ঢাকা, সোমবার,১১ ডিসেম্বর ২০১৭

অর্থনীতি

অবিলম্বে নিম্নতম মূল মজুরি ১০ হাজার টাকা ঘোষণার দাবি

১৫ নভেম্বর ২০১৭,বুধবার, ১৮:১৭


প্রিন্ট

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি অ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার এক বিবৃতিতে অবিলম্বে দেশের গার্মেন্ট শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন।

নেতৃবৃন্দ নিম্নতম মূল মজুরি ১০ হাজার এবং মোট মজুরি ১৬ হাজার টাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন। একই সাথে অন্যান্য গ্রেডের মজুরি ও সোয়েটারের পিসরেট আনুপাতিক হারে বৃদ্ধির দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ বলেন, দ্রব্যমূল্যের চরম ঊর্ধগতি ও বাড়ি ভাড়াসহ জীবনযাত্রার ব্যয় কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। গত প্রায় দুই বছর ধরে গার্মেন্ট শ্রমিকরা মজুরি বৃদ্ধির জন্য আন্দোলন করে আসছে। কিন্তু শ্রমিকদের বাঁচার মত মজুরির দাবিতে সরকার ও মালিকপক্ষ কর্ণপাত করেনি। উপরন্তু আন্দোলন দমনে জুলুম-নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, গণমাধ্যমের খবরে প্রকাশ মালিক সমিতি মজুরি বৃদ্ধি করে নতুন নিম্নতম মজুরি ঘোষণার জন্য সরকারের কাছে লিখিত প্রস্তাব দিয়েছে, যা ইতিবাচক এবং শ্রমিক পক্ষের দাবির যৌক্তিকতা প্রতিষ্ঠা করে।

তারা বলেন, কয়েক মাস আগেও আশুলিয়ায় মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিকরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করায় প্রায় আড়াই হাজারের বেশি শ্রমিককে ছাটাই করা হয়। তখন নয়টি মামলায় শ্রমিক নেতা ও শ্রমিকদের গ্রেফতার ও বহু শ্রমিকের উপর জুলুম-নির্যাতন করা হয়েছিল।

নেতৃবৃন্দ বলেন, শ্রমিকদের জীবনযাত্রার মানবেতর অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে সরকার ও মালিকপক্ষ মজুরি বৃদ্ধি করে যদি যথাযথ মজুরি হার নির্ধারণ করে তবে তা হবে শিল্প এবং উৎপাদনশীলতার জন্য মঙ্গলজনক।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, সরকার মজুরি বৃদ্ধির প্রক্রিয়া শুরু করতে ইতোমধ্যে অনেক বিলম্ব করেছে।

নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে বলেন, গার্মেন্ট শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির জন্য অতীতে প্রতিবারই শ্রমিকদের কঠোর আন্দোলন, অনেক ত্যাগ শিকার এবং জুলুম-নির্যাতন ভোগ করতে হয়েছে। তার পরেও কখনোই শ্রমিকদের দাবির কাছাকাছি কিংবা তৎকালীন বাজারদর অনুযায়ি কোন মতে বাঁচার মত মজুরি আদায় হয়নি। প্রতিবারে গ্রেড চুরিসহ নানান কারসাজির মাধ্যমে শ্রমিকদের প্রকৃত আয় কমিয়ে দেয়া হয়েছে। নেতৃবৃন্দ তাই সতর্কতার সাথে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য শ্রমিক ও অপরাপর মহলের প্রতি আহ্বান জানান। বিজ্ঞপ্তি।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫