নড়াইলে নদী থেকে অবৈধভাবে বালুকাটা বন্ধে এবং ভাঙনরোধে মানববন্ধন

ফরহাদ খান, নড়াইল

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার চাপুলিয়া এলাকায় মধুমতি নদী থেকে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালুকাটা রোধে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। চাপুলিয়াবাসীর আয়োজনে সোমবার বিকেলে চাপুলিয়া দাখিল মাদরাসা সংলগ্ন মধুমতি নদীর ভাঙন এলাকায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বিভিন্ন পেশার মানুষ অংশ নেন।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন চাপুলিয়া বাবুচ্ছন্নাৎ দাখিল মাদরাসার সহকারী শিক্ষক মোল্যা বাবুল হোসেন, মাদরাসার আরেক শিক্ষক নারায়ন চন্দ্র দাস, মাদরাসার সাবেক সুপার হাবিবুর রহমান, কোটাকোল ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার আবু হোসেন, চাপুলিয়া গ্রামের আমিরুল ইসলাম, কাজলী বেগম, নারগিস বেগম, হুমায়ুন কবির, রাজু আহমেদ, বুলু বিশ্বাস প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার চাপুলিয়া এলাকায় মধুমতি নদীতে গত ১০ দিন ধরে ড্রেজার দিয়ে একটি মহল অবৈধ ভাবে বালু কেটে বিক্রি করছে। পাশাপাশি নদীতে হঠাৎ করে পানি কমে গেছে। এতে করে চাপুলিয়া বাবুচ্ছন্নাৎ দাখিল মাদরাসা, মসজিদ, ফসলি জমিসহ অন্তত ১০টি বাড়ি নদী ভাঙনের শিকার হয়েছে। এছাড়া গ্রামের ভেতরের একটি কাঁচা রাস্তা নদী গর্ভে চলে গেছে। এছাড়া এ এলাকার প্রায় ৩০০ বাড়ি ভাঙনের হুমকিতে আছে।

চাপুলিয়া এলাকায় মধুমতি নদীর ভাঙনরোধে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে এগিয়ে আসার আহবান জানান বক্তারা। এছাড়া নদী থেকে অবৈধভাবে বালুকাটা বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী।

এদিকে, লোহাগড়া উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে গত রোববার চাপুলিয়া এলাকায় মধুমতি নদী থেকে অবৈধ বালুকাটা বন্ধের নির্দেশ দেয়ার পর ওই ড্রেজার মেশিনটি বড়দিয়া এলাকায় রাখা হয়েছে। তবে, প্রভাবশালী মহলটি আবারও বালুকাটার অপতৎপরতা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.