ঢাকা, শনিবার,১৮ নভেম্বর ২০১৭

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা

ট্রাম্পের মতো অভিজ্ঞতা কারো হয়নি!

ডয়চে ভেলে

১৩ নভেম্বর ২০১৭,সোমবার, ১৯:৩৫


প্রিন্ট
ট্রাম্পের মতো অভিজ্ঞতা কারো হয়নি!

ট্রাম্পের মতো অভিজ্ঞতা কারো হয়নি!

গোটা বিশ্ব যখন বহুপক্ষীয় চুক্তির মাধ্যমে মুক্ত বাণিজ্যের পথে এগোচ্ছে, তখন ডোনাল্ড ট্রাম্পের নেতৃত্বে আমেরিকা আরো বিচ্ছিন্ন হয়ে ‘একলা চলো রে’ পথে অগ্রসর হচ্ছে৷ এশিয়া সফরে ট্রাম্প ‘সাফল্য’ দাবি করছেন৷

দীর্ঘ এশিয়া সফরকে সাফল্য হিসেবে তুলে ধরতে মরিয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ বিশেষ করে ‘অ্যামেরিকা ফার্স্ট’ নীতির আওতায় বাণিজ্যের ক্ষেত্রে সুবিধা আদায় করতে ‘যথেষ্ট অগ্রগতি’র কথা বলছেন তিনি৷ এশিয়ায় ‘অভূতপূর্ব’ সাড়া পেয়েছেন বলে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে দাবি করেন ট্রাম্প৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে তাকে যেভাবে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে, তার কোনো পূর্বসূরির সম্ভবত সে রকম অভিজ্ঞতা হয়নি বলেও বড়াই করেছেন তিনি৷

তবে উত্তর কোরিয়া সংকটসহ অন্য অনেক দাবির মতো তিনি এ ক্ষেত্রেও বিস্তারিত কিছুই বলেননি৷ তবে বুধবার হোয়াইট হাউস উত্তর কোরিয়া ও বাণিজ্যের বিষয়ে বিবৃতি দেবে বলে জানিয়েছেন তিনি৷

এক বছর আগে নির্বাচনে জয়ের আগে থেকেই চীনসহ বিভিন্ন দেশের বিরুদ্ধে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে অন্যায় আচরণের অভিযোগ করে আসছেন ট্রাম্প৷ তাছাড়া সরকারি ভরতুকির মাধ্যমে বাজারে বিকৃতির বিরুদ্ধেও তোপ দেগে এসেছেন তিনি৷ ভিয়েতনামে অ্যাপেক দেশগুলোর শীর্ষ সম্মেলনে উপস্থিত নেতারাও বিষয়টি নিয়ে ভাবনাচিন্তা করতে রাজি হয়েছেন৷ তবে ট্রাম্প যেভাবে দ্বিপক্ষীয় বোঝাপড়ার মাধ্যমে শুধু আমেরিকার জন্য সুবিধা আদায় করতে চান, সেই পথে যেতে নারাজ বাকি দেশগুলো৷ তিনি এশীয় প্রশান্তমহাসাগরীয় বাণিজ্য কাঠামো থেকে আমেরিকাকে বিচ্ছিন্ন করলেও বাকি ১১টি দেশ এই চুক্তি চালু রাখতে সম্মত হয়েছে৷ বিশেষ করে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বহুদেশীয় চুক্তির পক্ষে কথা বলেছেন৷

তার মনোভাব ম্যানিলায় আসিয়ান দেশগুলোর শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ছবি তোলার সময়ে স্পষ্ট হয়ে উঠেছে৷ সোমবার নেতারা আড়াআড়িভাবে পরস্পরের হাত ধরে সহাস্য ছবি তুলেছেন৷ কিন্তু ট্রাম্প কিছুতেই নিজের হাত দুটি ঠিকমতো সাজাতে পারছিলেন না৷ শেষ পর্যন্ত তিনি দুটি হাতই ভিয়েতনামের প্রধানমন্ত্রীর দিকে বাড়িয়ে দেন৷ কয়েক মিনিট পর ভুল বুঝতে পেরে তিনি অবশ্য ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্টের দিকেও একটি হাত বাড়িয়ে দেন৷

উল্লেখ্য, এবারের আসিয়ান শীর্ষ সম্মেলনে সদস্য দেশগুলো ছাড়াও আমেরিকা, চীন, রাশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ভারত, ক্যানাডা, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার শীর্ষ নেতারাও উপস্থিত ছিলেন৷


ফিলিপাইনে ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভ
ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় রোববার ট্রাম্পবিরোধী ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। এতে প্রায় ২ হাজার বিক্ষোভকারী অংশ নেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দাঙ্গা পুলিশ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে জলকামান ও সোনিক এলার্ম ব্যবহার করে।

বিক্ষোভকারীরা মিছিলে নাৎসি স্বস্তিকা চিহ্ন সম্বলিত ট্রাম্পের রঙ্গিন প্রতিকৃতি ও কুশপুত্তলিকাসহ নিয়ে রাজধানীর রাজপথ প্রদক্ষিণ করে। খবর এএফপি’র।

ম্যানিলায় আসিয়ান শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলনের ফাঁকে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রোড্রিগো দাতার্তের সঙ্গে ট্রাম্পের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
বিক্ষোভকারীরা ‘ট্রাম্প দেশে ফিরে , ‘ট্রাম্পকে নিষিদ্ধ কর’ এবং ট্রাম্প বিশ্বের এক নম্বর সন্ত্রাসী’ সম্বলিত প্ল্যাকার্ড বহন করে।

পুলিশ জানায়, বিক্ষোভ সমাবেশে প্রায় ২ হাজার লোক অংশ নেয়।
পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে অন্তত ছয় পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছে বলে ঘটনাস্থল থেকে এএফপি’র একজন সাংবাদিক জানিয়েছেন।
ম্যানিলা সোমবার ও মঙ্গলবার অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনস (আসিয়ান)-এর দুটি পৃথক অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে।

এই শীর্ষ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি চীন, জাপান, রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডও অংশ গ্রহণ করছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫