাকা, রবিবার,১৭ ডিসেম্বর ২০১৭

খুলনা

বিপর্যয় থেকে ভবদহ রক্ষায় পদযাত্রা 

যশোর অফিস

১৬ নভেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৩:৪৫


প্রিন্ট

ভবদহ এলাকায় টিআরএম বাস্তবায়নসহ ভবদহ রক্ষাসহ বিভিন্ন দাবীতে চার দিন ব্যাপী পদযাত্রা বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে। ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটি এ কর্মসূচীর আয়োজন করেছে।

যশোরের ছয়টি বামপন্থী রাজনৈতিক দল পৃথক পৃথক বিবৃতিতে ভবদহ পদযাত্রার সঙ্গে একত্মতা ঘোষণা করেছেন। যশোরের দুঃখ ভবদহ। দীর্ঘদিন ধরে ভবদহ সমস্যায় এই জনপদের কৃষি অর্থনীতি শুধু নয় শিক্ষা-সংস্কৃতি ও জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বর্তমানে এই সংকট মহাবিপর্যয়ের রূপ লাভ করতে যাচ্ছে।

এই মহাবিপর্যয়ের হাত থেকে ভবদহ জনপদকে রক্ষার দাবিতে ১৬ থেকে ১৯ নভেম্বরের ভবদহ পদযাত্রার ঘোষণা করা হয়। ভবদহ হলো মুক্তেশ্বরী, শ্রী ও হরি এ তিন নদীর সঙ্গমস্থলের নাম। যা মণিরামপুর, কেশবপুর ও অভয়নগর এবং খুলনার ডুমুরিয়া ও ফুলতলা উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা নিয়ে বিস্তত।দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জনগণের দুঃখ হিসেবে পরিচিত ভবদহের জলাবদ্ধতা। ভবদহ অঞ্চলের নদীগুলো পানিতে পলি জমে নদীর নাব্যতা কমতে থাকে,একপর্যায়ে নদীতে পলি জমা হতে হতে ভবদহ তৎপাশ্ববর্তী বিলগুলোর তলদেশ অপেক্ষা নদীগুলোর তলদেশ উঁচু হয়ে যায়। ফলে পানির প্রবাহ না থাকায় প্রতি বর্ষা মৌসুমে বন্যার সৃষ্টি হয়। এ অঞ্চলের লাখ মানুষ দীর্ঘদিন ধরে পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করে।
সরকার বিভিন্ন সময়ে ভবদহের জলাবদ্ধতা নিরসনে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করলেও নানা অনিয়ম, দূর্ণীতি ও জটিলতার কারণে অনেক পদক্ষেপ তা আলোর মুখ দেখেনি। আর যে সব পদক্ষেপ বাস্তবায়ন হয়েছে নানা অনিয়ম, দূর্ণীতি কারণে তার সুফল পায়নি ভোক্তভোগিরা। জলাবদ্ধতা নিরসনে ভূক্তভোগী মানুষ বাঁচার তাগিদে বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫