ঢাকা, মঙ্গলবার,২১ নভেম্বর ২০১৭

ঢাকা

ঘিওরে এসএসসির ফরম পুরণে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ

আব্দুর রাজ্জাক, ঘিওর (মানিকগঞ্জ) 

১৩ নভেম্বর ২০১৭,সোমবার, ১১:১৪


প্রিন্ট

মানিকগঞ্জের ঘিওরে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরনের জন্য অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষা বোর্ডের নির্ধারিত ফির চেয়ে দ্বিগুন ফি আদায় করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। সংবাদিক ও প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দেওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে রশিদ বিহীন অতিরিক্ত ফি আদায় হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা। উপজেলার করজনা এবিএনএন উচ্চ বিদ্যালয়ে অনিয়ম ও দূর্ণীতির মাধ্যমে বোর্ড নির্ধারিত ফি’র চেয়েও বিভিন্ন অজুহাতে এসব টাকা আদায় করা হয়েছে। গ্রামের দরিদ্র পরিবারের সন্তানদের এস.এস.সি পরীক্ষার টাকা যোগাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে বলে জানান অভিভাবক মহল। 

নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে এসব টাকা আদায়ে ফাঁদ পাতা হয়েছে বিভিন্ন কৌশলে। আর এসব টাকা আদায় করা হলেও কোন রশিদ দেয়া হয় না বলে জানা যায়। শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে তাদের কাছ থেকে ৩৭৫০ থেকে ৪ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করা হয়েছে।
আমিনুর রহমান নামের এক পরীক্ষার্থীর পিতা পিতা নিজাম উদ্দিন জানান, তার ছেলের ফরম পূরন করার জন্য প্রায় ৪ হাজার টাকা দিয়েছেন তিনি। অথচ এ টাকা সংগ্রহ করতে তাদের অনেক হিমশিম খেতে হয়েছে। পরীক্ষার্থীর রবিউল ইসলামের পিতা রেজাউল করিম জানান, তার কাছ থেকে ৩৭৫০ টাকা নেয়া হয়েছে। রাজা মিয়া নামক অপর পরীক্ষার্থীর কাছ থেকেও ফরম পূরনের জন্য সমপরিমাণ টাকা আদায় করা হয়েছে।
এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের জন্য সরকার নির্ধারিত ফি বিজ্ঞান শাখার জন্য এক হাজার ৫৮৫ ও অন্যান্য শাখার জন্য এক হাজার ৪৮৫ টাকা। এ ফির সঙ্গে কেন্দ্র ফি বাবদ ৩০০ টাকা ও অনলাইন চার্জ বাবদ ২০০ টাকা যুক্ত করা হবে। এর বাইরে কোনো অজুহাতে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।
অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগটি অস্বীকার করে করজনা এবিএনএন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আছমা খাতুন বলেন, কোন অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হয়নি। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইয়াছমিন বেগম বলেন, বোর্ড নির্ধারিত ফি ব্যতীত কোন টাকা আদায় করা হয়নি।
ঘিওর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এ.বি.এম আব্দুল হান্নান জানান, বকেয়া বেতনসহ বোর্ড নির্ধারিত ফি ছাড়া যদি কোন প্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত টাকা আদায় করে তাহলে অবশ্যই রিসিপের মাধ্যমে নিতে হবে। এক্ষেত্রে কোন অভিযোগ সত্য প্রমানিত হলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫