ঢাকা, বৃহস্পতিবার,১৪ ডিসেম্বর ২০১৭

শিক্ষা

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের উন্নীত বেতন স্কেলের জিও জারি

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৫ নভেম্বর ২০১৭,বুধবার, ২১:৪০


প্রিন্ট

অবশেষে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা উন্নীত পদ্ধতিতে বেতন নির্ধারণ হতে যাচ্ছে।

আজ বুধবার এ সংক্রান্ত একটি জিও অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের বাস্তবায়ন অনুবিভাগ থেকে জারি করা হয়েছে।

এর ফলে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা এখন থেকে প্রধান শিক্ষক পদের উন্নীত বেতন স্কেলে বেতন-ভাতা পাবেন। এটি ৯ মার্চ ২০১৪ থেকেই কার্যকর হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র আজ নয়া দিগন্তকে জানায়।

অর্থ বিভাগের বাস্তবায়ন অনুবিভাগের সহকারী সচিব মোঃ সামীম আহসান স্বাক্ষরিত সরকারি ওই আদেশে বলা হয়েছে, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদের বেতন স্কেল উন্নীতকরণের ফলে উন্নীত বেতনস্কেলে বেতন নির্ধারণের জটিলতা নিরসনের লক্ষ্যে সরকার নিম্নরূপ নীতিমালা অনুসরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

‘‘ক) বেতন স্কেল উন্নীত হওয়ার পূর্বে সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকগণ যিনি যে সংখ্যক টাইমস্কেল পেয়েছেন/প্রাপ্য হয়েছেন, উন্নীত বেতনস্কেলের উপরে সেই সংখ্যক টাইতস্কেল গণনা করে বেতনস্কেল উন্নীত করার অব্যবহিত পূর্বে তার সর্বশেষ আহরিত/প্রাপ্য মূল বেতনের ভিত্তিতে বেতনস্কেল উন্নীতকরণের তারিখে সরাসরি নির্ণীত সর্বশেষ স্কেলের কোনো ধাপে মিললে ওই ধাপে, ধাপে না মিললে বি.এস.আর. প্রথম খণ্ডের ৪২(ও)(রর) বিধি অনুসরণে নিম্নধাপে বেতন নির্ধারণ করে অবশিষ্ট টাকা পি.পি. হিসেবে প্রদান করতে হবে এবং ওই পি.পি (Personal Pay) পরবর্তী বার্ষিক বেতন বৃদ্ধিতে তা সমন্বয়যোগ্য হবে।

খ) বেতনস্কেল উন্নীত হওয়ার পূর্বে পদোন্নতি প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকগণ প্রধান শিক্ষক পদে যিনি যে সংখ্যক টাইমস্কেল পেয়েছে/প্রাপ্য হয়েছেন, উন্নীত বেতনস্কেলের উপরে সেই সংখ্যক টাইমস্কেল গণনা করে বেতনস্কেল উন্নীত করার অব্যবহিত পূর্বে তার সর্বশেষ আহরিত/প্রাপ্য মুল বেতনের ভিত্তিতে বেতনস্কেল উন্নীতকরণের তারিখে সরাসরি নির্ণীত সর্বশেষ স্কেলের কোন ধাপে মিললে ঐ ধাপে, ধাপে না মিললে বি.এস.আর. ১ম খন্ডের ৪২(ও)(রর) বিধি অনুসরণে নিম্নধাপে বেতন নির্ধারণ করে অবশিস্ট টাকা পি.পি হিসেবে প্রদান করতে হবে এবং উক্ত পি.পি পরবর্তী বার্ষিক বেতন বৃদ্ধিতে তা সমন্বয়যোগ্য হবে।

গ) ওই পদ্ধতিতে বেতন নির্ধারণ কালে মাঝখানে কোন বেতনস্কেল/গ্রেডে বেতন নির্ধারণ করা যাবে না।’’

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ৯ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা সপ্তাহের অনুষ্ঠানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের বেতন স্কেল দু’ধাপ উন্নীত করে দ্বিতীয় শ্রেণির পদ মর্যাদা ঘোষণা দেন। সহকারি শিক্ষকদের ১ ধাপ বেতন স্কেল উন্নীত করার ঘোষণা দেন। কিন্তু প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদ মর্যাদার ভিত্তিতে বেতন স্কেল নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে দীর্ঘ প্রায় তিন বছরের দাবি ও আন্দোলন এবং দফায় দফায় অর্থ মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে শিক্ষক নেতাদের বৈঠকের পর আজ এ আদেশ জারি করেছে বলে জানান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির মহাসম্পাদক আমিনুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি বলেন, এখন থেকে সিনিয়র প্রধান শিক্ষকরা উন্নীত পদ্ধতিতে বেতন নির্ধারন করে ৯ মার্চ ২০১৪ থেকেই আর্থিক সুবিধাদি প্রাপ্য হবেন। তিনি এ ব্যাপারে সরকারের সদিচ্ছার জন্য অর্থমন্ত্রী এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫